img

‘আমায় কেন কারও স্ত্রীর পরিচয়ে পরিচিত হতে হবে’

প্রকাশিত :  ১০:৫২, ৩১ মার্চ ২০২৪

‘আমায় কেন কারও স্ত্রীর পরিচয়ে পরিচিত হতে হবে’

কারও স্ত্রীর পরিচয়ে পরিচিত হতে চান না অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওটিটি প্লেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মিথিলা বলেছেন, সৃজিতের সদ্য একটি সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। ‘অতি উত্তম’ সিনেমার প্রচারে বা সাক্ষাৎকারে ওকে কেউ আমার বিষয়ে, ওর বিবাহিত জীবনের বিষয়ে প্রশ্ন করেনি।

কিন্তু আমায় করে। এই এক জিনিস মায়ার প্রমোশনের সময়ও হয়েছিল। বাংলাদেশেও সবাই সৃজিতকে ভারতের পরিচালক হিসেবে চেনে। আর আমি ওর স্ত্রী। এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যের।

আমি আন্তর্জাতিক স্তরে কাজ করি, পিএইচডি করছি, অভিনেত্রীও। সেগুলো যথেষ্ট নয় আমার পরিচয়ের জন্য? আমায় কেন কারো স্ত্রীর পরিচয়ে পরিচিত হতে হবে?

সৃজিত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সৃজিত আমাকে চমক দিতে কখনোই ভোলে না। আমি উলুপির কথা জানতাম। কিন্তু এখন এসে দেখলাম একটা নয়, আরো তিনটি বল পাইথন আছে।

মিথিলা বলেন, সত্যি বলতে- আমি পাইথন বা সাপের একেবারেই ভক্ত নই। তাই আমি নিশ্চিত নই যে গোটা বিষয়টায় আমি কেমন ফিল করতে চলেছি। কিন্তু আমি সৃজিতকে বাধাও দেইনি।

সৃজিতের সঙ্গে কি ঝামেলা চলছে মিথিলার? এমন প্রশ্নের জবাবে অভিনেত্রী জানান, এসব একেবারেই ভুল কথা। তিনি এবং তার মেয়ে ঢাকায় থাকেন।

কারণ সেখানে থেকে তার কাজ করতে সুবিধা হয়। সেখানে তার পরিবার আছে। এখানে এলে অনেক সময় সৃজিত বাইরে থাকে।

img

‘যেখানেই যাচ্ছি অনেক প্রশংসা পাচ্ছি’

প্রকাশিত :  ১০:২৪, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

জনপ্রিয় ইপস্থাপক হানিফ সংকেতের ‘ইত্যাদি’র গানগুলোর কথা, সুর, শিল্পী নির্বাচন ও চিত্রায়ণ বেশ ব্যতিক্রমী হয়। সেই ধারাবাহিকতায় গেল রোজার ঈদের পর্বে একটি গানে কণ্ঠ দেন তাহসান খান ও তাসনিয়া ফারিণ।পেশাদার সংগীতশিল্পী না হয়েও তাহসানের সঙ্গে খুব চমৎকারভাবেই গানটি গেয়েছেন ফারিণ।

অভিনয়ে জনপ্রিয় ফারিণের টিভিতে গাওয়া এটিই প্রথম গান। প্রথম গানেই মাত করে দিয়েছেন তাসনিয়া ফারিণ। সামাজিক মাধ্যমে তাসনিয়া ফারিণের প্রশংসা করছেন নেটিজেনরা।

এ বিষয়ে ফারিণ নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সত্যিই আপনাদের ভালোবাসায় আমি অভিভূত। গানটি এত এত ভালোবাসা পাবে, সেটা ভাবিনি। অনেক রিলস-ভিডিওর পাশাপাশি যেখানেই যাচ্ছি, অনেক প্রশংসা পাচ্ছি। অনেক কৃতজ্ঞতা।’ 

‘রঙে রঙে রঙিন হব’ শিরোনামে তাহসান-ফারিনের গাওয়া এ গানটির কথা লিখেছেন কবির বকুল এবং সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন ইমরান মাহমুদুল।