ডলার সংকট কাটাতে চালু হচ্ছে ‘ক্রলিং পেগ’

প্রকাশিত :  ০৬:০৫, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ডলার সংকট কাটাতে চালু হচ্ছে ‘ক্রলিং পেগ’

ডলার সকট নিয়ে মহাসমুদ্রে হাবুডুবু খাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। দিন দিন বেড়েই চলেছে ডলারের সংকট। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেওয়া কোনো উদ্যোগই কাজে আসছে না।  বাজার পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে বৈদেশিক মুদ্রার মজুত বা রিজার্ভ থেকে প্রতিনিয়ত ডলার বিক্রি করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এতেও দূর হচ্ছে না সংকট। ডলার দর নিয়ন্ত্রিত ও বাজারভিত্তিক করতে দ্রুত ক্রলিং পেগ পদ্ধতি চালুর পরিকল্পনা করা হচ্ছে।  আসছে মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে ক্রলিং পেগ পদ্ধতিতে ডলারের বিনিময় হার নির্ধারণ করা হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের একাধিক সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, ডলার সংকট কাটাতে নেওয়া নানা উদ্যোগের কোনোটিই কাজে আসছে না। রিজার্ভও কমে অর্ধেকে নেমেছে। এবার ডলার সংকট কাটাতে এর দর নিয়ন্ত্রিত ও বাজারভিত্তিক করতে আগামী মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে ক্রলিং পেগ পদ্ধতিতে ডলারের বিনিময় হার নির্ধারণ করা হতে পারে। বিশ্বের অনেক দেশেই এটি কার্যকর ভূমিকা পালন করেছে।

এ পদ্ধতি টাকার বিপরীতে ডলারের দামের ভিত্তি হবে রিয়াল ইফেকটিভ একচেঞ্জ রেট (রিয়ার) ও নমিনাল ইফেকটিভ একচেঞ্জ রেট (নিয়ার)। বৈশ্বিক মানদণ্ডের আলোকে ‘ক্রলিং পেগ’ রেটের সঙ্গে ৫০ পয়সা থেকে ১ টাকার করিডোর রাখা হবে। আর স্মার্ট সুদহারের আলোকে বাংলাদেশ ফরেন একচেঞ্জ ডিলার অ্যাসোসিয়েশন (বাফেদা) ডলারের দর নির্ধারণ করবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকে এক কর্মকর্তা জানান, ডলার সংকট কাটছে না। সংকটের সুযোগে কারসাজিতে জড়িয়ে পড়েছে ব্যাংক-এক্সচেঞ্জ হাউজ। অন্যদিকে, রিজার্ভও তলানিতে। এ পরিস্থিতিতে ডলারের দর শতভাগ বাজারের ওপর ছেড়ে দেওয়ার পরিবেশ নেই। তাই গভর্নর ক্রলিং পেগ পদ্ধতি দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছেন।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল বা আইএমএফের কারিগরি কমিটি ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণে অসম্মতি জানিয়ে বিলম্ব করার প্রস্তাব দিয়েছে। এই বিলম্বকে কেন্দ্র করে ক্রলিং পেগ মার্চেই দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ দেন গভর্নর রউফ তালুকদার। পরবর্তীতে আইএমএফের সুপারিশ চলমান প্রক্রিয়ায় সমন্বয় হবে।

দেশে সাময়িকভাবে ডলারের ধকল সামলাতে ক্রলিং পেগ চালু হচ্ছে। বৈদেশিক মুদ্রার সংকট কাটাতে ল্যাটিন আমেরিকার উরুগুয়েতে প্রথম ক্রলিং পেগের প্রচলন ঘটে। বর্তমানে বতসোয়ানা, হন্ডুরাস ও নিকারাগুয়ায় ক্রলিং পেগ পদ্ধতি চালু রয়েছে।

