প্রকাশিত :  ১০:৩১, ০১ এপ্রিল ২০২১

শাল্লায় সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা: ৭২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করলেন পোস্টদাতা ঝুমনের মা

শাল্লায় সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা: ৭২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করলেন পোস্টদাতা ঝুমনের মা

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় ৭২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ঝুমন দাস আপনের মা নিভা রানী দাস।

বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) আমল গ্রহণকারী ম্যাজিস্ট্রেট শাল্লা জোন আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। আদালত মামলাটি ডিবি পুলিশের কাছে তদন্তের জন্য হস্থান্তর করেছেন।

আদালতে দাখিলকৃত মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ১৬ মার্চ নিভা রাণী দাসের ছেলে ঝুমন দাস আপনের ফেসবুক স্ট্যাটাসের জের দিরাই ও শাল্লার কয়েকটি গ্রামের মানুষ দারাইন বাজারে সশস্ত্র বিক্ষোভ করে। এ ঘটনায় গ্রামবাসী ঝুমনকে পুলিশে সোপর্দ করেন। পরদিন গ্রামগুলোর হাজারো সশস্ত্র মানুষ সংঘবদ্ধ হয়ে নোয়াগাও গ্রামে এসে হামলা লুটপাট করে। ওইদিন তারা গ্রামের ৮৫টি ঘরে লুটপাট ও ভাঙচুর চালায়। এসময় বাধা দিলে পুত্রবধুকে মারধরসহ তার শ্লীলতাহানীরও চেষ্টা করে হামলাকারীরা। মামলায় তিনি নাচনি, চন্ডিপুর, ধনপুর ও কাশিপুরসহ কয়েকটি গ্রামের ৭২জনের নাম উল্লেখ করেছেন।

মামলার বাদী নিভা রাণী দাস বলেন, 'গত ২৫ মার্চ এই মামলাটি আমি শাল্লা থানায় দায়ের করেছিলাম। কিন্তু পুলিশ মামলাটি না নেওয়ায় আজ আদালতে দাখিল করেছি। আমি এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার চাই। একই সঙ্গে আমার ছেলেরও মুক্তি চাই।'

মামলার আইনজীবী এডভোকেট দেবাংশ শেখর দাস বলেন, শাল্লা থানা পুলিশ মামলাটি না নেওয়ায় আমরা আজ আদালতে দাখিল করেছি। আদালত বাদীর জবানবন্দি নিয়ে মামলাটি ডিবির ওসিকে তদন্তের ব্যবস্থা গ্রহণে নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে বৃহষ্পতিবার দুপুরে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তারা সাম্প্রদায়িক এই হামলার নিন্দা জানিয়ে দোষী সবাইকে বিচারের আওতায় আনা হবে বলে আশ্বাস দেন। পরে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসীর হাতে সহায়তা তুলে দেন।




Leave Your Comments


সিলেটের খবর এর আরও খবর