img

কবে মাঠে ফিরবেন মেসি, জানালেন মায়ামি কোচ

প্রকাশিত :  ১০:৪৮, ৩০ মার্চ ২০২৪

কবে মাঠে ফিরবেন মেসি, জানালেন মায়ামি কোচ

হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে মাঠের বাইরে রয়েছেন লিওনলে মেসি। চোটের কারণে চলতি মাসের অর্ধেক সময় দর্শক হিসেবেই কেটেছে আটবারের ব্যালন ডি\'অর জয়ী এই  সুপারস্টারের।

রোববার (৩১ মার্চ) মেজর লীগ সকারের (এমএলএস) ম্যাচে নিউইয়র্ক সিটির বিপক্ষে খেলতে পারবেন না মেসি। ভক্ত-সমর্থকদের প্রশ্ন, চোট সারিয়ে কবে মাঠে ফিরবেন লিও? সেই উত্তর দিয়েছেন ইন্টার মায়ামির সহকারী কোচ জাভিয়ের মোরালেস। 

গত ১৪ই মার্চ কনকাকাফ চ্যাম্পিয়নস কাপে নাশভিলেকে ৩-১ গোলে হারায় ইন্টার মায়ামি। দলের দাপুটে জয়ে একটি করে গোল এবং অ্যাসিস্ট করেন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে পড়ে মাঠ ছাড়েন আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। এরপর মায়ামির তিন ম্যাচে অনুপস্থিত মেসি। আন্তর্জাতিক বিরতিতে খেলতে পারেননি আর্জেন্টিনার দুই ম্যাচ। এমএলএসে নিউইয়র্ক সিটির মুখোমুখি হওয়ার আগে ইন্টার মায়ামির সহকারী কোচ জাভিয়ের মোরালেস বলেন, ‘লিও ফিজিওদের সঙ্গে কাজ করছেন। সে আগামীকালের ম্যাচেও খেলতে পারবেন না।’  আগামীকাল ভোর সাড়ে পাঁচটায় মুখোমুখি হবে ইন্টার মায়ামি ও নিউইয়র্ক সিটি।

আগামী ৪ঠা এপ্রিল ভোরে কনকাকাফ চ্যাম্পিয়নস কাপের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে সিএফ মন্টেরিকে আতিথ্য দেবে ইন্টার মায়ামি।

সেই ম্যাচে মেসিকে পাওয়ার আশাতেই তার বিশ্রাম বাড়িয়ে দিয়েছে মায়ামি। কোচ মোরালেস বলেন, ‘নিউইয়র্ক সিটি ম্যাচে মেসি খেলবে না কারণ সে বুধবার মন্টেরির বিপক্ষে ফেরার চেষ্টায় রয়েছে।’ 

পিএসজি ছেড়ে গত জুনে ইন্টার মায়ামিতে যোগ দেন লিওনেল মেসি। আর্জেন্টাইন সুপারস্টারের আগমনে পাল্টে গেছে মায়ামির পারফরম্যান্স। মেসির নেতৃত্বে ২০২৩ সালে নিজেদের ইতিহাসের প্রথম শিরোপা লীগস কাপ জেতা হেরন’রা আর্জেন্টিনা অধিনায়কের খেলা ১৯টি ম্যাচের ১৫টিই জিতেছে।

খুলনাকে হারিয়ে প্রথম জয়ের স্বাদ নিল সিলেট

টি-20 বিশ্বকাপ

img

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দাপুটে জয় ইংল্যান্ডের

প্রকাশিত :  ০৯:০১, ২০ জুন ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার এইটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৪ উইকেটে ১৮০ রানের জবাবে ১৫ বল হাতে রেখে ২ উইকেটে ১৮১ তুলে জয় নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন স্যামি জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিতে ক্যারিবিয়ানদের ব্যাটিংয়ে পাঠান ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার ব্রান্ডন কিং ও জনসন চার্লস।

তবে দলীয় ৪০ রানে ১৩ বলে ২৩ রান করে রিটার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান কিং। এরপর নিকোলাস পুরানকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন জনসন। জনসন ৩৪ বলে ৩৮ ও পুরান ৩২ বলে ৩৬ রান করেন 

মাঝে অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল ১৭ বলে ৩৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। শেষ দিকে শেরফান রাদারফোর্ডের ২৫ বলে ২৮ রানে ভর করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

১৮১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ইংলিশ ওপেনার ফিল সল্ট ও জস বাটলার। উদ্বোধনী জুটিতে ৬৭ রান যোগ করেন এই দুই ব্যাটার। 

তবে এরপর দ্রুতই জোড়া উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। বাটলার ২২ বলে ২৫ ও মঈন আলি ১০ বলে ১৩ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। তাদের বিদায়ের পর জনি বেয়ারস্টোকে সঙ্গে নিয়ে ক্যারিবিয়ান বোলারদের ওপর চড়াও হন সল্ট।

আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নেন সল্ট। এই দুই ব্যাটারের ব্যাটে ১৫ বল হাতে রেখে ৮ উইকেটের জয় পায় ইংল্যান্ড। ক্যারিবিয়ানদের পক্ষে আন্দ্রে রাসেল ও রস্টন চেজ নেন ১টি করে উইকেট।