প্রকাশিত :  ০৯:২৩, ১৫ জুলাই ২০২১

বিমান যোগাযোগ বন্ধ: পাকিস্তানে আটকা পড়লেন শবনম

বিমান যোগাযোগ বন্ধ: পাকিস্তানে আটকা পড়লেন শবনম

বিনোদন ডেস্ক: করোনার কারণে পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের বিমান যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেশে ফিরতে পারছেন না শবনম। গত সোমবার লাহোর থেকে দেশে না আসার বিষয় জানান বাংলা চলচিত্রের স্বর্ণালি দিনের এই নায়িকা। যদিও ২৬ জুলাই দেশে ফেরার টিকিট কনফার্ম ছিল। প্রথম আলো

কয়েক মাস আগে পাকিস্তান সফরে যান শবনম। শুরুতে ফয়সালাবাদে এক ভক্তের বাড়িতে ওঠেন। শবনম বলেন, ‘সাজিয়া আমার ভক্ত। আমি যখন পাকিস্তানে অভিনয় করি, তখন থেকে আমার ছবি দেখে। ৩০ বছরের বেশি আমাদের যোগাযোগ। কখনো দেখা হয়নি। এবার যখন পাকিস্তানে এলাম, দেখা হলো। তার বাড়িতে মেহমান হিসেবে থেকেছি। তারাও আমাকে পেয়ে ভীষণ খুশি। আমারও সুন্দর সময় কেটেছে।’

দীর্ঘ সময় পাকিস্তানি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কারণে লাহোরে তাঁর অনেক বন্ধুও আছে। আছে চলচিত্রের অনেক সহকর্মী আর পরিচিতজন।

ফয়সালাবাদে মাস দুয়েক থাকার পর লাহোরে আরেক ভক্ত-বন্ধুর বাড়িতে যান। মাস তিনেক ধরে সেখানেই আছেন। দীর্ঘ সময় পাকিস্তানি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কারণে লাহোরে তাঁর অনেক বন্ধুও আছে। আছে চলচিত্রের অনেক সহকর্মী আর পরিচিতজন।

শবনম বলেন, ‘এবার লম্বা সময় লাহোরে থাকার কারণে অনেকের সঙ্গেই দেখা হয়েছে। মাঝে করোনা একটু কমেছিল বলেই সম্ভব হয়েছে। এদিকে লাহোরে এখন সংক্রমণও বেড়েছে। ডেলটা ভেরিয়েন্টও পাওয়া যাচ্ছে। তাই কিছুটা আতঙ্কবোধ করছি।

আবহাওয়াও এখন বেশ গরম। ভাবছিলাম, ঢাকার টিকিট যেহেতু কনফার্ম করা আছে, দেশে চলে যেতে পারব। কিন্তু বাংলাদেশেও করোনা বেড়ে যাওয়ায় পাকিস্তানের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধ আছে। আরও কিছুদিনের অপেক্ষা বাড়ল আরকি।’

দেশে ফেরার টিকিট কনফার্ম ছিল। কিন্তু করোনার কারণে পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের বিমান যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আপাতত দেশে ফিরতে পারছেন না শবনম।

সত্তর দশকের শুরুতে শবনম পাকিস্তানের অন্যতম জনপ্রিয় নায়িকা হিসেবে নিজের স্থান শক্ত করে তোলেন। ১৯৮৮ সালের দিকে শবনম বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের চলচ্চিত্রে সমানতালে অভিনয় করতে থাকেন। নব্বইয়ের দশকের শেষ ভাগে ঢাকায় স্থায়ীভাবে বাস করতে শুরু করেন। পাঁচ দশকের অভিনয়জীবনে ১৮০টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন তিনি।



Leave Your Comments


বিনোদন এর আরও খবর