প্রকাশিত :  ২০:৫৮, ১৮ জুন ২০২১

রাণীর বার্থডে এওয়ার্ড পেলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ওয়াজিদ হাসান সেলিম

রাণীর বার্থডে এওয়ার্ড পেলেন বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ওয়াজিদ হাসান সেলিম

জনমত রিপোর্টঃ করোনাভাইরাসের মহামারীর সময় জরুরী কাজে নিয়োজিত কর্মী, হাসপাতাল এবং কেয়ার হোমগুলোতে ৭,৫০০ ফ্রি মিলস্ সরবরাহ করার স্বীকৃতি স্বরূপ রাণীর বার্থডে সম্মাণনা পেলেন বিশিষ্ট রেস্টুরেটার্স, ব্যবসায়ি ও সমাজসেবি ওয়াজিদ হাসান সেলিম।

পূর্ব লন্ডনের মাইল এন্ডের এক সময়ের জনপ্রিয় রেস্টুরেন্ট প্রাইড অব এশিয়া এবং চাডওয়েল হীথ এর ম্যাফেয়ার ভেন্যুর মালিক সেলিম পেলেন বিইএম (ব্রিটিশ এম্পায়ার মেডেল) খেতাব। ১২ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে কুইনস্ এওয়ার্ড ঘোষনা করা হয়। মহামারীর কারণে বার বার লকডাউন ও নানা বিধিনিষেধের প্রভাব তার হসপিটালিটি ব্যবসায়ের ওপর পড়ে। ২৫ বছরের মধ্যে এবারই প্রথম তার রেস্টুরেন্ট ও ক্যাটারিং ব্যবসায় নেমে আসে স্থবিরত। এতদ সত্বেও তিনি ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কারদের পাশে থাকেন, বাড়িয়ে দেন সহযোগিতার হাত। ২১ জন কর্মী নিয়মিত খাবার তৈরী করেছেন এবং স্বেচ্ছাসেবীদের সহযোগিতায় তিনি তা যাদের খাদ্য সহায়তার দরকার, তাদের কাছে পৌঁছে দেন।

৪ সন্তানের জনক ওয়াজিদ হাসান বলেন, ভালোভাবে জীবন যাপন করার মত ভালো স্বাস্থ্য আল্লাহ আমাকে দিয়েছেন। প্রয়োজনের সময় সমাজের পাশে দাড়ানো উচিত। এই বোধ থেকেই আমি মহামারীর সময় মানুষের পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করেছি।


উল্লেখ্য, বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ওয়াজিদ হাসান সেলিম ২৩ বছর বয়সে তাঁর ক্যাটারিং ব্যবসা শুরু করেন। তিনি টাওয়ার হ্যামলেটসের ক্লাব রো’তে অবস্থিত সেন্ট হিলডাস্ ইস্ট কমিউনিটি সেন্টারসহ ইস্ট এন্ডের বিভিন্ন ডে কেয়ার সেন্টারেও নিয়মিত কস্ট প্রাইসে (খাবার তৈরীতে যে অর্থ ব্যয় হয়েছে) খাবার সরবরাহ করেছেন। মহামারীর সময় তিনি রেডব্রীজ ও রমফোর্ডের ম্যাকডোনাল্ডস্ এবং সেভেন কিংস লায়ন্স ক্লাব চ্যারিটির সাথে মিলে ১০টি হাসপাতাল ও কেয়ার হোম এবং পুলিশ, এম্বুলেন্স ও ফায়ার স্টেশনগুলোর স্টাফদের খাবার সরবরাহ করেছেন। 


তাঁর মেফেয়ার ভেন্যুর ম্যানেজার জাস সিং বলেন, মহামারী শুরুর পরপরই আমরা কুইনস এবং কিং জর্জ হসপিটালে খাদ্য সহায়তা দিতে শুরু করি। এরপরই আমরা রয়েল লন্ডন সহ বিভিন্ন হাসপাতাল থেকেও এধরনের খাদ্য সহায়তা চেয়ে ফোন কল পাই। একবার আমরা শুরু করার পর আর থামিনি।

২০১৮ সালে সেলিম হোয়াইটচ্যাপলে হোমলেসদের মধ্যে ১ হাজার মিল সরবরাহ করেছিলেন। এছাড়া ২০০৯ সালে সারা বিশ্বের মুসলমানদের জন্য ১০ হাজার ইফতার সামগ্রী প্রদান করেন।




Leave Your Comments


কমিউনিটি এর আরও খবর