img

আর্জেন্টিনাকে কাঁদিয়ে শিরোপা ঘরে তুলল ব্রাজিল

প্রকাশিত :  ০৭:১১, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

আর্জেন্টিনাকে কাঁদিয়ে শিরোপা ঘরে তুলল ব্রাজিল

স্পোর্টস ডেস্ক : যে কোনো পর্যায়ের লড়াই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি করে।

 জাতীয় দল থেকে বয়সভিত্তিক, বিচ ফুটবল কিংবা ফুটসাল— দুই দলের লড়াই মানেই বাড়তি কিছু। কনমেবল অনূর্ধ্ব-২০ ফুটসালের নবম আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হয় সেলেসাও-আলবিসেলেস্তেরা।

রোববার (১৭ সেপ্টেম্বর) ভেনিজুয়েলার লা গুয়াইরা শহরের জোসে মারিয়া ভার্গাস ডোমে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল।

এই জয়ে অষ্টমবারের মতো এই মহাদেশীয় টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হলেন ব্রাজিলিয়ানরা। নয় আসরের মধ্যে কেবল একটি আসরেই শিরোপা জিতে আর্জেন্টিনা। বাকি সব শিরোপাই ঘরে তোলেন সেলেসাওরা।

শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে উভয় দলই জোরালো চেষ্টা চালায় শুরু থেকে গোল করে এগিয়ে যেতে। চলে আক্রমণ-পালটা আক্রমণ। সুযোগও পায় দুই দল। কিন্তু তার সদ্ব্যবহার করতে পারেনি কেউ। তবে ম্যাচের ১৪তম মিনিটে ডি বক্সে হ্যান্ডবল করে বসেন আর্জেন্টিনার টমাস এসেবেডোর।

এতে পেনাল্টি পায় ব্রাজিল। পেনাল্টির সুযোগটি ভালোভাবেই কাজে লাগান ব্রাজিলের থিয়াগুইনহো কানারিনহা। গোল করে দলকে এগিয়ে নেন ৪ নম্বর জার্সি পরা এ ফুটসাল তারকা।

এর পর আর গোলের দেখা পায়নি কেউ। ১-০০তে এগিয়ে থাকা ব্রাজিলই শেষ পর্যন্ত শিরোপা উদযাপন করে। এই নিয়ে চারবার এবং টানা দ্বিতীয়বার ফাইনালে ব্রাজিলের কাছে হেরেছে আর্জেন্টিনা।

দিনের অন্যান্য ম্যাচে কলম্বিয়া চিলিকে ৩-২ গোলে হারিয়ে তৃতীয় স্থান নিশ্চিত করে। এবং চতুর্থ স্থান নির্ধারণী ম্যাচে ভেনিজুয়েলাকে ৩-১ গোলে হারিয়ে পঞ্চম স্থান নিশ্চিত করে পেরা।

খুলনাকে হারিয়ে প্রথম জয়ের স্বাদ নিল সিলেট

টি-20 বিশ্বকাপ

img

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দাপুটে জয় ইংল্যান্ডের

প্রকাশিত :  ০৯:০১, ২০ জুন ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার এইটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৪ উইকেটে ১৮০ রানের জবাবে ১৫ বল হাতে রেখে ২ উইকেটে ১৮১ তুলে জয় নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন স্যামি জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিতে ক্যারিবিয়ানদের ব্যাটিংয়ে পাঠান ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার ব্রান্ডন কিং ও জনসন চার্লস।

তবে দলীয় ৪০ রানে ১৩ বলে ২৩ রান করে রিটার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান কিং। এরপর নিকোলাস পুরানকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন জনসন। জনসন ৩৪ বলে ৩৮ ও পুরান ৩২ বলে ৩৬ রান করেন 

মাঝে অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল ১৭ বলে ৩৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। শেষ দিকে শেরফান রাদারফোর্ডের ২৫ বলে ২৮ রানে ভর করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

১৮১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ইংলিশ ওপেনার ফিল সল্ট ও জস বাটলার। উদ্বোধনী জুটিতে ৬৭ রান যোগ করেন এই দুই ব্যাটার। 

তবে এরপর দ্রুতই জোড়া উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। বাটলার ২২ বলে ২৫ ও মঈন আলি ১০ বলে ১৩ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। তাদের বিদায়ের পর জনি বেয়ারস্টোকে সঙ্গে নিয়ে ক্যারিবিয়ান বোলারদের ওপর চড়াও হন সল্ট।

আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নেন সল্ট। এই দুই ব্যাটারের ব্যাটে ১৫ বল হাতে রেখে ৮ উইকেটের জয় পায় ইংল্যান্ড। ক্যারিবিয়ানদের পক্ষে আন্দ্রে রাসেল ও রস্টন চেজ নেন ১টি করে উইকেট।