img

ব্রণ থেকে মুক্তির উপায়

প্রকাশিত :  ০৭:৪৭, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট: ০৭:৫২, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ব্রণ থেকে মুক্তির উপায়

তরুণ বয়সে কমবেশি সবারই মুখে ব্রণ ওঠে। গালে ছোট ছোট এই গোটার কারণে নিজের হাত অজান্তেই চলে যায় সেখানে। অনেকে নখ দিয়ে ব্রণ টিপে থাকেন, যা সবার সামনে একটু আনস্মার্ট দেখায়। অযথা নখ দিয়ে ব্রণ ধরার ফলে গালে কালো দাগ পড়ে যায়। অথচ একটু সচেতন হলে মুখের ব্রণ থেকে রেহাই পাওয়া যায়। চর্ম বিশেষজ্ঞ ও রূপ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলে আপনাদের ব্রণের সমস্যা থেকে রেহাই দিতে কিছু টিপস দেওয়া হলো—

    তারুণ্যের সময়টায় প্রচুর পরিমাণে বিশুদ্ধ পানি পান করা উচিত। প্রয়োজনে বাইরে বের হওয়ার সময় বাসা থেকে পানির বোতল সঙ্গে নেওয়া ভালো।

    বাসায় বা কলেজে যেখানেই থাকুন না কেন, সঙ্গে একটি ফেসওয়াস ক্রিম রাখবেন। সময় পেলেই মুখ ধুয়ে নেবেন। এতে মুখে ময়লা কম জমবে।


    এই সময়টায় ফাস্টফুড-জাতীয় খাবার কম খাওয়াই ভালো। সেইসঙ্গে তেলে ভাজা খাবার কম খেতে হবে।

    সবসময় নিজের কাছে ওয়েট টিস্যু পেপার রাখবেন। কখনো ঘেমে গেলে মুখ পরিষ্কার করতে সুবিধা হবে।

    গালে দু-একটা ব্রণ হলে চিন্তার কোনো কারণ নেই। তবে কখনই নখ দিয়ে ব্রণ খুঁটা যাবে না।

    কখনো যদি মুখে অতিরিক্ত মাত্রায় ব্রণ হয়, তবে অবশ্যই চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে হবে।


img

ঈদের পর ফিট থাকতে করণীয়

প্রকাশিত :  ১১:২৩, ২০ জুন ২০২৪

উৎসব মানেই যেন পেট পুরে খাওয়া। ফিটনেস বা সুঠাম দেহ বলে যে একটা বিষয় আছে, তা আমরা ভুলে যাই। ভুললেই কিন্তু বিপত্তি! শরীর যেন বিগড়ে না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখা জরুরি। ঈদের পর ফিটনেস সচেতনদের ভাবতে হয় অনেক কিছুই। জেনে নিন বিরতির পর কীভাবে শুরু করবেন ব্যায়াম।  

শরীরচর্চায় ছন্দপতন হলে, একটু একটু করে আবার ব্যায়াম শুরু করুন। কারণ হুট করে আগের মতো ছন্দে ফেরাটা কঠিন। ব্যায়ামের শুরুতেই অল্প দূরত্বে দৌড়ে নিলে শরীর উষ্ণ হবে। এক্ষেত্রে অবশ্য সাইক্লিং, দড়ি লাফানো খুব ভালো ব্যায়াম। দ্রুত ওজন কমাতে বেঞ্চ বেলি, পুশআপ দিতে পারেন। প্রথম দিকে অল্পতে কষ্ট হলেও নিয়মিত করলে আগের অবস্থানে ফিরে যেতে বেশি সময়ের প্রয়োজন হবে না।

অনেক দিন বিরতির পর টানা ব্যায়াম করবেন না। দরকার হলে মিনিট দশ করার পর বিশ্রাম নিন। দিনের শুরুতে ব্যায়াম করার চেষ্টা করবনে। মানে, ঘুম থেকে উঠে নাশতা খাওয়ার আগে শরীরচর্চা করার চেষ্টা করলে বেশি উপকার পাবেন। 

গরমে কারণে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করবেন। দিনে ভারী খাবারের পাশাপাশি ফলজাতীয় খাবারের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন। মাংস, পোলাও, খিচুড়ি, বিরিয়ানি, কাবাব আর বোরহানি-কোমল পানীয় না খেয়ে শাকসবজি খাওয়া বাড়িয়ে দিন। 

হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, স্থূলতা, আর্থ্রাইটিস থেকে রক্ষা পেতে শরীরচর্চার কোনো বিকল্প এখন অবধি আবিষ্কার হয়নি। দীর্ঘ বিরতির পর শরীরচর্চা শুরু করলে মাংসপেশিতে ব্যথা ও ইনজুরি হতে পারে, হৃৎপিণ্ডও হঠাৎ তাল মেলাতে পারবে না। তাই ক্ষেত্রবিশেষে প্রয়োজন মনে করলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।