প্রকাশিত :  ০৮:২৭, ২৮ নভেম্বর ২০২১

বড়লেখায় ব্যালট কেড়ে নিয়ে নৌকায় সিল

 বড়লেখায় ব্যালট কেড়ে নিয়ে নৌকায় সিল

জনমত ডেস্ক : মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে নৌকার প্রার্থীর এজেন্টদের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ভোটাদের কাছ থেকে ব্যালট কেড়ে নিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
রোববার বেলা ১১টায় ওই কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা কয়েকজন ভোটার সাংবাদিকদের কাছে এই অভিযোগ করেছেন। এছাড়া স্বতন্ত্র ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীদের এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগও পাওয়া গেছে।
বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা শ্রীবাস রঞ্জন দাসের কাছে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাননি প্রার্থীর এজেন্টরা। প্রিজাইডিং কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ ওঠেছে।
ভোট দিতে আসা মনারা বেগম নামে এক নারী ভোটার বলেন, নৌকার এজেন্টরা আমার কাছ থেকে ব্যালট কেড়ে নিয়ে নৌকা প্রতিকে সিল মেরেছেন। আমি আমার পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারিনি। এসময় হালিমা বেগম ও আমিনা বেগম নামে আরেক ভোটার এরকম অভিযোগ করেন।
বেলা ১২টায় ওই কেন্দ্রে খায়রুন নেছা ও রেহানা বেগম নামের দুই নারী ভোটার অভিযোগ করে বলেন, তাদের কাছ থেকে ব্যালেট নিয়ে নৌকায় সিল মারার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে তাদের প্রতিবাদের কারণে তারা ব্যালট ফিরিয়ে দিয়েছে। তারা জানান, ওই কেন্দ্রে নারীদের কাছ থেকে ব্যালট নিয়ে নৌকায় সিল মারা হচ্ছে। কেউ ভয়ে কিচ্ছু বলছে না।
স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীর আব্দুল কুদ্দুস স্বপনের (আনারস) প্রধান এজেন্ট আব্দুল বাছিত শামীম বলেন, কেন্দ্রের ভেতরে কয়েকজন ভোটারের কাছ থেকে ব্যালট নিয়ে নৌকায় সিল মারা হচ্ছে। অভিযোগ করেও কোনো সমাধান পাইনি।
স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (ঘোড়া) শাহাব উদ্দিন অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেন, আমার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। জোরে নারী ভোটারদের কাছ থেকে ব্যালট কেড়ে নৌকায় সিল মারা হচ্ছে। আমি কারো কাছে কোনো সহায়তা পাচ্ছি না।
এসময় তাকে অসহায়ের মতো দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।
এদিকে বেলা ১টা ৪০ মিনিটে এই প্রতিবেদন লেখার সময় ওই কেন্দ্রে দরজা বন্ধ করে আবারও নৌকা প্রতীকে ব্যালট মারার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
মোহাম্মদনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং কর্মকর্তা শ্রীবাস রঞ্জন দাস বলেন, এখানে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট চলছে। এখনও কোনো সমস্যা হয়নি। নৌকার এজেন্টরা জোরপূর্বক ভোটারদের কাছ থেকে ব্যালট নিয়ে সিল মারার বিষয়ে তিনি বলেন, এটা সত্য নয়।
প্রসঙ্গত, তৃতীয় ধাপে ইউপি নির্বাচনে মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার ১০ ইউপিতে ভোটগ্রহণ চলছে। রোববার (২৮ নভেম্বর) সকাল ৮টা থেকে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে ৯২টি কেন্দ্রে শুরু হয় ভোটগ্রহণ; চলবে একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এর মধ্যে বড়লেখা সদর ইউপিতে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হচ্ছে। বাকি নয় ইউপিতে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হচ্ছে। নির্বাচনে উপজেলার ১০ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯০ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৩৬১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। উপজেলার ১০ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬৭৭৮৬। তন্মধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ৮৩৯৮৭ ও নারী ভোটার সংখ্যা ৮৩৭৯৯।





Leave Your Comments


সিলেটের খবর এর আরও খবর