প্রকাশিত :  ০৬:১৫, ১৭ জানুয়ারী ২০২১
সর্বশেষ আপডেট: ০৬:২০, ১৭ জানুয়ারী ২০২১

বাইডেনের শপথ ঘিরে সহিংসতার আশঙ্কা

ওয়াশিংটনগামী ফ্লাইটে কড়াকড়ি

বাইডেনের শপথ ঘিরে সহিংসতার আশঙ্কা

নতুন প্রেসিডেন্ট জোসেফ বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠান ও ক্ষমতা গ্রহণকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্র অস্থিতিশীল হয়ে উঠছে। মার্কিন রাজধানী ওয়াশিংটন যুদ্ধনগরীর রূপ পরিগ্রহ করেছে। অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে আনন্দের বদলে বিরাজ করছে ভীতিকর পরিবেশ। শহরে ন্যাশনাল গার্ড আর আইনশৃংখলা বাহিনী ছাড়া অন্য কারো চলাচল নেই। ট্রাম্পের উগ্রপন্থি শ্বেতাঙ্গবাদী গোষ্ঠীর অব্যাহত হুমকির মুখে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হয়েছে ওয়াশিংটনকে। এসব সন্ত্রাসী গৃহযুদ্ধ বাধানোর উস্কানি দিচ্ছে। এতে বাইরের রাষ্ট্রের ইন্ধন রয়েছে বলে মনে করছেন মার্কিন গোয়েন্দারা। মেট্রো ওয়াশিংটন এলাকার হোটেলগুলোকে কোন বুকিং নিতে দেয়া হচ্ছে না।
খালি করে দেয়া হয়েছে ওয়াশিংটন ডিসির অনেক হোটেল। সারাদেশের অবস্থাও একই রকম প্রায়। সকল রাজ্যের রাজধানী ঘিরে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা। ২৫ হাজার ন্যাশনাল গার্ড ঘিরে রেখেছে ওয়াশিংটন ডিসি। ম্যারিল্যান্ড, নিউ মেক্সিকো ও ইউটাহ রাজ্যের গভর্নর জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। যেকোন সহিংস পরিস্থিতি মোকাবিলায় মিশিগান, পেনসিলভেনিয়া, ভার্জিনিয়া, ওয়াশিংটন, উইসকনসিন ও ক্যালিফোর্নিয়ার রাজধানীতে নামানো হয়েছে ন্যাশনাল গার্ড। টেক্সাসে শনিবার থেকে বুধবার পর্যন্ত সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে রাজ্য ক্যাপিটল ভবন ।
রাজধানী ওয়াশিংটনের পার্শ্ববর্তী রোনাল্ড রিগ্যান ইন্টারন্যাশনাল ও ডালাস ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টের নিরাপত্তা ঢেলে সাজানো হয়েছে। নিয়মিত বাহিনীর পাশাপাশি মোতায়েন করা হয়েছেবিভিন্ন সংস্থার লোকজন। তল্লাশী চালানো হচ্ছে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বিশেষ ডগ স্কোয়াড ব্যবহার করে। টিএসএ এডমিনিস্ট্রেটর ডেভিড প্যাকোস্কি জানান, গোটাদেশ থেকে ওয়াশিংটনগামী সকল ফ্লাইটে বাড়ানো হয়েছে ইউএস মার্শালের সংখ্যা । সকল এয়ারলাইনস যেকোন ধরনের অস্ত্র পরিবহন নিষিদ্ধ করেছে। বন্ধ করেছে ইন-ফ্লাইটে সব ধরনের এলকোহল পরিবেশন। এয়ারপোর্টসমূহ এফবিআইয়ের নো-ফ্লাই তালিকায় থাকা অভ্যন্তরীণ সম্ভাব্য সন্ত্রাসীদের যাচাই-বাছাই করে ইস্যু করছে বোডিং পাস। এফবিআইসহ ফেডারল সংস্থার কাছে তথ্য রয়েছে, বোলাগো নামের একটি চরম ডানপন্থি গ্রুপ দ্বিতীয়  গৃহযুদ্ধ শুরু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। তারা রাজধানীতে সশস্ত্র আক্রমণের পরিকল্পনা করছে।
এদিকে, ৬ জানুয়ারির ক্যাপিটল ভবনে হামলার পর গোয়েন্দারা এই অভ্যন্তরীণ সহিংসায় উস্কানিতে রাশিয়া, চীন ও ইরানের সংশ্লিষ্টতা খুঁজে পেয়েছেন। এসব দেশ বিদ্বেষমূলক বার্তা ছড়াতে ট্রাম্পের উগ্রবাদী সমর্থকদের নানাভাবে মদত যোগাচ্ছে বলে একটি যৌথ তদন্তে উঠে এসেছে। এছাড়া ফ্রান্সের একজন কম্পিউটার প্রোগ্রামার ৬ জানুয়ারির ক্যাপিটল হিলে হামলার ঠিক  আগে ৫ লাখ ডলার মূল্যের বিটকয়েন ভার্চ্যুয়ালি ট্রান্সফার করেছে আমেরিকার উগ্রবাদী ডানপন্থি গ্রুপের কাছে। এ বিষয়ে এফবিআই তদন্ত অব্যাহত রেখেছে। অনেক এয়ারলাইনস তাদের ওয়াশিংটনগামী ফ্লাইটে আসন সংখ্যা কমিয়ে দিয়েছে।এমট্রাক ট্রেনে চালানো হচ্ছে তল্লাশী। ওয়াশিংটনে প্রবেশকারী সব বাসও এর বাইরে নয়। বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানের স্থল ক্যাপিটল ভবন এলাকাসহ ন্যাশনাল মল, ওয়াশিংটন মনুমেন্ট, লিঙ্কন মেমোরিয়াল, হোয়াইট হাউজসহ সকল গুরত্বপূর্ণ স্থাপনায় সাত ফুট উঁচু স্টিলের নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে তার উপর বসানো হয়েছে ধারালো ফলার মতো বর্ম। সারা নগরী ছেয়ে আছে ন্যাশনাল গার্ড সদস্যে। ওয়াশিংটকে এখন চেনাই মুশকিল। সেনাদের সশস্ত্র টহল ছাড়া আর কিছুই নজরে আসছে না।
নিরাপত্তা চৌকিতে তল্লাশীকালীন শনিবার ওয়াশিংটন ডাউনটাউনে ১৭ রাউন্ড গুলিভর্তি একটি অত্যাধুনিক অস্ত্রসহ ভার্জিনিয়ার বাসিন্দা ওয়েসলি বিলার (৩১)কে গ্রেফতার করা হয়েছে। ক্যাপিটল ভবনের নিকটবর্তী একটি চেক পয়েন্টে থেকে তাকে আটক করা হয়। বিলারের পিকআপ ট্রাক থেকে উদ্ধার করা হয় ৫০৯ রাউন্ড গুলি। ক্যাপিটল পুলিশ তার নিকট থেকে বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানের একটি জাল আমন্ত্রণপত্রও উদ্ধার করেছে।


Leave Your Comments


আন্তর্জাতিক এর আরও খবর