img

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এশিয়া কাপ শেষ করবে বাংলাদেশ

প্রকাশিত :  ০৭:০১, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এশিয়া কাপ শেষ করবে বাংলাদেশ

এশিয়া কাপ থেকে বাংলাদেশ ছিটকে গেছে অনেক আগেই। দেশে ফেরার আগে নিয়মরক্ষার ম্যাচে আজ শুক্রবার ভারতের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ।

কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে সুপার ফোর পর্বে নিজেদের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে জয় দিয়ে এশিয়া কাপ শেষ করতে চায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টা ৩০ মিনিটে শুরু হবে ম্যাচটি। সুপার ফোর পর্বে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে যথাক্রমে- পাকিস্তানের কাছে ৭ উইকেট এবং শ্রীলংকার কাছে ২১ রানে হেরে ইতোমধ্যে টুর্নামেন্টের ফাইনালের দৌড় থেকে ছিটকে গেছে বাংলাদেশ।

ফাইনাল নিশ্চিত হওয়ায় আজকের ম্যাচটি ভারতের কাছে নিয়মরক্ষার লড়াই। স্বাভাবিকভাবেই এমন ম্যাচে দলের মূল খেলোয়াড়দের বিশ্রামে রেখে বেঞ্চের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে চাইবে ভারত। এখন পর্যন্ত এশিয়া কাপে নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলে শিরোপা জয়ের জন্য অন্যতম হট ফেভারিট ভারত।

অন্যদিকে ফাইনালে উঠতে না পারলেও খালি হাতে দেশে ফিরতে চাইবে না বাংলাদেশ। বেঞ্চের খেলোয়াড়দের নিয়ে ভারত পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরিকল্পনা করায় জয়ের একটা সুযোগ থাকতে পারে বাংলাদেশের সামনে। ভারতের বিপক্ষে লড়াইয়ে নামার আগে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বলেছেন, এই ম্যাচটায় শুধু জিততে চান। সাকিব বলেন, ‘এই ম্যাচ থেকে অন্য কিছু চাই না। এই ম্যাচটায় শুধু জিততে চাই।’

ভারতের বিপক্ষে খেলায় প্রায়ই বাংলাদেশ খেই হারিয়ে ফেলে। কখনো কখনো জয়ের খুব কাছে গিয়েও হেরে যায় টাইগাররা। আরও একটি ভারত ম্যাচ সামনে। এ ম্যাচে বাংলাদেশের জন্য ভারতের কোনো ক্রিকেটারকে থ্রেট মনে করছেন টাইগার অলরাউন্ডার? বিরাট কোহলি নাকি লোকেশ রাহুল? সাকিব বলেন, ‘নির্দিষ্ট করে কেউ না। ভারত পুরো দলটাই থ্রেট।’ টিম ইন্ডিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশ কোনো ধরনের চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ‘যারা জাতীয় দলে খেলে, তারা সবাই যোগ্য। এখানে অভিজ্ঞতা বা অনভিজ্ঞতা, নতুন-পুরনো এগুলো বিষয় না। টিম হিসেবে খেলতে পারলে জয় আসবে।’

প্রথম দুই ম্যাচ হারের পরও ফাইনালে খেলার ক্ষীণ সম্ভাবনা ছিল বাংলাদেশের। তখন অন্যান্য দলের ফলাফল এবং নেট রান রেট অনুকূলে থাকা প্রয়োজন ছিল তাদের। কিন্তু শ্রীলংকার বিপক্ষে ভারতের ৪১ রানের জয়ে এশিয়া কাপ থেকে বিদায় ঘণ্টা বাজে বাংলাদেশের। শ্রীলংকার বিপক্ষে জয়ে ফাইনাল নিশ্চিত হয় ভারতের। এতে পাকিস্তান-শ্রীলংকার ম্যাচটি অঘোষিত সেমিফাইনালে রূপ নেয়।

দুই দলের মধ্যকার সর্বশেষ দ্বিপক্ষীয় সিরিজে ঘরের মাঠে ভারতকে তিন ম্যাচের ওয়ানডেতে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে এটা ছিল ভারতের বিপক্ষে টাইগারদের টানা দ্বিতীয় সিরিজ জয়।

হতাশাজনক বিষয় হচ্ছে ২০০৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠিত ওয়ানডে বিশ^কাপে ছাড়া দেশের বাইরে ভারতকে কখনোই হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। এশিয়া কাপের মঞ্চেও ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের রেকর্ড মোটেও ভালো নয়। পরিসংখ্যান বলছে, ভারতের বিপক্ষে ১৪ ম্যাচের দেখায় মাত্র ১টিতে জয় ও ১৩টিতে হেরেছে বাংলাদেশ। ২০১২ সালে ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের একমাত্র জয় রচিত হয়েছিল।

