img

অবশেষে ভারতীয় দলে সুযোগ পেলেন সরফরাজ

প্রকাশিত :  ০৫:১৬, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

অবশেষে ভারতীয় দলে সুযোগ পেলেন সরফরাজ

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর জাতীয় দলে সুযোগ পেলেন সরফরাজ খান। দলে নিজের জায়গা করে নিতে লম্বা সময় ধরে সংগ্রাম করেছেন ভারতের সরফরাজ খান।  ব্যাট হাতে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে দাপট দেখিয়েছেন সারা বছর। তবে কোনো এক অজ্ঞাত কারণে দলে সুযোগ আসেনি কখনো। এবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে তার দলে ডাক পাওয়াটাই ছিল বড় খবর। হার্শা ভোগলে যেমন বলেছিলেন, ভারতীয় নির্বাচকদের দরজা ভেঙেই দলে এসেছেন সরফরাজ। 

সেই সরফরাজ দলে এসেও সুযোগ পাননি প্রথম দুই টেস্টে। তবে রাজকোটের তৃতীয় টেস্টে এসে অবশেষে খুলল তার কপাল। জোড়া অভিষেকের দিনে প্রথমবার ভারতের জার্সি গায়ে চাপিয়েছেন তিনি। পেয়েছেন মর্যাদার টেস্ট ক্যাপ। ভারতের টপঅর্ডার দিনের প্রথম সেশনেই গুটিয়ে গিয়েছে। আজই ব্যাট হাতে দেখা যেতে পারে তাকে।

২০১৯ সাল থেকে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে অবিশ্বাস্য পারফর্মও করছেন সরফরাজ। ২০১৯-২০ ও ২০২১-২০২২ টানা দুই মৌসুমে রঞ্জি ট্রফিতে তিনি করেছেন ৯০০–এর বেশি রান। ঘরোয়া ক্রিকেটে ৬৬ ইনিংসে তার গড় ৬৯.৮৫, যা ক্রিকেট ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ। সর্বোচ্চ গড় ৯৫.১৪ স্যার ডন ব্রাডম্যানের।

এর আগে ২০০৯ সালে মাত্র ১২ বছর বয়সে ভারতের হ্যারিস শিল্ড আন্তঃস্কুল টুর্নামেন্টে ৪৩৯ রানের ইনিংস খেলে আলোয় আসেন সরফরাজ। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এত ধারাবাহিক হওয়া সত্ত্বেও কিছুতেই তার জন্য জাতীয় দলের সুযোগ আসছিল না। যা নিয়ে সমালোচনাও হচ্ছিল নির্বাচকদের।

রাজকোটের এই টেস্টে ভারতীয় দলে জোড়া বদল করা হয়েছে। চোটের কারণে খেলতে পারছেন না লোকেশ রাহুল। বাদ পড়েছেন শ্রেয়স আয়ারও। সেই জায়গায় দলে অভিষেক হয়েছে সরফরাজ খানের। প্রথম একাদশ থেকে বাদ পড়েছেন উইকেটরক্ষক শ্রীকর ভরত। 

একইদিনে লাল বলের ক্রিকেটে অভিষেক হচ্ছে ধ্রুব জুড়েলের। বাদ পড়েছেন মুকেশ কুমার। সেই জায়গায় প্রথম একাদশে ফিরেছেন মোহাম্মদ সিরাজ। ভারতীয় দলে আরও একটি বদল হয়েছে। অক্ষর প্যাটেলের বদলে প্রথম একাদশে জায়গা পেয়েছেন চোট সারিয়ে ফেরা রবীন্দ্র জাদেজা।

img

ইতিহাস গড়লেন বাংলাদেশি নারী বক্সার জিন্নাত ফেরদৌস

প্রকাশিত :  ০৯:১২, ২৪ এপ্রিল ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ০৯:৫৬, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

বক্সিংয়ে ইতিহাস গড়েছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী জিন্নাত ফেরদৌস। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে আফ্রিকার ডারবানে জিতেছেন ম্যান্ডেলা কাপের স্বর্ণপদক। এটিকে গেল দেড় দশকে দেশের বক্সিংয়ে সেরা সাফল্য মনে করেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক। 

দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত নেলসন ম্যান্ডেলা কাপ আন্তর্জাতিক বক্সিং প্রতিযোগিতায় গতকাল সোনা জয় করেছেন বাংলাদেশের যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী বক্সার জিনাত ফেরদৌস। ৫০ কেজি ওজন শ্রেণিতে তিনি ফাইনালে হারিয়েছেন ইথিওপিয়ার প্রতিযোগীকে। বিদেশের মাটিতে এমন সফলতার পর গর্বিত দেশের বক্সিং সংশ্লিষ্টরা।

জিন্নাত ফেরদৌসের বক্সিংয়ে আবির্ভাব গত বছর হঠাৎ করেই। তিনি লাল-সবুজের হয়ে অংশ নেন এশিয়ান গেমসেও। সেখানে যদিও প্রথম বিশ্বমঞ্চে তেমন ভালো কিছু করতে পারেননি।

এরপর যুক্তরাষ্ট্রে ব্যক্তিগত কোচের কাছে ট্রেনিং চালিয়ে যান জিন্নাত। তার ঝুলিতে অবশেষে সাফল্য ধরা দিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকায় ম্যান্ডেলা কাপে গোল্ড জিতেছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী জিন্নাত।

বক্সিং ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম তুহিন বলেছেন, জিন্নাতের স্বর্ণপদক জয় দেশের বক্সিংয়ের জন্য অনেক বড় একটি সফলতা। তার স্বর্ণ জয়ই দেশের সেরা সাফল্য। জিন্নাতের পারফরম্যান্স, অভিজ্ঞতা ও ফাইটিং দক্ষতা খুবই ভালো। আগামী মাসের ২৫ তারিখ থেকে শুরু হওয়া ফাইটে ভালো কিছু আশা করতে পারি।’