img

জেলখানায় বন্দির সঙ্গে প্রহরীর শারীরিক সম্পর্ক, ১৮ জন নারী স্টাফ বরখাস্ত

প্রকাশিত :  ০৭:০৮, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩

জেলখানায় বন্দির সঙ্গে প্রহরীর শারীরিক সম্পর্ক, ১৮ জন নারী স্টাফ বরখাস্ত

বৃটেনে পুরুষদের সবচেয়ে বড় জেলএইচএমপি বারউইন। ওয়েলসের উত্তরে রেক্সহ্যামে একটি শিল্প বিষয়ক এস্টেটের ওপর অবস্থিত। কিন্তু এই জেলে ঘটে চলেছে সব রগরগে কাহিনী। যৌনতা একে আষ্টেপৃষ্ঠে জেঁকে ধরেছে। কয়েদিদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক গড়ে তোলার কারণে ১৮ জন নারী স্টাফকে সেখানকার চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

এখন স্টাফ সংকটে ভুগছে তারা। এ খবর দিয়ে অনলাইন ডেইলি মেইল বলছে, ওই ১৮ জন নারী স্টাফকে বরখাস্ত করা হয়েছে অথবা পদত্যাগ করেছেন তারা। এর কারণ, তারা দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কয়েদিদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন অথবা প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন।

নতুন একটি ইন্ডিপেন্ডেন্ট মনিটরিং বোর্ডের রিপোর্টে ওই কারাগারে স্টাফদের অসংযত আচরণকে বড় অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির ফ্যাক্টর হিসেবে তুলে ধরা হয়েছে। এই জেলে আছেন কমপক্ষে ২১০০ মধ্যম ঝুঁকিপূর্ণ ‘বি’ এবং ‘সি’ ক্যাটেগরির বন্দি।

২০১৭ সালের পর বন্দিদের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের ১৮টি ঘটনা সামনে এসেছে।

এর মধ্যে তিনজন নারী প্রহরী আছেন। তারা হলেন জেনিফার গাভান (২৭), আয়শিয়া গান (২৭) এবং এমিলি ওয়াটসন (২৬)। বন্দিদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলার কারণে তাদের সবাইকে গত বছর জেল দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে এমিলি ওয়াটসন সেলের ভিতর তার জেলবন্দি প্রেমিকের সঙ্গে তিনবার সাক্ষাৎ করেছিলেন। এর মধ্যে প্রথম সাক্ষাতেই তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়। অন্য দু’বারও তারা শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হন।

ওদিকে আয়শিয়া গান তার প্রেমিক খুররম রাজাকের সঙ্গে কমপক্ষে ১২০০ বার ফোনকলে কথা বলেছেন। এর মধ্যে কয়েকটি কল ছিল রগরগে ভিডিও কল। তিনি প্রেমিক রাজাকের জন্য আন্ডারওয়্যার নিয়ে যেতেন নিজের অন্তর্বাসের ভিতরে। জনশৃংখলা ভঙ্গের কারণে ২০১৯ সালে ওয়াটসন এবং আয়শিয়া গানকে এক বছরের জেল দেয়া হয়।

২০২০ সালের এপ্রিলে জেনিফার গাভান কয়েদি অ্যালেক্স কোক্সনের সঙ্গে প্রেম শুরু করেন। এক পর্যায়ে তিনি কোক্সনকে একটি ফোন দেন। তাতে ছিল নিজের যৌনতা বিষয়ক খুল্লামখুল্লা ভিডিও। গত বছর ডিসেম্বরে অভিযোগ স্বীকার করেন গাভান। ফলে তাকে আট মাসের জেল দেয়া হয়।

যুক্তরাজ্য এর আরও খবর

ইংলিশ চ্যানেলে নৌকা ডুবে শিশুসহ নিহত ৫ | JANOMOT | জনমত

img

নিজ আসন হারানোর শঙ্কায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত :  ০৬:৩৮, ২০ জুন ২০২৪

এবছরের নির্বাচনে পরাজিত হয়ে পার্লামেন্টে নিজ আসন হারাতে পারেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। সাভান্তা জনমত জরিপের পর এমন পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে। জরিপের ফল প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফ। 

গত ৭ জুন থেকে ১৮ জুনের মধ্যে প্রায় ১৮ হাজার মানুষের ওপর এই জরিপ পরিচালনা করা হয়।

জরিপের ফলে দেখা গেছে, নির্বাচনে সুনাকের কনজারভেটিভ দল ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ৬৫০ সদস্যের নিম্নকক্ষ হাউজ অব কমন্সে মাত্র ৫৩টি আসন পাওয়ার পথে রয়েছে। যেখানে বিরোধীদল লেবার পার্টি পেতে পারে ৫১৬টি আসন।

সাভান্তা পরিচালিত জনমত জরিপে বলা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক ইংল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলে তার নর্থ ইয়র্কশায়ার রিচমন্ড আসনে লেবার দলের কাছে পরাজিত হতে পারেন। এমন হলে সুনাকই হবেন প্রথম ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী যিনি নিজ আসন হারাবেন।

সাম্প্রতিক বেশিরভাগ জনমত জরিপেই জাতীয় নির্বাচনে কির স্টারমারের লেবার পার্টিকে ভোটে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির তুলনায় প্রায় ২০ শতাংশ পয়েন্ট এগিয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে।

নতুন আরও কয়েকটি জরিপের ফল বলছে, এক শতাব্দীরও বেশি সময়ের মধ্যে এবারের নির্বাচনে কনজারভেটিভরা সবচেয়ে শোচনীয় হারের মুখে রয়েছে। জেরেমি হান্টের মতো বিশিষ্ট নেতারাও এবার তাদের পার্লামেন্টারি আসন খোয়াতে পারেন।

সুনাক যুক্তরাজ্যে আগাম নির্বাচন ঘোষণা করেছেন আগামী ৪ জুলাই। এ নির্বাচনে এমনকী ওয়েলসে কনজারভেটিভ পার্টির নাম-নিশানা পুরোপুরি মুছে যেতে পারে বলেও পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে কয়েকটি জরিপে।

সূত্র: রয়টার্স

যুক্তরাজ্য এর আরও খবর