যদিও এশিয়া কাপে বেশ কয়েকবার ভারতকে হারানোর খুব কাছে গিয়েও তরী ডুবেছে বাংলাদেশের। নিজেদের ভুল, ম্যাচ শেষ করতে না পারার ব্যর্থতা ও ভারতের দুর্দান্ত পারফরমেন্সের কারণে জয়ের দেখা পায়নি টাইগাররা।

শ্রীলংকার কাছে হারের পর দেশে ফিরেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। দ্বিতীয়বারের মতো সন্তানসম্ভাবা স্ত্রীর পাশে থাকতে মুশফিক দেশে ফিরলেও, ব্যক্তিগত কারণে দেশে ফিরেন সাকিব। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন সাকিব। কিন্তু স্ত্রী এবং নবজাতক কন্যার পাশে থাকতে ছুটির মেয়াদ বাড়িয়েছেন মুশফিক।

এতে দলের ইনফর্ম ব্যাটার মুশফিককে ছাড়াই মাঠে নামতে হবে বাংলাদেশকে। দলে মুশফিকের গুরুত্ব তুলে ধরে বাংলাদেশের তরুণ ব্যাটার তাওহিদ হৃদয় বলেন, ‘অবশ্যই মুশফিক ভাই না থাকাটা আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে। কারণ তিনি একজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড়। আমরা যারাই মুশফিকের জায়গায় খেলব তার অভাব পূরণের চেষ্টা করব।’

তিনি আরও জানান, জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করার লক্ষ্য বাংলাদেশের। হৃদয় বলেন, ‘আমরা টুর্নামেন্টে টিকে থাকি বা না থাকি, সবসময় আমরা জয়ের জন্যই খেলি। আমরা ফাইনালের দৌড়ে নেই এটা অবশ্যই হতাশাজনক। কিন্তু তারপরও জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করতে চাই আমরা।’

শ্রীলংকার কাছে হারের পর তিন দিন হোটেলে সময় কাটিয়েছে বাংলাদেশ। জিমে ঘাম ঝরিয়ে এবং হোটেলে নিজেদের খুঁটিনাটি সমস্যা নিয়ে বিভিন্ন সেশন কাটিয়েছে খেলোয়াড়রা। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে অনুশীলন শুরু করে তারা। এর মধ্যে কিছু বার্তা দিয়ে চাঙ্গা রাখতে খেলোয়াড়দের সঙ্গে আলাদা-আলাদা সেশন করেছেন প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে।

img

স্ত্রী-সন্তানের সামনেই লংকান ক্রিকেটারকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত :  ১১:১০, ১৭ জুলাই ২০২৪

শ্রীলংকার সাবেক ক্রিকেটার ধাম্মিকা নিরোশানকে স্ত্রী-সন্তানের সামনেই গুলি করে হত্যা করা হলো। মঙ্গলবার রাতে আম্বালাঙ্গোদায় নিজ বাড়িতেই গুলিতে নিহত হন তিনি। 

মর্মান্তিক এ ঘটনা ক্রিকেট বিশ্ব এবং শ্রীলংকা ক্রিকেটকে শোকের মধ্যে নিমজ্জিত করেছে। 

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, একজন অজ্ঞাতনামা হামলাকারী নিরোশানের বাড়িতে প্রবেশ করে এবং তাকে গুলি করে। ওই সময় ধাম্মিকা নিরোশান তার স্ত্রী এবং দুই সন্তানের সঙ্গেই ছিলেন।

সন্দেহভাজন হামলাকারী পলাতক। তবে ঠিক কী কারণে ওই হামলাকারী নিরোশানকে গুলি চালিয়েছিল, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

আম্বালাঙ্গোদা পুলিশ জানিয়েছে, তারা অপরাধীকে ধরার চেষ্টা করছে এবং ঘটনার তদন্ত চলছে। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, অভিযুক্ত ১২ বোরের বন্দুক নিয়ে এসেছিল।

৪১ বছর বয়সি নিরোশান অনূর্ধ্ব-১৯ স্তরে শ্রীলংকার প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। ২০০০ সালে সিঙ্গাপুরের বিরুদ্ধে তার অভিষেক হয়। তিনি অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে দুই বছর টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেট খেলেছেন এবং দলের অধিনায়কত্বও করেছেন। নিরোশান একজন ডানহাতি ফাস্ট বোলার এবং ডানহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন। ২০০২ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে পাঁচ ইনিংসে ১৯.২৮ গড়ে ৭ উইকেট শিকার করেছিলেন নিরোশান।

তিনি ১২টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ১৯টি উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেছেন ২০০ রান। একই সময়ে ৮টি লিস্ট-এ ম্যাচে তিনি ৪৮ রান করেছেন এবং ৫টি উইকেট নিয়েছেন। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস