প্রকাশিত :  ০৮:৪৩, ২২ জুন ২০২১

সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপ: ফোবানার ভাইস চেয়ারম্যান এবং সেক্রেটারিকে বহিস্কার

সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপ: ফোবানার ভাইস চেয়ারম্যান এবং সেক্রেটারিকে বহিস্কার

একের পর এক সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত থাকার দায়ে ফোবানার নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ড. আহসান চৌধুরী হিরো এবং সেক্রেটারি মাসদু রব চৌধুরীকে ফোবানা থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে লেবার ডে উইকেন্ড (সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ) থেকে পিছিয়ে ৩৫তম ফোবানা সম্মেলন নভেম্বরের ২৬-২৭-২৮ তারিখে নির্দ্ধারণ করা হয়েছে ১৬ জুনের সভায়। এমনি অবস্থায় বিশেষ একটি মহলের মদদে এই দুই কর্মকর্তা পুরো কমিউনিটিতে বিভ্রান্তির প্রচারণা শুরু করেছেন।

২০ জুন প্রেরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বহিষ্কারের এ তথ্য জানিয়ে উল্লেখ করা হয়েছে, ফোবানার ভাইস চেয়ারম্যান ড. আহসান চৌধুরী হিরোর বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের মধ্যে রয়েছে ১৬ জুন ফোবানার নির্বাহী কমিটির বৈঠক চেয়ারম্যান জাকারিয়া চৌধুরী কর্তৃক মূলতবী ঘোষণার পরে সম্পূর্ণ অবৈধ ও অসাংগঠনিকভাবে তিনি সে সভা অব্যাহত রাখেন এবং নিজে সভাপতিত্ব করেন। সে সময় নির্বাহী কমিটির কিছু সদস্যের উপস্থিতিতে চেয়ারম্যান কর্তৃক রুলিংকৃত সম্মেলনের তারিখ পরিবর্তন করে সংগঠন ও সম্মেলন বিরোধী অবৈধ সিদ্ধান্ত গ্রহনে সহযোগিতা করেছেন।

এছাড়াও ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবার পর সম্পর্ণূ অসাংগঠনিক ভাবে চেয়ারম্যানকে পাশ কাটিয়ে ফোবানার সাব কমিটি গঠন করেছেন। আসন্ন ৩৫তম ফোবানা সম্মেলনকে বাধাগ্রস্থ করার জন্য স্বাগতিক কমিটির বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা প্রপাগান্ডা অব্যাহত রাখেন।

এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি মাসুদ রব চৌধুরীর বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্টভাবে ১১টি অভিযোগ রয়েছে। এগুলো হচ্ছে: ১. গত ১৬ জুন ফোবানার নির্বাহী কমিটির বৈঠক চেয়ারম্যান জাকারিয়া চৌধুরী কর্তৃক মূলতবী ঘোষণা করার পরে সম্পূর্ণ অবৈধ ও অসাংগঠনিক ভাবে সভা পরিচালনা করা। ২. চেয়ারম্যান কর্তৃক রুলিংকৃত ৩৫তম ফোবানা সম্মেলনের তারিখ নিয়ে সম্মেলন বিরোধী অবৈধ সিদ্ধান্ত গ্রহনে সহযোগিতা করা। ৩. ১৭ জুন চেয়ারম্যানকে না জানিয়ে সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে ফোবানার ওয়েবসাইট, ই-মেল ও সোস্যাল মিডিয়া একাউন্ট এর পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে সম্মেলন বিরোধী বিভিন্ন মিথ্যা প্রপাগান্ডা পরিচালনা করা। ৪. ১৯ জুন মধ্যরাতে ফোবানার নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যানের অনুমোদন ও স্বাক্ষর ব্যতিত সম্পূর্ণ অবৈধভাবে সম্মেলনের তারিখ পরিবর্তন নিয়ে বিভ্রান্তিকর প্রেস রিলিজ বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সোস্যাল মিডিয়ায় প্রচার। ৫. সাম্প্রতিক সময়ে স্বাগতিক কমিটির ক্যালিফোর্নিয়া তহবিল সংগ্রহ অনুষ্ঠানে বিরোধিতা করে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দকে টেক্সট ম্যাসেজ প্রদান। ৬. ৩৫তম ফোবানা সম্মেলনের স্বাগতিক কমিটিকে অর্থ সহ অন্যান্য সহযোগিতা না করার জন্য স্পন্সরদেরকে প্ররোচিত করা। ৭. অর্থ সহ অন্যান্য লেনদেনে ৩৫তম ফোবানা সম্মেলনের স্বাগতিক কমিটির সাথে যোগাযোগ না করে তার (মাসুদ রব চৌধুরীর) সাথে যোগাযোগের জন্য প্ররোচনা প্রদান ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য, প্রেস রিলিজ সোস্যাল মিডিয়ায় প্রচার। ৮. নির্বাচিত হবার পর থেকে চেয়ারম্যানের একাধিক রুলিং অমান্য করা। ৯. ফোবানার নির্বাহী কমিটির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে বিভিন্ন সভায় উপদেষ্টাদেরকে অগ্রাহ্য ও অপমান করা। ১০. প্রতিটি নির্বাহি কমিটির মিটিং এর পূর্বে ফোবানার কিছু সদস্য নিয়ে জুম মিটিং করে ফোবানার ভিতরে গ্রুপিং ও অভ্যন্তরিন কোন্দল সৃষ্টি এবং ১১. ফোবানার ঐক্য প্রক্রিয়া নস্যাতের চেষ্টা করা।

উপরোক্ত অভিযোগের ভিত্তিতে ফোবানার অপারেটিং প্রসিডিউরের আর্টিকেল ১৭, সেকশন ৫ এর জিরো টলারেন্স নীতির আলোকে ভাইস চেয়ারম্যান ড. আহসান চৌধুরী হিরো এবং এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি মাসদু রব চৌধুরীকে ফোবানার নির্বাহী কমিটি থেকে বহিস্কার এবং আজীবনের জন্যে ফোবানার সাধারণ সদস্য থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে বলে চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

উপরোক্ত অপরাধ সমুহের সাথে অন্যকারো সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধেও যথাযথ সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে চেয়ারম্যান হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন।

Leave Your Comments


কমিউনিটি এর আরও খবর