img

খালেদা জিয়ার আবেদন বাতিল করে যে ব্যাখ্যা দিলেন আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত :  ১২:০৩, ০১ অক্টোবর ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট: ১২:০৯, ০১ অক্টোবর ২০২৩

খালেদা জিয়ার আবেদন বাতিল করে যে ব্যাখ্যা দিলেন আইনমন্ত্রী

চিকিৎসার জন্য বিদেশ যেতে হলে বেগম খালেদা জিয়াকে জেলে গিয়ে আবার আদালতে আবেদন করতে হবে বলে জানিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়। এর পরই বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন আইন, বিচার ও সংসদবিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক।

রোববার (১ অক্টোবর) দুপুরে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, চিকিৎসার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানো বিষয়ে ৪০১ ধারার ক্ষমতাবলে যে আবেদন নিষ্পত্তি করা হয়েছে সেটা খোলার আর কোনো সুযোগ নেই।

আইনমন্ত্রী বলেন, আইনের ৪০১ ধারার কোনো দরখাস্ত যদি একবার নিষ্পত্তি করা হয়, সেই নিষ্পত্তি করা দরখাস্ত পুনর্বিবেচনা করার কোনো অবকাশ আর আইনে থাকে না। ঠিক সেই ফৌজদারি কার্যবিধি ৪০১ ধারার উপধারা ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬ ব্যাখ্যা করে আমরা আমাদের মতামত পাঠিয়ে দিয়েছি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। সেখানে আমরা মতামত দিয়েছি, ৪০১ ধারার ক্ষমতাবলে যে দরখাস্ত নিষ্পত্তি করা হয়েছে সেটা পাস্ট অ্যান্ড ক্লোজ ট্রানজেকশন, এটা খোলার আর কোনো উপায় নেই।

এর আগে ভয়েস অব আমেরিকার শতরূপা বড়ুয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করাতে হলে তাকে আদালতে গিয়ে আবেদন করতে হবে। আদালত যদি অনুমতি দেন তাহলে তিনি বিদেশে যেতে পারবেন।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়ার ছোটভাই শামীম ইস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সঙ্গে দেখা করে বিদেশে চিকিৎসার আবেদন করেন। এরপর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ আবেদন মতামতের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠায়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। রায়ের পর তাকে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রাখা হয়। এরপর ৩০ অক্টোবর এই মামলায় আপিলে তার সাজা আরও পাঁচ বছর বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট।

একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন একই আদালত।

২০২০ সালের মার্চে করোনা মহামারি শুরু হলে পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার নির্বাহী আদেশে দণ্ড স্থগিত করে খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে ছয় মাসের জন্য মুক্তি দেন। এরপর থেকে মুক্তির মেয়াদ বাড়তে থাকায় তাকে আর কারাগারে যেতে হয়নি।

জাতীয় এর আরও খবর

img

বাংলাদেশ সরকারের উচিত শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদের অধিকার নিশ্চিত করা: জাতিসংঘ

প্রকাশিত :  ১৬:০৭, ১৭ জুলাই ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১৯:৪৫, ১৭ জুলাই ২০২৪

শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করা মৌলিক মানবাধিকার। বাংলাদেশ সরকারের উচিত মানুষের এ অধিকার নিশ্চিত করা। চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক।

গতকাল মঙ্গলবার জাতিসংঘ মহাসচিবের নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক এ মন্তব্য করেন।

ব্রিফিংয়ে ডুজারিকের কাছে জানতে চাওয়া হয়, সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে বাংলাদেশজুড়ে আন্দোলন চলছে। সরকারি ছাত্রসংগঠন ছাত্রলীগ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। হামলায় ছয়জন নিহত হয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে কি জাতিসংঘের মহাসচিব অবগত আছেন?

জবাবে স্টিফেন ডুজারিক বলেন, ‘হ্যাঁ, আমরা পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত। উদ্বেগ নিয়েই গভীরভাবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। আমি মনে করি, বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্য সব জায়গায় মানুষের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করার অধিকার রয়েছে।’

জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র আরও বলেন, ‘যেকোনো হুমকি ও সংঘাত থেকে প্রতিবাদকারীদের রক্ষা করার উদ্যোগ নিতে আমরা বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানাই। বিশেষ করে তরুণ, শিশু ও বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের মতো যাঁদের বাড়তি নিরাপত্তার প্রয়োজন রয়েছে।’

‘শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করা মানুষের মৌলিক মানবাধিকার’ মন্তব্য করে স্টিফেন ডুজারিক বলেন, বাংলাদেশ সরকারের উচিত মানুষের এ অধিকার নিশ্চিত করা।

জাতীয় এর আরও খবর