এলএমসির প্রস্তুতিসভা

প্রকাশিত :  ১৩:৩৮, ০৭ নভেম্বর ২০১৮

বর্ণবাদ ও ধর্মবিদ্বেষের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহবান

বর্ণবাদ ও ধর্মবিদ্বেষের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহবান

জনমত রিপোর্ট ।। বৃটেনে সবচেয়ে বড় বর্ণবাদ-বিরোধী সমাবেশ হলো ন্যাশনাল ইউনিটি ডেমোনস্ট্রেশন। প্রতি বছরের মতো এবারও আগামী ১৭ নভেম্বর শনিবার দুপুর ১২টায় সেন্ট্রাল লন্ডনের পোটল্যান্ড প্যালেসে বিবিসি অফিসের সম্মুখে এই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

সমাবেশকে সফল করতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। এ উপলক্ষে ৫ নভেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় লন্ডন মুসলিম সেন্টারের সেমিনার রুমে বর্ণবাদ-বিরোধী বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। ফিন্সবারী পার্ক মসজিদ কমিটির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ কজবার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন মুসলিম অ্যাসোসিয়েশন অব বৃটেন (এমএবি) এর প্রেসিডেন্ট আনাস আলতিকরিটি, ন্যাশনাল ইউনিয়ন স্টুডেন্ট এর এক্সিকিউটিভ কাউন্সিলর মারিয়াম কেন, স্ট্যান্ড আপ-টু রেইসিজম এর জয়েন্ট কনভেনার ওয়েম্যান বেনেট, ইস্ট লন্ডন মস্ক এন্ড লন্ডন মুসলিম সেন্টারের ডাইরেক্টর দেলওয়ার খান, সদস্য আব্দুল্লাহ ফলিক, মুসলিম কাউন্সিল অব বৃটেনের এসিসটেন্ট সেক্রেটারি জেনারেল মাসুদ আহমদ, দারুল উম্মাহর প্রেসিডেন্ট হাসান মঈনুদ্দিন, সেক্রেটারি শাবিবর কাওসার, সাপ্তাহিক দেশ সম্পাদক তাইসির মাহমুদ, ইক্বরা বাংলা টিভির জেনারেল ম্যানেজার হাসান হাফিজুর রহমান পলক, টিভি ওয়ান’র সিনিয়র রিপোর্টার জাকির হোসেন কয়েস, ইউকে ইসলামিক মিশনের সেক্রেটারি রওয়ান শামস, সোমালী ডেভোলাপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান হোসাইন ইব্রাহিম, আল-হুদা মসজিদ কমিটির সদস্য আবু বকর প্রমুখ।

সভায় ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ আগামী ১৭ নভেম্বরের জাতীয় বিক্ষোভ সমাবেশে মুসলিম নন-মুসলিম জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষকে অংশগ্রহণের আহবান জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, এক জরিপে দেখা গেছে বৃটেনে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ধর্মবিদ্বেষ সংক্রান্ত অপরাধ বা ইসলামফোবিয়া বেড়েছে আশংকাজনক হারে। এভাবে বাড়তে থাকলে একসময় মুসলমানদের স্বাধীন জীবনযাত্রায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হবে। প্রকাশ্যে ধর্মচর্চা অসম্ভব হয়ে পড়বে। বিশেষকরে হিজাবী মহিলা, কিংবা দাড়িওয়ালা ও টুপিপড়া মুসলিমদের রাস্তাঘাটে বিভিন্নভাবে অপমানের শিকার হতে হবে।

সভায় জানানো হয়, আগামী ৯ ও ১৬ নভেম্বর দুই শুক্রবার ইস্ট লন্ডনের মসজিদগুলোতে জুমার খুতবায় বর্ণবাদ ও ইসলাম বিদ্বেষ নিয়ে ইমামদের খুতবা প্রদান করতে অনুরোধ জানানো হবে। ইস্ট লন্ডন মসজিদের ডাইরেক্টর দেলওয়ার খান বাঙালি কমিউনিটির সর্বস্তরের মানুষকে সমাবেশে অংশগ্রহণের জন্য আহবান জানান। ইস্ট লন্ডন থেকে সমাবেশে যেতে আগ্রহীদের জন্য আলতাব আলী পার্কে একটি কোচ থাকবে। কোচে যেতে আগ্রীদেরকে ওইদিন সকাল ১১টার মধ্যে আলতাব আলী পার্কে জমায়েত হতে অনুরোধ জানান।



Leave Your Comments


কমিউনিটি এর আরও খবর