ম্যাড কাউ রোগ

প্রকাশিত :  ১৫:১৭, ১১ অক্টোবর ২০২১

ব্রিটেন থেকে আবার গরুর মাংস আমদানি নিষিদ্ধ করল চীন

ব্রিটেন থেকে আবার গরুর মাংস আমদানি নিষিদ্ধ করল চীন

জনমত ডেস্ক: যুক্তরাজ্য থেকে ৩০ মাসের কম বয়সী গরুর মাংস আমদানি নিষিদ্ধ করেছে চীন। গত মাসে যুক্তরাজ্যে একটি গরুর শরীরে বোভাইন স্পঞ্জিফর্ম ইনসেফ্যালোপ্যাথি (বিএসই) শনাক্ত হওয়ায় বেইজিং দেশটি থেকে এই মাংস আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা দিল। গরুর রোগটি ম্যাড কাউ নামে পরিচিত। খবর বিবিসির।
চীনের জেনারেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অব কাস্টমস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, যুক্তরাজ্য থেকে গরুর মাংস আমদানিতে এ নিষেধাজ্ঞা গত ২৯ সেপ্টেম্বর কার্যকর হয়েছে।
এর আগে নব্বইয়ের দশকে যুক্তরাজ্যে ম্যাড কাউ রোগের সংক্রমণ দেখা দিয়েছিল।
ওই সময়ও চীন দেশটি থেকে গরুর মাংস আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। প্রায় দুই দশক পর ২০১৮ সালে এসে দুই দেশ এ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিষয়ে একমত হয়।
ওই সময় যুক্তরাজ্য সরকার জানিয়েছিল, নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের কারণে পরবর্তী পাঁচ বছরে চীনের বাজারে গরুর মাংস রপ্তানি করে ব্রিটিশ রপ্তানিকারকেরা ২৫০ মিলিয়ন পাউন্ডের বেশি আয় করতে পারবেন। দুই দেশের ঐকমত্যের পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাজ্য থেকে গরুর মাংস আমদানি শুরু করতে যাচ্ছিল চীন। এর আগেই ম্যাড কাউয়ের পুনরায় সংক্রমণের খবর আসায় চীন নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।
যুক্তরাজ্যের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সমারসেটের একটি খামারে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে একটি গরুর ম্যাড কাউ শনাক্ত হয় বলে জানায় দেশটির অ্যানিমেল অ্যান্ড প্ল্যান্ট হেলথ এজেন্সি (এপিএইচএ)।
এদিকে ম্যাড কাউয়ের সংক্রমণের জের ধরে ১৯৮৯ সালে যুক্তরাজ্য থেকে ভেড়ার মাংস আমদানি নিষিদ্ধ করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। গত সেপ্টেম্বরে দুই দশকের বেশি পুরোনো এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ওয়াশিংটন। আর ১৯৯৬ সালে যুক্তরাজ্য থেকে গরুর মাংস আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। কারণ ওই একই, ম্যাড কাউয়ের সংক্রমণ।
নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করায় গত বছর থেকে মার্কিন বাজারে ব্রিটিশ গরুর মাংসের প্রবেশাধিকার মেলে।



Leave Your Comments


যুক্তরাজ্য এর আরও খবর