কতটা সুরক্ষিত দীর্ঘ পাসওয়ার্ড

প্রকাশিত :  ১৫:১৬, ১৭ অক্টোবর ২০২৩

কতটা সুরক্ষিত দীর্ঘ পাসওয়ার্ড

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বা মেইল; অ্যাকাউন্ট হ্যাক হবে এমন জটিলতা নিয়ে অনেকেই চিন্তিত। ফিশিং লিংক বাদেও আপনার ফোনে ম্যালওয়ার এলেই হলো। আর এসবের দায় অনেক সময় মেইল, ফেসবুক বা ব্যাংক অ্যাকাউন্টের অনলাইন সার্ভিসের ত্রুটি বা নিরাপত্তা ঘাটতির কারণে হয়। আবার অনেক সময় আপনার নিজের অসাবধানতাও দায়ি।

সংঘবদ্ধ চক্র হাতিয়ে নেয় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও অর্থ। তাই হ্যাকিং থেকে রক্ষা পেতে অনেকে দীর্ঘ পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেন। মেইল সার্ভিসগুলোও আপনাকে একই কথা বলবে। কিন্তু এই দীর্ঘ পাসওয়ার্ড আপনায় কতটা নিরাপত্তা দিতে পারে? প্রযুক্তি গবেষণাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান স্পেকপস আপনাকে সে উত্তরই দিয়েছে।

তাদের মতে, দীর্ঘ পাসওয়ার্ড ছোট পাসওয়ার্ডের চেয়ে বেশি সুরক্ষা দেয়। তবে দীর্ঘ পাসওয়ার্ড হ্যাকড হয়ে যাওয়ারও অনেক ঘটনা আছে। স্পেকপস সম্প্রতি ৮০ কোটির বেশি হ্যাকড পাসওয়ার্ড নিয়ে গবেষণা করেছে। এসব পাসওয়ার্ডের নানা দিক খতিয়ে দেখা হয়েছে। প্রতিবেদনটিতে দেখা গেছে, ৮০ কোটির মধ্যে ২১ কোটি ২৫ লাখ পাসওয়ার্ডের ক্যারেক্টর ছিল আটটি। তার অর্থ হলো, হ্যাকড হয়ে যাওয়া পাসওয়ার্ডগুলোর প্রায় ৮৫ শতাংশ ১২ ক্যারেক্টরের কম।

মাইক্রোসফটের সিস্টেম সফটওয়্যার বা অ্যাকটিভ ডিকশনারিতে আট ক্যারেক্টরের পাসওয়ার্ডকে ডিফল্ট পাসওয়ার্ড হিসেবে দেখা হয়। অর্থাৎ এটা একটা দুর্বল পাসওয়ার্ড, যা যে কোনো সময় হ্যাকড হতে পারে। স্পেকপস ১২ ক্যারেক্টরের বেশি দীর্ঘ পাসওয়ার্ডকে শক্তিশালী পাসওয়ার্ড মনে করে। কিন্তু এই ধরনের পাসওয়ার্ড খোয়া যাওয়ার শঙ্কাও অনেক বেশি। গবেষণা প্রতিবেদন জানাচ্ছে, হ্যাকড হয়ে যাওয়া পাসওয়ার্ডগুলোর মধ্যে ১২ কোটি ১৫ লাখ পাসওয়ার্ড ছিল ১২ বা তার বেশি ক্যারেক্টরের। অন্যদিকে ১৬ ক্যারেক্টরের বেশি দীর্ঘ হয়েও হ্যাকড হয়েছিল প্রায় ৩ কোটি ১১ লাখ পাসওয়ার্ড।

দীর্ঘ পাসওয়ার্ড হ্যাকড হওয়ার ঝুঁকি থাকলেও তা আপনার অ্যাকাউন্টকে এখনো ছোট পাসওয়ার্ডের তুলনায় বেশি সুরক্ষা দেয়। স্পেকপসের জ্যেষ্ঠ্য প্রোডাক্ট ম্যানেজার ড্যারেন জেমস বলেন, দীর্ঘ পাসওয়ার্ড তুলনামূলকভাবে ভালো। এটা আইটি বিশেষজ্ঞদের জন্য নতুন কোনো খবর নয়। তবে, দীর্ঘ পাসওয়ার্ড সত্ত্বেও বিভিন্ন ধরনের টোপ (ফিশিং) আপনার সুরক্ষিত ইমেইলে ঢুকে পড়তে পারে। এটাকে ব্যবহার করে আপনার পাসওয়ার্ড হ্যাকড হয়ে যেতে পারে।

সূত্র: স্পেকপস


Leave Your Comments


ইন্টেলকে ১০ বিলিয়ন ডলার ভর্তুকি দেবে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত :  ০৬:০৩, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ০৮:২৪, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বাইডেন প্রশাসন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম চিপ উত্পাদনকারী কোম্পানি ইন্টেলকে ১ হাজার কোটি ডলার ভর্তুকি দেওয়ার কথা বিবেচনা করছে। এই ভর্তুকি নিয়ে আলোচনা চলছে। ব্লুমবার্গ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

এ ভর্তুকির বিষয়ে এখন আলোচনা চলছে বলেও প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। এতে ঋণ ও সরাসরি অনুদানও থাকবে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ইন্টেলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে চিপস অ্যাক্টের অধীনে দু’টি অনুদানের ঘোষণা দিয়েছে। মার্কিন বাণিজ্য সচিব গিনা রাইমন্ডো চলতি মাসের শুরুতে এক বিবৃতি দিয়েছিলেন। সেখানে তার বিভাগ থেকে সেমিকন্ডাক্টর উত্পাদন বাড়াতে দুই মাসের মধ্যে ৩ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের বিলিয়ন প্রোগ্রাম থেকে তহবিল পুরস্কার দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন।

চিপ উত্পাদন ও সরবরাহ চেইনে বিনিয়োগের জন্যই এ তহবিল গঠন করা হয়েছে। এছাড়া ভর্তুকির মাধ্যমে নতুন কারখানা স্থাপন করা হবে, যেটি দেশটির অভ্যন্তরীণ পর্যায়ে উত্পাদন বাড়াতে সহায়তা করবে। ওহাইওতে একটি নতুন সাইটসহ অ্যারিজোনা ও নিউ মেক্সিকোয় দীর্ঘমেয়াদে চিপ কারখানা স্থাপনে কয়েক হাজার কোটি ডলার ব্যয়ের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ইন্টেল।

কোম্পানির বিবৃতি অনুযায়ী, ওহাইওর কারখানাটি বিশ্বের অন্যতম বড় চিপ উত্পাদন কেন্দ্র হতে যাচ্ছে। তবে সম্প্রতি ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন কোম্পানিটি ২০২৬ সালের আগে ওহাইওতে কারখানা স্থাপনের কাজ শেষ করতে পারবে না।

ইন্টেল ছাড়াও মাইক্রোন ও স্যামসাং ইলেকট্রনিকস যুক্তরাষ্ট্রে আলাদা চিপ উত্পাদন কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়ে কাজ করছে বলেও জানা গেছে।


img