img

ওগ্রে ব্যাটালিয়ান: মিয়ানমারে নিষ্ঠুরতায় কুখ্যাত এক নাম

প্রকাশিত :  ০৯:০১, ২৩ মে ২০২৩

ওগ্রে ব্যাটালিয়ান: মিয়ানমারে নিষ্ঠুরতায় কুখ্যাত এক নাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মিয়ানমারে বর্বরতা ও নিষ্ঠুরতার কুখ্যাত এক নাম- ওগ্রে ব্যাটালিয়ান। দেশটির সামরিক বাহিনীর ৯৯তম লাইট ইনফ্যান্ট্রি ব্যাটালিয়েনের অংশ। ৭০ জনের দলটির কাজই হলো জান্তাবিরোধীদের নির্যাতনের পর শিরচ্ছেদ। এরপর দেহ আলাদা করে ঝুলিয়ে রাখে জনসমাবেশস্থলে। বিশ্লেষকরা জানান, গণতন্ত্রপন্থিদের দমনে ভীতি সৃষ্টিতেই এ কৌশল। ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা নির্মূলেও নামানো হয়েছিল ওগ্রে বাহিনীকে।

সাগাংইয়ের তাইং গ্রাম, এ বছরের মার্চে গ্রামটিতে ঢুকে সেনাবাহিনীর ৯৯তম লাইট ইনফ্যান্ট্রি ব্যাটালিয়েনের একটি গ্রুপ। আগুনে পুড়ে একের পর এক বাড়ি।  

নৃশংসতার প্রকৃত চিত্র স্পষ্ট হয় নির্যাতনের পর ফেলে রাখা মৃতদেহগুলোতে। এরমধ্যে জান্তাবিরোধী নেতা কিয়াও জাও-কে শিরচ্ছেদ করে দেহ ৫ টুকরো করে ফেলে রাখা হয় উন্মুক্তস্থানে। 

প্রায় ২৪ ঘণ্টার ওই অভিযানে ৮০ পরিবারের ছোট্ট ওই গ্রামে নারী-শিশুসহ ১৭ জনকে হত্যা করে ৭০ জনের গ্রুপটি, যার নাম ওগ্রে ব্যাটালিয়ন। 

সংবাদ মাধ্যমের তথ্য বলছে, মাত্র এক সপ্তাহে সাগাংইয়ে ১০ গ্রামে অভিযান চালিয়ে হত্যা করে ২৩ জনকে। এরমধ্যে ৭ জনকে শিরচ্ছেদ করে দেহ টুকরো টুকরো করে ফেলে রাখে। ইউটিউবে পোস্ট করা ভিডিওতে নিজেরাই তার স্বীকারোক্তি দেয়।    

মিথোলজি অনুযায়ী- ওগ্রে অর্থ মানুষ খেকো দৈত্য। ১৯৬২ সাল থেকে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ৯৯তম লাইট ইনফ্যান্ট্রি ব্যাটালিয়েনের অংশ- ওগ্রে বাহিনী। সরাসরি সংঘাতে না জড়িয়ে গ্রুপটি গোপনে অভিযান চালায়। বিরোধীদের চিরতরে শেষ করে দেয়াই তাদের লক্ষ্য।

যেসব গ্রাম জান্তা সরকারকে মেনে নিচ্ছে না, তারাই ওগ্রো বাহিনীর টার্গেট। একমত না হলেই ছারখার করে দেয়া হয় পুরো গ্রাম। 

আগামীতে যাতে কেউ জান্তাবিরোধী অবস্থান না নেয়, সেজন্য শিরচ্ছেদ করে মাথাকে ট্রপি হিসেবে দেখিয়ে মানুষের মনে ভয় ঢুকিয়ে দিচ্ছে তারা।

জাতিসংঘের তথ্য বলছে, অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় আসার পর গেল দুই বছরে ওগ্রে-বাহিনী কেবলমাত্র সাগাইংয়ে ১ হাজারের বেশি মানুষকে হত্যা ও ৪ হাজারেরও বেশি বাড়ি পুড়িয়েছে।   

২০১৭ সালে রাখাইন থেকে রোহিঙ্গাদের চিরতরে নির্মূলেও বড় ভূমিকা রাখে এই ওগ্রে-ব্যাটালিয়ান।

দাও আয়ে, দুই সন্তান হারানো এক মা বলেন, আমার সামনেই হাত বেঁধে ওদেরকে বুট দিয়ে লাথি মারতে মারতে নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পরই দুটি গুলির শব্দ শুনি।

ওগ্রে-ব্যাটালিয়ানের এক সদস্য জানান, ২৬ জনকে খুন করেছি আমি। যাদেরকেই ধরেছি, তাদেরই খুন করেছি, বডি ৩ টুকরো করে। মানুষের মাংস হলুদ রংয়ে, তাই শূকর বলে চালাতে পারিনি।

আন্তর্জাতিক এর আরও খবর

img

ভারি বৃষ্টিতে ডুবে গেছে সৌদির রাস্তাঘাট

প্রকাশিত :  ০৫:৫০, ২২ এপ্রিল ২০২৪

সংযুক্ত আরব আমিরাতে বৃষ্টির পর এবার ভারি বৃষ্টিপাতের কবলে সৌদি আরব। ভারি বৃষ্টিতে  মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির রাজধানী রিয়াদের কিছু অঞ্চলসহ দেশটির অনেক এলাকা তলিয়ে গেছে।

আগামী কয়েকদিন এ বর্ষণ অব্যাহত থাকতে পারে বলে সতর্কতা জারি করেছে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ। সতর্কতার অংশ হিসেবে বিভিন্ন জায়গায় স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

সৌদি আরবের আবহাওয়া দফতর বলছে, শনিবার থেকে রাজধানী রিয়াদসহ বিভিন্ন অঞ্চলে ভারি বৃষ্টিপাত অব্যাহত আছে। এতে তলিয়ে গেছে অনেক এলাকা। বৃষ্টিতে ভেসে গেছে বেশ কয়েকটি গাড়ি।

ভারি বৃষ্টির প্রভাব পড়েছে রাজধানী রিয়াদ, দিরিয়াহ, হুরায়মালা, ধুর্মা থেকে কুয়াইয়াহ পর্যন্ত।

আবহাওয়ার চলমান এ পরিস্থিতি আগামীকাল মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। এই সময় দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে মাঝারি থেকে ভার ও শিলাবৃষ্টি হবে বলে সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর।

সতর্কতার অংশ হিসেবে সৌদি আরবের বিভিন্ন জায়গায় স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। বৃষ্টির সময় উপত্যকা এবং জলাবদ্ধ এলাকা থেকে নাগরিকদের দূরে থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে।

গেল কয়েক বছর ধরেই প্রতিকূল আবহাওয়ার মুখোমুখি হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো। সবশেষ গেল সপ্তাহে ভয়াবহ বন্যার মুখোমুখি হয় সংযুক্ত আরব আমিরাত। সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি দেখা যায় দুবাই ও শারজাহতে।