হ্যাকিং বন্ধে সিম কার্ড বাইন্ডিং ফিচার নিয়ে এল ইমো

প্রকাশিত :  ১৮:৫৬, ০৭ নভেম্বর ২০২৩

হ্যাকিং বন্ধে সিম কার্ড বাইন্ডিং ফিচার নিয়ে এল ইমো

ব্যবহারকারীদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্ভরযোগ্য অনলাইন সিকিউরিটি ফিচারের মাধ্যমে কাজ করছে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ ইমো। এ প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে নতুন সব ফিচার নিয়ে আসছে প্রতিষ্ঠানটি। 

সম্প্রতি ইমো নিয়ে এসেছে ‘সিম কার্ড বাইন্ডিং ফিচার’। এ ফিচারটি আসায় চাইলেই এখন আর কেউ ইমো অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতে পারবেন না।

সিম কার্ড বাইন্ডিং ফিচারটি ব্যবহার করতে- নতুন ইমো ব্যবহারকারীরা নিজস্ব সিমকার্ড নম্বর দিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলবেন । এরপর ইমো অ্যাকাউন্টে গিয়ে সিম কার্ড বাইন্ডিং ফিচারটি চালু করতে হবে। আর ইতোমধ্যেই যারা ইমো ব্যবহার করছেন, তারা সিকিউরিটি অপশনে গিয়ে ফিচারটি চালু করতে পারবেন।

এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ফিচারটি চালু করলেই ওই নির্দষ্ট সিমকার্ড নম্বর ছাড়া অন্য কোনো নম্বর দিয়ে কেউ অ্যাকাউন্টে ঢুকতে পারবেন না। এমনকি ওটিপি শেয়ার করে হ্যাক করাও এখন অসম্ভব হয়ে পড়বে। সাধারণত, হ্যাকাররা ইউজার অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড ও ওটিপি দিয়ে ব্যবহারকারীর ক্ষতি করার চেষ্টা করে।

এ ফিচারের মধ্য দিয়ে অন্য যেকোনো ডিভাইস থেকে তাদের অন্য অ্যাকাউন্টে লগইন করার ঝুঁকি কমিয়ে আনা সম্ভব। ব্যবহারকারীরা তাদের পছন্দ অনুযায়ী এই ফিচার এনাবল বা ডিজ্যাবল করে রাখারও সুযোগ পাবেন বলে জানানো হয়েছে।

শুধু সিম কার্ড বাইন্ডিং ফিচারই না, সামনে আরো বেশকিছু চমকপ্রদ ফিচার নিয়ে আসবে ইমো। এরমধ্যে শিগগিরই চালু হওয়ার অপেক্ষায় আছে ‘পাসকিস ফিচার।’ সাইবার নিরাপত্তার জোরদারের অংশ হিসেবে ইমো ব্যবহারকারীদের দুই স্তরের ভেরিফিকেশন ব্যবহারের ক্রমাগত উৎসাহিত করে যাচ্ছে।

এছাড়াও, ব্যবহারকারীরা যেনো অপরিচিত ব্যক্তিদের সাথে ওটিপি (ওয়ান টাইপ পাসওয়ার্ড) শেয়ার না করেন, এ নিয়েও ইমোর পক্ষ থেকে ব্যবহারকারীদের ধারাবাহিকভাবে সচেতন করা হচ্ছে। বিশেষ করে, অন্য কোনো ডিভাইস থেকে লগইন করার ক্ষেত্রে দুই স্তরের ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া আরেকটি অতিরিক্ত নিরাপত্তার স্তরের মধ্য দিয়ে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টকে আরও বেশি নিরাপদ রাখতে সহায়তা করে।

পাশাপাশি, এ নিরাপত্তাকে আরও জোরদার করতে তাদের ওটিপি ব্যক্তিগত রাখতে বলা হয়। অপরিচিত কারও সাথে ওটিপি শেয়ার করাকে প্রোফাইল হ্যাক হওয়ার পেছনে প্রাথমিক কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। তাই, কারও সাথে কখনই নিজের ওটিপি শেয়ার করা যাবে না।

ইমো অ্যাকাউন্ট নিরাপদ ডিভাইসের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার ক্ষেত্রে ডিভাইস ম্যানেজমেন্ট ও মাল্টি-ডিভাইস ম্যানেজমেন্ট ফিচার চালু করতে হবে। এতে করে কোন কোন ডিভাইসে অ্যাকাউন্টটি ব্যবহৃত হচ্ছে তা বুঝতে পারবেন ব্যবহারকারী এবং সে অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পরিবর্তন আনার সুযোগ পাবেন, যা ব্যবহারকারীদের স্বাচ্ছন্দ্যে নিজের নিয়ন্ত্রণে অ্যাকাউন্ট ব্যবহারে ভূমিকা রাখবে।


Leave Your Comments


ইন্টেলকে ১০ বিলিয়ন ডলার ভর্তুকি দেবে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত :  ০৬:০৩, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ০৮:২৪, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বাইডেন প্রশাসন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম চিপ উত্পাদনকারী কোম্পানি ইন্টেলকে ১ হাজার কোটি ডলার ভর্তুকি দেওয়ার কথা বিবেচনা করছে। এই ভর্তুকি নিয়ে আলোচনা চলছে। ব্লুমবার্গ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

এ ভর্তুকির বিষয়ে এখন আলোচনা চলছে বলেও প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। এতে ঋণ ও সরাসরি অনুদানও থাকবে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ইন্টেলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে চিপস অ্যাক্টের অধীনে দু’টি অনুদানের ঘোষণা দিয়েছে। মার্কিন বাণিজ্য সচিব গিনা রাইমন্ডো চলতি মাসের শুরুতে এক বিবৃতি দিয়েছিলেন। সেখানে তার বিভাগ থেকে সেমিকন্ডাক্টর উত্পাদন বাড়াতে দুই মাসের মধ্যে ৩ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের বিলিয়ন প্রোগ্রাম থেকে তহবিল পুরস্কার দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন।

চিপ উত্পাদন ও সরবরাহ চেইনে বিনিয়োগের জন্যই এ তহবিল গঠন করা হয়েছে। এছাড়া ভর্তুকির মাধ্যমে নতুন কারখানা স্থাপন করা হবে, যেটি দেশটির অভ্যন্তরীণ পর্যায়ে উত্পাদন বাড়াতে সহায়তা করবে। ওহাইওতে একটি নতুন সাইটসহ অ্যারিজোনা ও নিউ মেক্সিকোয় দীর্ঘমেয়াদে চিপ কারখানা স্থাপনে কয়েক হাজার কোটি ডলার ব্যয়ের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ইন্টেল।

কোম্পানির বিবৃতি অনুযায়ী, ওহাইওর কারখানাটি বিশ্বের অন্যতম বড় চিপ উত্পাদন কেন্দ্র হতে যাচ্ছে। তবে সম্প্রতি ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন কোম্পানিটি ২০২৬ সালের আগে ওহাইওতে কারখানা স্থাপনের কাজ শেষ করতে পারবে না।

ইন্টেল ছাড়াও মাইক্রোন ও স্যামসাং ইলেকট্রনিকস যুক্তরাষ্ট্রে আলাদা চিপ উত্পাদন কেন্দ্র স্থাপনের বিষয়ে কাজ করছে বলেও জানা গেছে।


img