মেসি না খেলায় ক্ষমা চাইলো ইন্টার মিয়ামি

প্রকাশিত :  ০৫:০৮, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

মেসি না খেলায় ক্ষমা চাইলো ইন্টার মিয়ামি
হংকং একাদশের বিপক্ষে ক্লাব ফ্রেন্ডলি ম্যাচে চোটের কারণে খেলতে পানেনি মেসি। এতে চরম হতাশ হয়ে পড়েন ফুটবলপ্রেমীরা। এই হতাশা রুপ নেয় ক্ষোভের। বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইনকে না খেলানোয় দর্শকরা হয়েছেন চরম হতাশ। উগরে দিয়েছেন নিজেদের ক্ষোভ। শেষ পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় বসেছে দেশটির সরকারও।
এবার মেসিকে না খেলানোর জন্য ক্ষমা চেয়েছে ইন্টার মিয়ামি। বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে পাঠানো এক বিবৃতিতে ক্লাবটি বলেছে, ‘আমাদের দৃঢ় ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও (আমরা তাদের খেলাতে পারিনি)। আমরা বুঝতে পেরেছিে যে, রোবারের ম্যাচে লিওনেল মেসি এবং লুইস সুয়ারেজের অনুপস্থিতিতে সবাই হতাশ হয়েছে। আমরা দুঃখিত যে দুই খেলোয়াড় অংশ নিতে পারেনি।’

‘আমরা এটাও স্বীকার করি যে, দেরিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া আমাদের হংকং সমর্থক ও ইভেন্ট আয়োজক টেটলার এশিয়ার মধ্যে হতাশা সৃষ্টি করেছে। আমরা এটা প্রকাশ করার প্রয়োজন মনে করি যে, দুর্ভাগ্যবশত ইনজুরি খেলার একটি অংশ, আমাদের খেলোয়াড়ের স্বাস্থ্যকে সবার আগে গুরুত্ব দেওয়া উচিত।’

মিয়ামি বিবৃতিতে আরও জানায়, ‘ফুটবলে খেলোয়াড়রা ইনজুরি হন এবং এটি কারও দোষ নয়। এটি সুন্দর খেলার একটি অংশ যা নিষ্ঠুর এবং এই উপলক্ষ আমাদের হংকং সফরকে প্রভাবিত করেছে। যেহেতু আমরা বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের কাছ থেকে নেতিবাচক মন্তব্য গ্রহণ করতে থাকি, আমরা এই ধরনের খেলার ইনজুরির বাস্তবতার বিষয়টি পুনরায় উল্লেখ করাটা বাধ্যমূলক বলে মনে করি।’

এর আগে মেসি হংকংয়ের একটি ক্লাবের বিপক্ষে খেলার খবরে হাজার হাজার দর্শক-সমর্থন গ্যালারিতে জমায়েত হন। সেখানে প্রায় ৪০ হাজার মেসিভ্ক্ত খেলা দেখতে আসেন। কেউ মেসির জার্সি নম্বর সম্বলিত জামা, কেউ শুধু মেসির জাসি নম্বর ১০ নিয়ে আসছিলেন। খেলা শুরুর আগেই তারা মেসি মেসি বলে চীৎকার করছিলেন।

কিন্তু পুরোটা সময় মেসিকে মাঠে না দেখে চরম হতাশ হন দর্শকরা। এমননি বার্সেলোনাতে মেসির সাবেক সতীর্থ লুইস সুয়ারেজকেও খেলাননি কোচ। ফলে দর্শকদের হতাশা বেড়েছে দ্বিগুণ। যদিও মেসির দল মিয়ামি ম্যাচটি জিতেছে ৪-১ গোলে।

Leave Your Comments


কুমিল্লাকে হারিয়ে বিপিএলে প্রথম চ্যাম্পিয়ন বরিশাল

প্রকাশিত :  ১৬:০১, ০১ মার্চ ২০২৪

অবশেষে বিপিএলের শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলো বরিশাল। এর আগে তিনবার ফাইনাল খেললেও শিরোপা ছুঁতে পারেনি দলটি। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ১০ম আসরের ফাইনালে টানা দুইবারের এবং সমমিলে চারবারের শিরোপাজয়ী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারিয়ে শিরোপা নিজেদের করে নিলো ফরচুন বরিশাল। 

শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কুমিল্লাকে ১৫৪ রানে থামিয়ে ৬ বল হাতে রেখে ৬ উইকেটের জয়ে বিপিএল শিরোপা জিতল বরিশাল। 

এদিন টস জিতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বরিশাল। আগে ব্যাট করতে নেমে ১২০ বলে ১৫৪ রান করে কুমিল্লা। দলের হয়ে ৩৫ বলে ৩৮ রান করেন মাহিদুল ইসলাম আকন। ইনিংসের একিবারে শেষ দিকে ব্যাটিংয়ে নেমে রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়ে ১৪ বলে চার ছক্কায় ২৮ রান করেন আন্দ্রে রাসেল। এছাড়া ২৩ বলে ২০ রান করে অপরাজিত থাকেন জাকের আলি।

১২০ বলে ১৫৫ রানের সহজ টার্গেট তাড়া করতে নেমে কাইল মায়ার্স ও তামিম ইকবালের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বরিশাল। মায়ার্স ৩০ বলে ৫টি চার আর ২টি ছক্কার সাহায্যে ৪৬ রান করেন।  ২৬ বলে তিন চার আর তিন ছক্কায় ৩৯ রান করেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ১৮ বলে ১৩ রান করে ফেরেন মুশফিকুর রিহম।

তামিম-মায়ার্স-মুশফিকের বিদায়ের পর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ডেভিড মিলার ঠান্ডা মাথায় ব্যাটিংয়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন। 

img