img

অর্থ জালিয়াতি মামলায় ট্রাম্পের বিচার শুরু

প্রকাশিত :  ০৫:১৭, ০৩ অক্টোবর ২০২৩

অর্থ জালিয়াতি মামলায় ট্রাম্পের বিচার শুরু

নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটানের আদালতে অর্থ জালিয়াতির মামলায় সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিচার শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময় সোমবার তিনি আদালতে হাজির হলে শুনানি শুরু হয়। বছরের পর বছর ধরে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জালিয়াতি করার অভিযোগ করা হয়েছে এই মামলায়।

ট্রাম্প ছাড়াও তার ছেলেদের এবং ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের বিরুদ্ধে এই মামলা করা হয়েছে। মামলায় ট্রাম্পকে ২৫ কোটি ডলার জরিমানা এবং নিজ রাজ্যে ব্যবসা করার ওপর নিষেধাজ্ঞার আবেদন করেছেন নিউ ইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেল।

মামলায় আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মামলাকে রাজনৈতিকভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে অভিহিত করেছেন তিনি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন বলছে, সোমবার শুনানির প্রথম দিন ট্রাম্পকে কিছু কথা বলেন বিচারক। তিনি বলেন, অন্যসব মামলার মতো এই মামলাতেও আমি নিরপেক্ষ থাকব। এটিই আমার দায়িত্ব। কেউই আইনের উর্ধ্বে নয়।

এর আগে গত সপ্তাহে ট্রাম্পকে প্রতারণার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করেন নিউ ইয়র্কের আদালত। মঙ্গলবার এই রায় দিয়েছেন নিউইয়র্কের সিভিল কোর্টের বিচারপতি আর্থার এনগোরন।

রায়ে বলা হয়, ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার প্রতিষ্ঠান তাদের সম্পদের অতিরঞ্জিত হিসাব প্রকাশ করেছেন এবং নেট সম্পদ জালিয়াতির মাধ্যমে বেশি দেখিয়ে ব্যাংক, ইনস্যুরেন্স ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে প্রতারিত করেছেন। এসব করার মাধ্যমে ট্রাম্প ও তার প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন চুক্তি করেছেন এবং ঋণ নিয়েছেন।

এই মামলায় ট্রাম্পের পাশাপাশি তার তিন সন্তান ডোনাল্ড জুনিয়র, ইভাঙ্কা ট্রাম্প ও এরিক ট্রাম্পকেও আসামি করা হয়। এ ছাড়া মামলায় ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের দুই নির্বাহী অ্যালেন ওয়েইসেলবার্গ এবং জেফরি ম্যাককনিকেও আসামি করা হয়েছে।

এর আগে, ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে ট্রাম্প এবং ট্রাম্প সংস্থার বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন স্টেট অ্যাটর্নি জেনারেল লেটিটিয়া জেমস। তার দাবি আয় সম্পর্কে এক দশক ধরে মিথ্যা বলেছেন ট্রাম্প। সেসময় বলা হয়, ব্যাংক ঋণ, বীমা এবং অন্যান্য আর্থিক সুবিধা পেতে সম্পদের মূল্য ২ দশমিক দুই তিন থেকে ৩ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলারের মধ্যে দেখিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

img

ইসরাইল অভিমুখী জাহাজ ডুবে যাওয়ার ভিডিও প্রকাশ করল হুথি বাহিনী

প্রকাশিত :  ১০:১৪, ২০ জুন ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩৫, ২০ জুন ২০২৪

ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনী ইসরাইল অভিমুখী একটি জাহাজে তাদের ভয়াবহ হামলার ভিডিও প্রকাশ করেছে। জাহাজটি ইয়েমেনের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে লোহিত সাগর দিয়ে ইসরাইলের বন্দরে প্রবেশের চেষ্টা করছিল।  টিউটর নামে গ্রিসের ইভ্যালেন্ট শিপিং কোম্পানির একটি জাহাজ এক সপ্তাহ আগে ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর ভয়াবহ হামলার শিকার হয়। ওই হামলা এবং ডুবে যাওয়ার ভিডিও গতকাল (বুধবার) প্রকাশ করেছে হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলন সমর্থিত সামরিক বাহিনী।

লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী, গ্রিক মালিকানাধীন ও পরিচালিত বাল্ক ক্যারিয়ারটি এক সপ্তাহ আগে হুথি বাহিনীর ভয়াবহ হামলার শিকার হয়। ওই হামলা এবং ডুবে যাওয়ার ভিডিও বুধবার প্রকাশ করেছে হুথি বাহিনী।  

জাহাজটি ইয়েমেনের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে লোহিত সাগর দিয়ে ইসরাইলের বন্দরে প্রবেশের চেষ্টা করছিল বলে দাবি করেছে গোষ্ঠীটি। ফুটেজে দেখা যায়, লোহিত সাগর দিয়ে ইসরাইলের দিকে যাওয়ার সময় দুটি ড্রোন-বোট জাহাজটিতে আঘাত করে। এর ফলে জাহাজটি ডুবে যায়।  

দি টিউটর নামে ওই জাহাজটির ডুবে যাওয়া বিদ্যমান পরিস্থিতিতে উত্তেজনা আরও বাড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, হামলায় এক ক্রু নিহত হয়েছেন, তিনি ফিলিপাইনের নাগরিক।

গত নভেম্বর থেকে হুথিরা ওই এলাকা দিয়ে চলাচলকারী অর্ধশতাধিক হামলা চালিয়েছে। তারা একটি জাহাজ দখল করেছে, দুটি ডুবিয়ে দিয়েছে বলে মার্কিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। মার্কিন নেতৃত্বাধীন কোয়ালিশন হুথিদের বিরুদ্ধে ব্যাপক বোমা হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

কিন্তু তবুও তাদের হামলা বন্ধ করা যাচ্ছে না। হুথিরা দাবি করছে, ইসরাইল যতক্ষণ না গাজায় হামলা বন্ধ করবে, ততক্ষণ তারা এই হামলা বন্ধ করবে না।