প্রকাশিত :  ০৯:৩৩, ১৪ জুন ২০২১

মধ্যরাতে ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টা : মামলার এজাহারে যা লিখেছেন পরীমণি

মধ্যরাতে ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টা : মামলার এজাহারে যা লিখেছেন পরীমণি

বিনোদন ডেস্ক: আবাসন ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় সাভার থানায় এই মামলা দায়ের করেন তিনি। মামলায় আসামি হিসেবে ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও আবাসন ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও পরীমণির বন্ধু অমির নাম উল্লেখ করে আরও চারজনের নাম অজ্ঞাত রাখা হয়েছে।

সাভার থানার পরিদর্শক কাজী মাইনুল ইসলাম জানান, পরীমণি বাদী হয়ে ৬ জনের নামে এ মামলাটি দায়ের করেছেন। আমাদের সময় -এর পাঠকদের জন্য মামলার এজাহারের কপিটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

‘বরাবর,

অফিসার ইনচার্জ সাভার মডেল থানা

জেলা, ঢাকা। বিষয় : এজাহার।


জনাব,

বিনীত নিবেদন এই যে আমি নিম্নস্বাক্ষরকারী পরিমনি (২৫), পিতা-মৃত মনিরুল ইসলাম, মাতা-মৃত সালমা সুলতানা, সাং-সিংহখালী, থানা-ভান্ডারিয়া, জেলা-পিরােজপুর, বর্তমানে বাড়ী নং-১২, রোড নং-১৯/এ, থানা-বনানী, ঢাকা। আসামী ১। নাসির উদ্দিন মাহমুদ (৫০), সাবেক সভাপতি উত্তরা ক্লাব, ঢাকা, পিতা- অজ্ঞাত, মাতা- অজ্ঞাত, সাং-অজ্ঞাত, থানা-অজ্ঞাত, জেলা-অজ্ঞত, 

২। অমি (৪১), পিতা-অজ্ঞাত, মাতা-অজ্ঞাত, সাং-অজ্ঞাত, থানা- অজ্ঞাত, জেলা-অজ্ঞাত, উভয় বর্তমান ঠিকানা-অজ্ঞাতসহ অজ্ঞাতনামা ০৪ জনের বিরুদ্ধে এই মর্মে এজাহার দায়ের করিতেছি যে, গত ০৮/০৬/২০২১ ইং তারিখ রাত অনুমান ২৩,৩০ ঘটিকার সময় আমার বর্তমান ঠিকানার বাসা হইতে আমার কষ্টিউম ডিজাইনার জিমি (৩০), অমি (৪০), ও বনি (২০) সহ দুটি গাড়ী যােগে উত্তরার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।

পথিমধ্যে অমি বলে বেরিবাঁধস্থ ঢাকা বােট ক্লাব লিমিটেডে তাহার দুই মিনিটের কাজ আছে। অমির কথামত আমরা ঢাকা বেট ক্লাব এর সামনে গত ০৯/০৬/২০২১ তারিখ রাত অনুমান ০০,২০ ঘটিকার সময় গাড়ী দাঁড় করাই। কিন্তু বােট ক্লাব বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অমি কোন এক ব্যক্তির সাথে মােবাইল ফোনে কথা বলে। তখন ঢাকা বােট ক্লাবের সিকিউরিটি গার্ডরা গেইট খুলে দেয় তখন অমি ভিতরে যায় এবং অমি অনুরােধ করে এখানের পরিবেশ অনেক সুন্দর তোমরা নামলে নামতে পার। ইতিমধ্যে আমার ছোট বােন বনির প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দিলে আমরা ঢাকা বােট ক্লাবে প্রবেশ করিয়া বারের কাছের টয়লেট ব্যবহার করি । টয়লেট হতে বের হতেই ১ নং বিবাদী নাসির উদ্দিন মাহমুদ (৫০) আমাদেরকে ডেকে বারের ভিতরে বসার অনুরোধ করেন এবং কফি খাওয়ার জন্য প্রস্তাব দেন। আমরা বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চাইলে অমিসহ ১নং আসামি মদ্যপান করার জন্য জোর করেন। আমি মদ্যপান করিতে না চাইলে ১নং আসামি জোর করিয়া আমার মুখের মধ্যে মদের বােতল প্রবেশ করিয়ে মদ খাওয়ানাের চেষ্টা করে ইহাতে আমার সামনের দাঁতে ও ঠোঁটে আঘাত প্রাপ্ত হই। ১নং আসামি আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং আমার শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে স্পর্শ করে ও আমাকে জোর করে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

উক্ত ১নং আসামি উত্তেজিত হইয়া টেবিলে রক্ষিত গ্লাস ও মদের বােতল ভাঙচুর করে আমার গায়ে ছুড়ে মারেন। তখন আমার কষ্টিউম ডিজাইনার জিমি ১নং আসামিকে বাধা দিতে চাইলে তাকেও মারধর করিয়া নীলাফোলা জখম করে। আমি প্রথমে জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ এ কল দিতে গেলে আমার ব্যবহৃত ফোনটি টান মেরে ফেলে দেয়। পুনরায় ফোনটি উঠিয়ে কল দিতে চাইলে আবারও ফোনটি টেনে ফেলে দেয়।

উল্লেখ্য যে ২নং আসামিসহ অজ্ঞাতনামা ৪ জন আসামি ১নং আসামিকে ঘটনা ঘটাইতে সহায়তা করে। আমি অজ্ঞাতনামা আসামিদের দেখলে শনাক্ত করিতে পারিব। প্রকাশ থাকে যে, ২নং আসামি অমি পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমাকে আমার বর্তমান বাসা হইতে ঢাকা বােট ক্লাবে নিয়ে যায়, এবং ২নং আসামিসহ অজ্ঞাতনামা ৪ জন আসামিদের সহায়তায় ১নং আসামি নাসির উদ্দিন মাহমুদ (৫০) আমার শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর স্থানে স্পর্শ করে এবং জোরপূর্বক আমাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। আমার সঙ্গীয়দের সহায়তায় ধর্ষকের হাত থেকে রক্ষা পাই। রাত অনুমান ০৩.০০ ঘটিকার সময় আমি আমার গাড়িযােগে প্রায় অচেতন অবস্থায় আমার সঙ্গীয়দের সাথে ফিরে আসি।

উল্লেখ্য যে আসামিরা বিভিন্ন মাধ্যমে আমাকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করিতেছে। উক্ত বিষয়ে আমি আমার পরিবার, শিল্পী সমিতি ও অন্যান্যদের সহিত আলােচনা করিয়া উক্ত এজাহার দায়ের করিতে বিলম্ব হইলাে।’

এর আগে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ তুলে ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পরীমণি রোববার রাতে নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ ব্যাপারে দীর্ঘ স্ট্যাটাস দেন। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে বনানীর নিজ বাসায় এ ব্যাপারে সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় নাসির উদ্দিন মাহমুদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ করেন তিনি। এ ঘটনার সঠিক বিচারও দাবি করেন এই চিত্রনায়িকা।



Leave Your Comments


বিনোদন এর আরও খবর