প্রকাশিত :  ১১:৪৫, ১৯ জানুয়ারী ২০২২

বিদেশি ব্যাংকের কার্ড ক্লোন করে ঢাকায় টাকা তোলার চেষ্টা

বিদেশি ব্যাংকের কার্ড ক্লোন করে ঢাকায় টাকা তোলার চেষ্টা

জনমত ডেস্ক: বিদেশি বিভিন্ন ব্যাংকের এটিএম কার্ড ক্লোন করে বাংলাদেশের ইস্টার্ন ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে টাকা তুলে নেওয়ার চেষ্টা করতে গিয়ে ধরা পড়েছেন আন্তর্জাতিক এটিএম কার্ড ক্লোনিং স্কেমিং চক্রের এক সদস্য। হাকান জানবারকান নামের ৫৫ বছর বয়সী ওই তুর্কি নাগরিককে মঙ্গলবার গুলশান-১ থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট। হাকানের সঙ্গে তার এক বাংলাদেশি সহযোগী মো. মফিউল ইসলামকেও গ্রেপ্তার করা হয়।
এ সময় তাদের কাছ থেকে পাঁচটি বিভিন্ন মডেলের ফোন, একটি ল্যাপটপ, ১৫টি ক্লোন কার্ডসহ মোট ১৭টি কার্ড জব্দ করা হয়। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে রাজধানীর পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।
তিনি বলেন, গত ৩১ ডিসেম্বর হাকান জানবারকান ঢাকা আসেন। ঢাকায় আসার পর তুরস্কের এই নাগরিক ২ থেকে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ইস্টার্ন ব্যাংকের বিভিন্ন বুথে গিয়ে অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, নিউজিল্যান্ড, ইউএসএ, ভারত, তুরস্ক, সৌদি আরব, অস্ট্রিয়া, জার্মানি, ভিয়েতনাম, যুক্তরাজ্য, কানাডা, বলিভিয়া, স্পেন, ফিনল্যান্ড, নরওয়েসহ প্রায় ৪০টি দেশের নাগরিকদের ক্লোন করা ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে কমপক্ষে একশবার টাকা উত্তোলনের চেষ্টা করেছেন। কার্ডগুলো তিনি বিদেশ থেকেই ক্লোন করে নিয়ে আসেন বলে আমরা ধারণা করছি। এই চক্রের সঙ্গে তুরস্ক, বুলগেরিয়া, মেক্সিকো, ভারতসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক জড়িত বলেও প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছেন হাকান জানবারকান।
ইস্টার্ন ব্যাংক অ্যান্টি ফেমিং টেকনোলজি ব্যবহার করায় অ্যালার্ম সিস্টেমের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারে। ফলে তারা হ্যাকারদের হাত থেকে স্কেমিং রোধ করতে সক্ষম হয়। এই নাগরিক একাধিক পাসপোর্ট ব্যবহার করে বাংলাদেশে এসেছেন বলে জানান সিটিটিসির প্রধান।
তিনি বলেন, এর আগে ২০১৬, ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালেও বাংলাদেশে আসেন হাকান জানবুরকান। তখনও তার উদ্দেশ্য ছিল বুথ থেকে টাকা তুলে নেওয়া। ওই সময় বাংলাদেশে এসে তার সহযোগী গ্রেপ্তার মফিউল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এই মফিউল ইসলামের ভাই একই অপরাধে গ্রেপ্তার হয়ে ভারতে জেলে রয়েছেন।




Leave Your Comments


বাংলাদেশ এর আরও খবর