এ পদ্ধতিতে বিনিময় হার সমন্বয়ের একটি নির্দিষ্ট বিনিময় হারসহ ধীরে ধীতে নির্ধারিত সীমার মধ্যে ওঠানামার সুযোগ রাখা হয়। কিছু দিন পর পর সমন্বয় করা যায়। এতে উচ্চ বিনিময় হারের অস্থিরতা, মুদ্রাস্ফীতি, অর্থনৈতিক অস্থিরতার সময় দেশীয় মুদ্রার অবমূল্যায়নের হুমকি এড়াতে নিয়ন্ত্রণমূলক ক্রলিং পেগ কার্যকর ভূমিকা রাখে। তবে মুদ্রাবাজার সংকট কেটে গেলে ক্রলিং পেগ কার্যকর থাকে না।

Leave Your Comments


২২ মিউচুয়াল ফান্ডে কমেছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ

প্রকাশিত :  ১১:৫৭, ০৩ মার্চ ২০২৪

ডিসেম্বর মাসের তুলনায় জানুয়ারি মাসে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ কমেছে শেয়ারবাজারের ৩৭টি মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে ২২টি প্রতিষ্ঠানের। একই সময়ে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বেড়েছে ১৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২টির। ডিএসই সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ কমেছে এমন ২২টি প্রতিষ্ঠান হলো- এবি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, এআইবিএল ফার্স্ট ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড, ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল সিএমএসএফ গোল্ডেন জুবিলি মিউচুয়াল ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল থার্ড এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল ফার্স্ট অগ্রণী ব্যাংক মিউচুয়াল ফান্ড, আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচুয়াল ফান্ড, আইসিবি এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট এমএফ ১: স্কিম ১, আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক লিমিটেড ফার্ট মিউচুয়াল ফান্ড, আইএফআইএল ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড-১, এমবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, এনসিসিবিএল মিউচুয়াল ফান্ড-১, ফিনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচুয়াল ফান্ড, রিলায়েন্স ওয়ান রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স মিউচুয়াল ফান্ডের ফার্স্ট স্কিম, এসইএমএল এফবিএলএসএল গ্রোথ ফান্ড, আইবিবিএল শরিয়াহ ফান্ড, এসইএমএল লেকচার ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ড, ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ান, ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ড।

রিলায়েন্স ওয়ান রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স মিউচুয়াল ফান্ডের ফার্স্ট স্কিম

প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ কমেছে রিলায়েন্স ওয়ান রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স মিউচুয়াল ফান্ডের ফার্স্ট স্কিমের। ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৪৫.০৭ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১২.৮২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৩২.২৫ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৩৪.৯৩ শতাংশ থেকে ১২.৮২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৭.৭৫ শতাংশে।

প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৪৩.৩৫ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৫.৯৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৩৭.৩৮ শতাংশে। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ০.১২ শতাংশ থেকে ০.০৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ০.০৫ শতাংশে। আর সাধারণ বিনিয়োগ ৫৪.৫৩ শতাংশ থেকে ৬.০৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬০.৫৭ শতাংশে।

এবি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৪.০৭ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ০.৩৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৩.৭০ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৭০.৪২ শতাংশ থেকে ০.৩৭ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭০.৭৯ শতাংশে।

এআইবিএল ফার্স্ট ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৫৪.৬১ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৪.০২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫০.৫৯ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৩৫.৩৯ শতাংশ থেকে ৪.০২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৯.৪১ শতাংশে।

ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৩৪.১৭ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ০.৭২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৩৩.৪৫ শতাংশে। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ছিল ৫.৪৪ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৫.৪৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ০.০০ শতাংশে। আর সাধারণ বিনিয়োগ ৪৩.৭২ শতাংশ থেকে ৬.১৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯.৮৮ শতাংশে।

ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৯.৫০ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ০.১৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২৯.৩২ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৬.৫৩ শতাংশ থেকে ০.১৮ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬.৭১ শতাংশে।

