প্রকাশিত :  ১৭:১৫, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

ক্রমেই সমৃদ্ধ হচ্ছে জবির ই-লাইব্রেরি

ক্রমেই  সমৃদ্ধ হচ্ছে জবির ই-লাইব্রেরি

জনমত ডেস্ক ।। যুগের সাথে তাল মিলিয়েই সমৃদ্ধ হচ্ছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ই-লাইব্রেরি। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে চলু হওয়া দেশের প্রথম ই-লাইব্রেরীটিতে বেশ কিছু সমস্যা থাকলেও এর ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল দেখছে কতৃপক্ষ। 

সরেজমিনে দেখা যায়, জবির নতুন ভবনের ৬ষ্ঠ তলাতে অবস্থিত কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিটিতে দুটি কক্ষ নিয়ে চলছে ই-লাইব্রেরির সেবা। এতে আগে ৫০টি কম্পিউটার থাকলেও এর অধিকাংশই নষ্ট হয়ে যায়, তবে সম্প্রতি আরও ২০টি কম্পিউটার কেনা হয়েছে। তবে এতে দেখা যায়নি তেমন কোনো পাঠক। প্রায় সবকটি কম্পিউটার চালু থাকলেও হাতে গোনা কয়েকজনকে দেখা যায় সেখান থেকে পড়াশুনা করতে। 

ই-জার্নাল পড়তে আসা সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগের মার্স্টাস থিসিস গ্রুপের শিক্ষার্থী তৈমুর খান বলেন, ‘আমাদের ই-লাইব্রেরিটি বেশ সমৃদ্ধ, তবে সমস্যা হচ্ছে সঠিক ম্যানেজমেন্ট এবং পরিবেশের কারণে এখানে কেউ তেমন আসতেই চায় না। আবার অনেকেই জানেন না আমাদের এতো সমৃদ্ধ ই-লাইব্রেরি আছে।’

পাশেই থাকা ফার্মেসী বিভাগের ৫ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মানিক বলেন, ‘এখানে যে জার্নালগুলো পাওয়া যায় তা আপডেট করা হয় না।’

কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে বই পড়তে আসা সাংবাদিকতা বিভাগের ওয়াহিদ বলেন, ‘আমাদের ই-লাইব্রেরিতে অনেককেই আসেন নিজ বই পড়ার জন্য। কিন্তু এখানে নিজে বই নিয়ে আসতে পারেন না। তাই অনেকেই আসেন না, আবার যারা আসেন তারা এসব ই-লাইব্রেরিতে আসার আগ্রহ দেখান না। তাছাড়া এসব ই-লাইব্রেরির জার্নাল ও বই শুধু মাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরি এবং এর সংযোগের আওতায় যে ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক আছে তারাই পড়তে পারেন। এটা সব জায়গা থেকে শিক্ষার্থীরা পড়তে পারলে শিক্ষার্থীরা আরো বেশি উপকৃত হতেন।’ 

জানা যায়, জবির অনলাইন লাইব্রেরিটি ২০১৪ সালে হেকেপ প্রকল্পের অধীনে প্রতিষ্ঠিত হয়। এর পর থেকে প্রতি মাসেই নতুন নতুন ই-বই, জার্নাল যোগ করা হচ্ছে। বর্তমানে প্রায় ২৪ হাজারের বেশি ই-বই এবং ১০ হাজারের বেশি ই-জার্নাল আছে। 

এ বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গ্রন্থাগারিক মো.এনামুল হক বলেন, ‘আমাদের ই-লাইব্রেরিটি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রথম অনলাইন ভিত্তিক লাইব্রেরীরি। এখানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রকাশিত জার্নাল ও ই-বুক রাখা হচ্ছে। এটি এখন দেশের বড় অনলাইন লাইব্রেরিগুলোর একটি। এছাড়া দিন দিন সমৃদ্ধ হচ্ছে। তবে খুব বেশি জনপ্রিয় হচ্ছে না। এটাকে জনপ্রিয় করার জন্য ইতোমধ্যেই বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।’

এ বিষয়ে জবি ভিসি অধ্যাপক ড.মীজানুর রহমান বলেন, ‘এখন প্রিন্ট বইয়ের প্রতি শিক্ষার্থীরা আগ্রহ হারাচ্ছে। তাই আমরা বিকল্প চিন্তা করে ই-লাইব্রেরিটিতে সমৃদ্ধ করার কথা চিন্তা করছি। ইতোমধ্যে নতুন ২০ কম্পিউটার কেনা হয়েছে। ডিসেম্বরে হেকেপ প্রকল্পের অধীনে প্রায় আড়াই কোটি টাকা ব্যয়ে বিডি রেন্ট এর উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ইন্টারনেট সংযোগ চালু হবে। ফলে সহজেই শিক্ষার্থীরা ই-জার্নাল ও বই পড়তে পারবে। তাছাড়া গত দু বছর আমরা প্রিন্ট বইয়ের বদলে ই-বুক ও ই-জার্নাল কিনে আমাদের ই-লাইব্রেরিটিতে সমৃদ্ধ ও যুগোপযোগী করা হয়েছে।’  



Leave Your Comments


শিক্ষা এর আরও খবর