img

বিপিএল: রান সংগ্রহে এগিয়ে বাংলাদেশিরাই

প্রকাশিত :  ১০:০৪, ২১ জানুয়ারী ২০২৩

বিপিএল: রান সংগ্রহে এগিয়ে বাংলাদেশিরাই

স্পোর্টস ডেস্ক: বিপিএলে ঢাকার পর চট্টগ্রাম পর্বেও রানের ফোয়ারা ছুটেছে। ২২ গজে দাপট দেখাচ্ছে দেশি ক্রিকেটাররাই। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় বাংলাদেশিরাই এগিয়ে। উইকেট শিকারেও পিছিয়ে নেই দেশীয়রা। চট্টগ্রাম পর্ব শেষে পয়েন্ট টেবিলে এখনো মাশরাফির সিলেটই সবার উপরে। 

গোলমেলে সূচি, নেই আধুনিক প্রযুক্তি ডিআরএস। খুব বেশি বিদেশি তারকাও নেই। এতোসব বিতর্ক পাশে ঠেলে চার-ছক্কার খেলায় দর্শকদের মুগ্ধ করছে বিপিএলের নবম আসর।

মিরপুরের পর চট্টগ্রামেও রানের বন্যা। গত আসরে যেখানে গড় রান ছিল দুই ইনিংস মিলিয়ে ১৪২-এর কম। সেখানে এ আসরে প্রথমে ব্যাট করা দলের গড় রান ১৬০ এরও বেশি। পরে ব্যাট করা দলের গড়ও দেড়শ’র কাছাকাছি।

৬ ম্যাচে তিন হাফ সেঞ্চুরিতে ২৭৫ রানের মালিক সাকিব আল হাসান। যা এপর্যন্ত ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোর। সাকিবের চেয়ে মাত্র ৬ রান কম নিয়ে তালিকার দ্বিতীয়তে নাসির হোসেন। 

ছয় ম্যাচে সবচে বেশি ১৮টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন ফরচুন বরিশালের পাকিস্তানি রিক্রুট ইফতিখার আহম্মেদ। সাকিবের ব্যাট থেকে এসেছে ১৫টি। পাঁচ ম্যাচে হাত ঘুরিয়ে ১১ উইকেট শিকারে সবার উপরে পাকিস্তানের ওয়াহাব রিয়াজ। দুই উইকেট কম নিয়ে তালিকার দ্বিতীয়তে সিলেট অধিনায়ক মাশরাফি।

৬ ম্যাচে ৫ জয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে সবার উপরে সিলেট স্ট্রাইকার্স। সমান ম্যাচে সমান পয়েন্ট হলেও নেট রান রেটে পিছিয়ে থাকায় দ্বিতীয় সাকিবের ফরচুন বরিশাল। তিন জয়ে ৬ পয়েন্টে তৃতীয় কুমিল্লা। চারে আছে তামিমের খুলনা। পঞ্চম, ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থানে যথাক্রমে রংপর, চট্টগ্রাম ও ঢাকা।

আগামী ২৩ ও ২৪ জানুয়ারি মিরপুরে চারটি ম্যাচের পর ২৭ জানুয়ারি সিলেট যাবে বিপিএল। চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। 

img

মেসির জোড়া গোলে টানা দ্বিতীয় জয় মিয়ামির

প্রকাশিত :  ০৬:০০, ২১ এপ্রিল ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ০৬:০২, ২১ এপ্রিল ২০২৪

ইনজুুরির কারণে লিওনেল মেসি মাঠে না থাকায় হেরেই চলেছিল ইন্টার মিয়ামি। অবশেষে চোট কাটিয়ে দলে ফিরেই মিয়ামিকে জয়ে ফিরিয়ে দিলেন মেসি। আর্জেন্টাইন বিশ্বকাপজয়ী জাদুকরী ফুটবল দক্ষতায় টানা দ্বিতীয় জয় পেল মিয়ামি।

যুক্তরাষ্ট্রের মেজর সকার (এমএলএস) লিগের চলতি মৌসুমের নিয়মিত সেশনে ন্যাসভিলে এসসিকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে মিয়ামি। এদিন জোড়া গোল করেন মেসি।

শনিবার ভোররাতে ঘরের মাঠ চেজ স্টেডিয়ামে মাত্র ২ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে পিছিয়ে পড়ে মিয়ামি। মিডফিল্ডার ফ্রাংকো নিগ্রির ভুলে গোল হজম করে ফ্লোরিডার ক্লাবটি।

এরপর ম্যাচের ১১ মিনিটে গোল করে মিয়ামিকে সমতায় ফেরান মেসি। দ্বিতীয়বারের চেষ্টায় গোলটি করেনমেসি। তার প্রথম শট রুখে দিয়েছিলেন ন্যাসভিলের গোলরক্ষক ইলিয়ট পানিকো। তবে দ্বিতীয় শটে ঠিকই জাল কাঁপিয়েছেন মেসি।

দ্বিতীয়ার্ধে নিজের দ্বিতীয় (দলের তৃতীয়) গোলের দেখা পান আর্জেন্টাইন তারকা। ৮১ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করেন মেসি। প্রথমার্ধের শেষ দিকে (৩৯ মিনিটে) মিয়ামির দ্বিতীয় গোলটি করেন সার্জিও বস্কুয়েটস।

চলতি মৌসুমে মিয়ামির হয়ে দারুণ খেলছেন মেসি। সব ধরনের প্রতিযোগিতায় ৯ ম্যাচে এরইমধ্যে মেসির ঝুলিতে জমা হয়েছে ৯ গোল ও ৮ অ্যাসিস্ট।

মিয়ামির পরের ম্যাচ আগামী শনিবার। নিউ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলতে যাবে মেসির দল।