প্রকাশিত :  ১০:১৭, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

জবিতে প্রশাসনিক জটিলতায় প্রাকটিক্যাল পরীক্ষায় ব্যাঘাত

জবিতে প্রশাসনিক জটিলতায় প্রাকটিক্যাল পরীক্ষায় ব্যাঘাত
জনমত ডেস্ক ।। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) প্রশাসনিক জটিলতায় ল্যাব, প্রাকটিক্যাল ও মৌখিক পরীক্ষায় ব্যাঘাত ঘটার অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষার সময় পার হলেও রেজিস্ট্রার অফিস থেকে টাকা দিতে বিলম্ব করা  হচ্ছে। যার ফলে ভোগান্তিতে পড়ছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

অনুসন্ধানে জানা যায়, পরীক্ষার ফি বাবদ শিক্ষার্থীরা যে টাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাংকে জমা দেয়, পূর্বে সরাসরি বিভাগে দেওয়া হলেও বর্তমানে রেজিস্ট্রার অফিস এবং অর্থদফতরের  মাধ্যমে  বন্টন করে দেয়া হয়। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকে এ নিয়ম চালু হয়। কিন্তু অধিকাংশ বিভাগেই পরীক্ষার সময় পার হয়ে গেলেও টাকা পাচ্ছে না সংশ্লিষ্ট বিভাগ। ফলে প্রায় সময়ই ল্যাব ও প্রাকটিক্যাল পরীক্ষার প্রয়োজনীয় উপকরণ ও উপাদান কিনতে হচ্ছে শিক্ষকদের ব্যক্তিগত অর্থে। আবার অন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মৌখিক পরীক্ষা শিক্ষকদের সম্মানী না দিতে পেরে লজ্জায় পড়ছে বিভাগগুলো।

ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বলেন, ‘বর্তমানে আমরা ভর্তির টাকা থেকে কাজ চালিয়ে নিচ্ছি। গতবারও টাকা পেতে বিলম্ব হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও চট্টগ্রাম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মৌখিক পরীক্ষা নিতে আসা শিক্ষকদের যদি যাওয়া-আসার খরচটাও হাতে না দিতে পারি বিষয়টা খুব খারাপ দেখায়।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মনোবিজ্ঞান বিভাগের একজন শিক্ষক বলেন, ‘টাকা না পেয়ে রেজিস্টার অফিসে ফোন দিলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বলেন আপনারা আপনাদের মত চালিয়ে নেন। পরে বিভাগীয় প্রধানকে দিয়ে রেজিস্ট্রারকে ফোন দিলে ১ ঘণ্টার মধ্যে টাকা আসবে বললেও পরের দিনেও টাকা আসেনি।’

রসায়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আবুল কালাম মোঃ লুৎফর রহমান ব্রে‌কিং‌নিউজকে বলেন, ‘টাকা দেয়ার প্রক্রিয়াটা এত বোদারিং না করে সরাসরি বিভাগকে দিলেই ভালো হবে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান ব্রে‌কিং‌নিউজকে বলেন, এ বিষয়টা একাউন্টস দেখে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব টাকা দিয়ে দেওয়া হবে।


Leave Your Comments


শিক্ষা এর আরও খবর