img

বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে বাসের ধাক্কায় বাবা-মেয়ে নিহত

প্রকাশিত :  ১২:৩৮, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১৪:২৪, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে বাসের ধাক্কায় বাবা-মেয়ে নিহত

ঢাকা- ভাঙ্গা বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়ের মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় অজ্ঞাত বাসের ধাক্কায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেল আরোহী বাবা ও মেয়ে নিহত হয়েছেন।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার হাসাড়া ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- বরিশাল রমজান কাঠি এলাকার আব্দুল হাকিমের ছেলে কামাল হোসেন (৩০) ও তার শিশু  কন্যা মারিহা মাহি (১০)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, অজ্ঞাত বাস পেছন থেকে ধাক্কা দিলে মাওয়াগামী মোটরসাইকেলটি দুমড়ে মুচরে যায়। এতে মোটরসাইকেলে থাকা বাবা-মেয়ে মহাসড়কে ছিটকে পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। সংবাদ পেয়ে শ্রীনগর ফায়ার সার্ভিস ও হাসাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। 

শ্রীনগর হাসাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ কাঞ্চন কুমার সিংহ জানান, ঘাতক বাসটিকে আটকের চেষ্টা চলছে।

img

স্ত্রীকে মাংস কিনে খাওয়াতে না পারায় স্বামীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত :  ১৮:৫৩, ১২ এপ্রিল ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১৯:১৩, ১২ এপ্রিল ২০২৪

স্ত্রীকে মাংস কিনে দিতে না পারায় আত্মহত্যা করেছেন হাসান আলী (২৬) নামে এক যুবক। ঘটনটি ঘটেছে জামালপুরের বকশীগঞ্জের বান্দের পাড় গ্রামে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান। 

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) সকালে উপজেলার বগারচর ইউনিয়নের বান্দের পাড় গ্রামের রহমত আলীর ছেলে প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার রাতে খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে যান। স্ত্রী বাড়ি ছিলেন না। শুক্রবার শ্বশুরবাড়ি থেকে স্ত্রী আফরোজা বেগমকে নিয়ে আসার কথা ছিল হাসানের। বেলা ১১টা পর্যন্ত শ্বশুরবাড়িতে না যাওয়ায় তার স্ত্রী আফরোজা বেগম পাশের গ্রাম জোলাপাড়া থেকে স্বামী হাসানের বাড়িতে যান এবং ঘরের দরজা বন্ধ দেখতে পান। এ সময় তিনি ঘরের বেড়ার ফাঁক দিয়ে হাসান আলীকে ঘরের ভেতর ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে চিৎকার শুরু করেন। তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে।

এ সময় মরদেহের পাশে একটি চিরকুট পাওয়া যায়। হাসান আলীর চিরকুটের ব্যাপারে পুলিশ জানায়, স্ত্রী-কে মাংস কিনে খাওয়াতে না পারায় তিনি মনকষ্টে আত্মহত্যা করেছেন। স্ত্রীকে তিনি খুব ভালোবাসেন, বাবা-মা যেন তার স্ত্রীকে দেখে রাখেন, এমন অনুরোধের কথাও লিখেছেন তিনি।
বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান জানান, পরিবারের আপত্তি না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।