প্রকাশিত :  ১৮:২৫, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

ব্রিটেনের নর্থাম্পটনে স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ প্রসঙ্গে

ব্রিটেনের নর্থাম্পটনে স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ প্রসঙ্গে

এহসানুল ইসলাম চৌধুরী শামীম

‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’ একুশের গানে গানে ভাষাবন্দনা আর শহীদদের প্তি অকৃত্রিম ভালোবাসার ছোঁয়ায় এগিয়ে চলেছে বাংলা ভাষা। কাল থেকে কালে উজ্জীবিত করে তোলে গোটা দেশ।

ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের সীমানা পেরিয়ে এ ভাষা পৌঁছে গেছে বিশ্ববাসীর অন্তর কোঠরে। গানের সুরে সুরে পৌছে গেছে ভাষা। কিন্তু এর ব্যতিক্রম ঘটেছে ব্রিটেনে। সেখানকার ওলডহাম, লন্ডন, বার্মিংহাম, লুটন ও ইবসুইচ ছাড়া স্থায়ীভাবে আর কোন শহীদ মিনার নেই। যার কারণে বাঙালিয়ানার জাতিসত্ত্বা থেকে যোজন যোজন দূরে সরে যাচ্ছে ব্রিটেনে বসবাসরত তরুণ প্রজন্ম।

বিজয় দিবস,স্বাধীনতা দিবস, ভাষা দিবস স্থায়ী ও অস্থায়ী শহীদ মিনারে পালিত হলেও নর্থাম্পটনে প্রায় ১০হাজার বাঙালি থাকলেও সেখানে কোন স্থায়ী শহীদ মিনার না থাকায় তাদের মধ্যে আক্ষেপেরও কোন শেষ নেই। তাদের দাবি, নর্থাম্পটন বাংলাদেশী এসোসিয়েশন (এনবিএ)নামে বাঙালিদের স্থায়ী কমিউনিটি সেন্টার রয়েছে সেখানে যদি স্থায়ীভাবে শহীদ মিনার নির্মাণ করা যায় তাহলে ব্রিটেনের নর্থাম্পটনে বসবাসরত তরুণ প্রজন্ম বাংলাদেশ সম্পর্কে আরো কিছু জানতে পারবে।
অনেকেই মনে করেন বাংলা ভাষার ইতিহাসের সংগে নতুন ব্রিটিশ বাংলাদশী প্রজন্মের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে নর্থাম্পটনে একটি স্হায়ী শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে।
তরুন কাউন্সিলর এনামুল হক এনাম বললেন,আমি চাই আমাদের শহরে নর্থাম্পটনে একটি স্হায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করা খুব প্রয়োজন।আমার যা যা সহযোগীতা লাগে তা আমি করবো।
বেশ কয়েক বছর এনবিএ,তে কাজ করেছেন আমির আলী।তিনি দুঃখ করে বললেন,আমি খুব আশা করেছিলাম আমাদের প্রিয় শহরে একটি স্হায়ী শহীদ মিনার হবে। কিন্ত উদ্যোগ প্রায় দুই বছর আগে নেওয়া হয়েছিলো শহীদ মিনার হবে। আমি প্রথম ৫০০ পাউন্ড জমা দিয়েছিলাম শহীদ মিনারের জন্য। কিন্ত আর আলোর মুখ দেখলো না। কবে হবে জানি না। তবে এখনো আশায় আছি স্হায়ী শহীদ মিনার হবে।যদি হয় তাহলে আমার সহযোগীতা সব সময় থাকবে।
সাবেক কাউন্সিলর প্রিন্স সাদিক চৌধুরী বললেন, খুব প্রয়োজন আমাদের প্রিয় শহর নর্থাম্পটনে স্হায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করা।যদি শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয় তাহলে নতুন প্রজন্ম বাংলাদেশের ইতিহাস সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবে। আমি চাই শহীদ মিনার হউক।আমার সহযোগীতা থাকবে সব সময়।
নর্থাম্পটন বাংলাদেশী এসোসিয়েশন (এনবিএ)সেক্রেটারী ফয়জুর রহমান বলেন, আমরা ও চাই একটি স্হায়ী শহীদ মিনার নির্মাণের।সকলের সহযোগীতা পেলে আমরা করতে পারবো,ইনশাআল্লাহ।



Leave Your Comments


মতামত এর আরও খবর