img

স্ত্রীকে জাপটে ধরে বিশ্বকাপ হারের যন্ত্রণা ঢাকলেন বিরাট

প্রকাশিত :  ০৫:৫৪, ২০ নভেম্বর ২০২৩
সর্বশেষ আপডেট: ০৬:০৩, ২০ নভেম্বর ২০২৩

স্ত্রীকে জাপটে ধরে বিশ্বকাপ হারের যন্ত্রণা ঢাকলেন বিরাট

টানা ১০ ম্যাচ জিতে ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারটা ভারতের অনেকেরই হজম হচ্ছে না। কিন্তু যারা এতদিন এক টানা এতগুলো ম্যাচ জেতালেন তাদের কী অবস্থা?

গুজরাটের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে এবারের বিশ্বকাপের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারার পরই স্বামী বিরাট কোহলিকে জড়িয়ে ধরেন স্ত্রী অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা। দিলেন সান্ত্বনা। কোহলিও স্ত্রীকে জাপটে ধরে বিশ্বকাপ হারার যন্ত্রণা ঢাকলেন।

২০০৩ সালে ঠিক এমনই হয়েছিল। ভয়ঙ্কর সেই স্মৃতি আবারও ২০ বছর পর ফিরে এলো। সে বারও এই অস্ট্রেলিয়ার কাছে ফাইনালে হেরে স্বপ্ন ভেঙেছিল ভারতের। অতীতের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে ফের একবার বিশ্বকাপ ট্রফি হাতছাড়া হলো ভারতীয়দের।

তবে ফাইনালে হারলেও গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে দুর্দান্ত পারফর্ম করেছেন তারা। নিজেদের পারফরমেন্স দিয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন রোহিত শর্মা-বিরাট কোহলিরা। ফাইনাল ম্যাচেও করেছেন অর্ধশতক।

সেই মুহূর্তে যেমন আনুশকা খুশি হয়েছিলেন, ঠিক তেমনই ভারত হারার পর বিরাটকে জড়িয়ে নেন বুকে। ভরসা আর সান্ত্বনা দেন স্বামীকে। তাদের সেই মুহূর্ত ফ্রেমবন্দি হয়েছে। যদিও ছবিতে বিরাটের মুখ দেখা যাচ্ছে না। কেবল জার্সির নাম এবং নম্বর স্পষ্ট।

এদিন মায়ের সঙ্গে মাঠে এসেছিলেন বিরাট কোহলির স্ত্রী আনুশকা। শোনা যাচ্ছে, তিনি ফের অন্তঃসত্ত্বা। এই অবস্থাতেও কোহলি এবং গোটা দলকে সমর্থন করতে মাঠে হাজির ছিলেন তিনি। সঙ্গে কেএল রাহুলের স্ত্রী অভিনেত্রী আথিয়া শেঠিকেও দেখা যায়। এছাড়া ছিলেন রোহিতের স্ত্রী রিতিকা, রবীন্দ্র জাদেজার স্ত্রীও।

ভারত আর অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ দেখতে এদিন একাধিক বলিউড তারকারা মাঠে এসেছিলেন। শাহরুখ খান, রণবীর সিং, দীপিকা পাড়ুকোনসহ আশা ভোঁসলেকেও দেখা যায় ভারতের হয়ে গলা ফাটাতে। এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও।


img

স্ত্রী-সন্তানের সামনেই লংকান ক্রিকেটারকে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত :  ১১:১০, ১৭ জুলাই ২০২৪

শ্রীলংকার সাবেক ক্রিকেটার ধাম্মিকা নিরোশানকে স্ত্রী-সন্তানের সামনেই গুলি করে হত্যা করা হলো। মঙ্গলবার রাতে আম্বালাঙ্গোদায় নিজ বাড়িতেই গুলিতে নিহত হন তিনি। 

মর্মান্তিক এ ঘটনা ক্রিকেট বিশ্ব এবং শ্রীলংকা ক্রিকেটকে শোকের মধ্যে নিমজ্জিত করেছে। 

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, একজন অজ্ঞাতনামা হামলাকারী নিরোশানের বাড়িতে প্রবেশ করে এবং তাকে গুলি করে। ওই সময় ধাম্মিকা নিরোশান তার স্ত্রী এবং দুই সন্তানের সঙ্গেই ছিলেন।

সন্দেহভাজন হামলাকারী পলাতক। তবে ঠিক কী কারণে ওই হামলাকারী নিরোশানকে গুলি চালিয়েছিল, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

আম্বালাঙ্গোদা পুলিশ জানিয়েছে, তারা অপরাধীকে ধরার চেষ্টা করছে এবং ঘটনার তদন্ত চলছে। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, অভিযুক্ত ১২ বোরের বন্দুক নিয়ে এসেছিল।

৪১ বছর বয়সি নিরোশান অনূর্ধ্ব-১৯ স্তরে শ্রীলংকার প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। ২০০০ সালে সিঙ্গাপুরের বিরুদ্ধে তার অভিষেক হয়। তিনি অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে দুই বছর টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেট খেলেছেন এবং দলের অধিনায়কত্বও করেছেন। নিরোশান একজন ডানহাতি ফাস্ট বোলার এবং ডানহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন। ২০০২ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে পাঁচ ইনিংসে ১৯.২৮ গড়ে ৭ উইকেট শিকার করেছিলেন নিরোশান।

তিনি ১২টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ১৯টি উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে করেছেন ২০০ রান। একই সময়ে ৮টি লিস্ট-এ ম্যাচে তিনি ৪৮ রান করেছেন এবং ৫টি উইকেট নিয়েছেন। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস