প্রকাশিত :  ১০:১০, ২৪ অক্টোবর ২০২১

৪২ কোটি টাকা শাস্তির কবলে বিএসআরএম

৪২ কোটি টাকা শাস্তির কবলে বিএসআরএম

জনমত ডেস্ক: শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর জন্য মুনাফার কমপক্ষে ৩০ শতাংশ ডিভিডেন্ড দেওয়ার বিধান রয়েছে। মুনাফার ৩০ শতাংশের কম ডিভিডেন্ড দিলে অতিরিক্ত করারোপের শাস্তির কবলে পড়তে হবে।
কিন্তু বিএসআরএম লিমিটেড ৩০ জুন, ২০২১ অর্থবছরে মুনাফার ৩০ শতাংশের কম ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। এরফলে কোম্পানিটিকে জরিমানাস্বরুপ রিটেইন আর্নিংসে হস্তান্তরকৃত মুনাফার উপর ১০ শতাংশ হারে কর পরিশোধ করতে হবে।
শনিবার (২৩ অক্টোবর) বিএসআরএম লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ ২০২০-২১ অর্থবছরের ব্যবসায় শেয়ারহোল্ডারদের জন্য অন্তর্বর্তীকালীন ১০ শতাংশ ডিভিডেন্ডসহ মোট ৫০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। যা সমাপ্ত অর্থবছরের শেয়ারপ্রতি ১৮ টাকা ৯৬ পয়সা মুনাফার ২৬.৩৭ শতাংশ। এতে দেখা যায়, কোম্পানিটি ৭০ শতাংশের বেশি মুনাফা রিটেইন আর্নিংস হিসাবে রেখে দেবে।
২০১৯-২০ অর্থবছরের আয়কর পরিপত্র অনুযায়ি, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোকে মুনাফার কমপক্ষে ৩০ শতাংশ ডিভিডেন্ড আকারে শেয়ারহোল্ডারদেরকে দিতে হবে। যদি ৩০ শতাংশের কম দেওয়া হয়, তাহলে রিটেইন আর্নিংসে স্থানান্তর করা পুরো অংশ বা কোম্পানিতে রেখে দেওয়া মুনাফার উপর ১০ শতাংশ হারে কর আরোপ করা হবে।
বিএসআরএম লিমিটেডের ২০২০-২১ অর্থবছরে সমন্বিতভাবে শেয়ারপ্রতি ১৮ টাকা ৯৬ পয়সা হিসাবে মোট ৫৬৬ কোটি ১২ লাখ টাকার নিট মুনাফা হয়েছে। এর বিপরীতে কোম্পানিটির পর্ষদ ওই অর্থবছরের জন্য ৫০ শতাংশ হিসেবে ১৪৯ কোটি ২৯ লাখ টাকার ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। যা মুনাফার ২৬.৩৭ শতাংশ। বাকি ৪১৬ কোটি ৮৩ লাখ টাকা বা ৭৩.৬৩ শতাংশ রিটেইন আর্নিংসে রাখা হবে।
মুনাফার ৭০ শতাংশের বেশি রেখে দেওয়ার ফলে ৪১৬ কোটি ৮৩ লাখ টাকার উপর ১০ শতাংশ হারে অতিরিক্ত ৪১ কোটি ৬৮ লাখ টাকা কর দিতে হবে বিএসআরএম লিমিটেডকে।




Leave Your Comments


অর্থনীতি এর আরও খবর