আইসিবি এএমসিএল সিএমএসএফ গোল্ডেন জুবিলি মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২০.৪৬ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৬.৬৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৩.৮৩ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৯.৫৪ শতাংশ থেকে ৬.৬৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬.১৭ শতাংশে।

আইসিবি এএমসিএল থার্ড এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৫৪.১০ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৬.২৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৭.৮২ শতাংশে। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ছিল ৬.৮২ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ২.৮৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৩.৯৫ শতাংশে। আর সাধারণ বিনিয়োগ ২৯.০৫ শতাংশ থেকে ৯.১৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮.২০ শতাংশে।

আইসিবি এএমসিএল ফার্স্ট অগ্রণী ব্যাংক মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৪০.৮২ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৩.২১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৩৭.৬১ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৮.২৪ শতাংশ থেকে ৩.২১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১.৪৫ শতাংশে।

আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৫৭.৮৪ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১.৮১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫৬.০৩ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৪২.১৫ শতাংশ থেকে ১.৮১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৩.৯৬ শতাংশে।

আইসিবি এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ট এমএফ ১: স্কিম ১

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৫০.১১ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৩.৪০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৬.৭১ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৩৯.৮৮ শতাংশ থেকে ৩.৪০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৩.২৮ শতাংশে।

আইসিবি এএমসিএল সোনালী ব্যাংক লিমিটেড ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৬৭.৯৩ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৬.৩০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৬১.৬৩ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৭.০৭ শতাংশ থেকে ৬.৩০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩.৩৭ শতাংশে।

আইএফআইএল ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড-১

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৬৫.৫৩ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১০.৬০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫৪.৯৩ শতাংশে। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ছিল ৭.৬৩ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৭.৬২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ০.০১ শতাংশে। আর সাধারণ বিনিয়োগ ২৫.৮৪ শতাংশ থেকে ১৮.২২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৪.০৬ শতাংশে।

এমবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৫০.৮৫ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১.৪২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৯.৪৩ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৩৯.১৫ শতাংশ থেকে ১.৪২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪০.৫৭ শতাংশে।

এনসিসিবিএল মিউচুয়াল ফান্ড-১

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৭০.২২ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৩.৩৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৬৬.৮৮ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৪.৭৮ শতাংশ থেকে ৩.৩৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮.১২ শতাংশে।

ফিনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৬.৩৩ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ০.৫৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৫.৮০ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৫০.৩৩ শতাংশ থেকে ০.৫৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১.৩৭ শতাংশে।

প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচুয়াল ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৬১.২৮ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১০.১৮ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫১.১০ শতাংশে। একই সময়ে বিদেশি বিনিয়োগ ছিল ১.৯৫ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১.৮৫ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ০.১০ শতাংশে। আর সাধারণ বিনিয়োগ ১৬.৭৭ শতাংশ থেকে ১২.০৩ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৮.৮০ শতাংশে।

এসইএমএল এফবিএলএসএল গ্রোথ ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৮.৩৪ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১.৫৬ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৬.৭৮ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৬৭.২৭ শতাংশ থেকে ১.৫৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৮.৮৩ শতাংশে।

এসইএমএল আইবিবিএল শরিয়াহ ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ২৮.০৯ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ৩.৪৭ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ২৪.৬২ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ২১.৯১ শতাংশ থেকে ৩.৪৭ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৫.৩৮ শতাংশে।

এসইএমএল লেকচার ইক্যুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ১৩.৪৮ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ২.৭২ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১০.৭৬ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ৭৬.৫২ শতাংশ থেকে ২.৭২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৯.২৪ শতাংশে।

ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ান

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৮০.২৯ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ১.১৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৭৯.১৫ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১৭.৭৯ শতাংশ থেকে ১.১৪ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮.৯৩ শতাংশে।

ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্সড ফান্ড

ডিসেম্বর মাসে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ ছিল ৬৪.৫০ শতাংশ, যা জানুয়ারি মাসে ০.৬০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৬৩.৯০ শতাংশে। একই সময়ে সাধারণ বিনিয়োগ ১০.৩০ শতাংশ থেকে ০.৬০ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০.৯০ শতাংশে।

img