img

জগন্নাথপুর উপজেলা উন্নয়ন সংস্থা ইউকের ইফতারপূর্ব আলোচনায় ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট গড়ে তোলার তাগিদ

প্রকাশিত :  ০২:৪৩, ০৩ এপ্রিল ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১৭:২৪, ০৪ এপ্রিল ২০২৪

জগন্নাথপুর উপজেলা উন্নয়ন সংস্থা ইউকের ইফতারপূর্ব আলোচনায় ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট গড়ে তোলার তাগিদ

মুহাম্মদ শাহেদ রাহমানঃ পূর্ব লন্ডনের নিউরোডে স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টের হলরুমে জগন্নাথপুর উপজেলা উন্নয়ন সংস্থা উদ্যোগে ইফতারপূর্ব আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

২ এপ্রিল মঙ্গলবার বিকেলে জগন্নাথপুর উপজেলা উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র চন্দন মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক অধ্যাপক সৈয়দ আশফাক আহমেদের সঞ্চালনায় পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত করেন ফয়জুর রহমান সমির।

ইফতার পূর্ব আলোচনায় বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক মেধাবী শিক্ষার্থী, জগন্নাথপুরের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক, সংগঠনের উপদেষ্টা কাউন্সিলর হুমায়ুন কবির, উপদেষ্টা আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইলিয়াস, উপদেষ্টা আলহাজ্ব মন্তাজ আলী, উপদেষ্টা জিল্লুর রহমান জিলু, ভাইস প্রেসিডেন্ট বশির মিয়া, কাউন্সিলর তোফাজ্জল হুসাইন, সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব, সাবেক সেক্রেটারি শফিউল আলম বাবু প্রমুখ।

সভায় বক্তারা সংগঠনের বিগত দিনের বিভিন্ন কার্যক্রমের প্রশংসা করেন। পরে ইফতার পূর্ব  বিশেষ মোনাজাতে দেশ জাতির কল্যাণ কামনা করা হয়।


সভায় বক্তারা বলেন, “বিলেতে এই সংগঠন প্রাচীনতম সংগঠন হিসেবে দেশে বিদেশে কল্যাণমূলক কাজ করে যাচ্ছে, ভবিষ্যতেও করে যাবে।”

আগামীতে শর্টটাইম উন্নয়নমূলক প্রজেক্টের পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নেওয়ার উপর গুরুত্ব আরোপ করে বক্তারা বলেন, জগন্নাথপুরে ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট বা কারিগরী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে হবে। যা আগামী প্রজন্মকে কারিগরি শিক্ষায়, দক্ষ জনশক্তিকে রূপান্তরিত করতে সহায়ক হবে। এসব প্রজেক্ট গ্রহণ করতে অর্থ কোন ব্যাপার না, শুধু প্রয়োজন মহৎ উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে আসা।”




কমিউনিটি এর আরও খবর

img

নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট সম্মাননা পেলেন গোলাম ফারুক শাহীন

প্রকাশিত :  ১১:১১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪

কমিউনিটি সার্ভিস, নান্দনিক ও মানবিক কাজের জন্য সম্মাননা পেয়েছেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশী কমিউনিটি এক্টিভিস্ট গোলাম ফারুক শাহীন। গত এক দশকের বেশী সময় নানাভাবে কমিউনিটির মানুষের জন্য কাজ করছেন এই সংগঠক। কোভিড থেকে শুরু করে রমজান এবং বিভিন্ন সময় কমিউনিটির মানুষের জন্য নিরলসভাবে কাজ করায় এবার নিউইয়র্ক স্টেট সিনেট  লংআইল্যানড এলাকার নিউইয়র্কের ফোর্থ সিনেট ডিস্ট্রিক্টের সিনেটর মনিকা আর মার্টিনেজের পক্ষ থেকে সম্মাননা দেয়া হয়েছে গোলাম ফারুক শাহীনকে। খবর বাপসনিঊজ ।

নিউইয়র্কের লংআইল্যান্ডের হাগপ্যাক সিটিতে নিউইয়র্ক স্টেট বিল্ডিংয়ে আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে এই সম্মাননা তুলে দেয়া হয়। কমিউনিটিতে অবদান রাখায় লং আইল্যান্ডের সাফোক কাউন্টিতে প্রথমবারের মত কোন বাংলাদেশী নিউইয়র্ক স্টেটের এমন সম্মাননা পেয়েছেন।

উল্লেখ্য, কোভিডের সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কমিউনিটির মানুষকে সেবা দিয়েছিলেন গোলাম ফারুক শাহীন। তাছাড়া প্রতিবারই তিনি পবিত্র রমজানে লংআইল্যান্ডের ব্যাবিলন সিটিতে বিপুল সংখ্যক মানুষের জন্য ইফতারের আয়োজন করে থাকেন গোলাম ফারুক শাহীন ও তাঁর সংগঠন। সেই ধারাবাহিকতায় এবারো পবিত্র রমজানে মুসল্লীদের জন্য ইফতারের আয়োজন করেছেন।

জাতিসংঘের বিভিন্ন কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখছেন তিনি। এসব কাজের স্বীকিৃত স্বরুপ তাঁকে এই সম্মাননা দেয়া হয়েছে। নিউইয়র্ক স্টেট বিল্ডিংয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ডিরেক্টর অব ডিস্ট্রিক্ট অপারেশন্স এন্ড প্রোগ্রামস মিস আডিনা বিডেনবেন্ডার। এই সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিনেটরের সহকর্মীবৃন্দ।

এমন অসাধারণ মুহুর্তে সবার কাছ থেকে অভিনন্দিত হয়েছেন গোলাম ফারুক শাহীন। এক প্রতিক্রিয়ায় এই সম্মাননা পর গোলাম ফারুক শাহীন জানান, এই সম্মাননা পাওয়ার পর দায়িত্ব বেড়ে গিয়েছে। ভবিষ্যতে আরো মানবিক কাজ করুতে অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে এই সম্মাননা।

এর আগে সেন্সাস অর্থাৎ আদম সুমারীর কাজও করেছেন তিনি। মসজিদে মসজিদে গিয়ে মুসলমানদের নাম অর্ন্তভূক্ত করেছেন। এছাড়া বাংলাদেশী কমিউনিটির উদ্যেগে ফ্রি ফুড বিতরন করেছেন। লংআইল্যান্ড বাংলাদেশীদের প্রথম ফেসটিভ্যাল উপলক্ষ্যে চমৎকার স্মরনিকা প্রকাশিত হয় “হদয়ে লাংআইল্যান্ড নামে। এর সম্পাদক  ছিলেন গোলাম ফারুক শাহীন। প্রতি বছর বাংলাদেশীসহ বিভিন্ন কমিউনিটির মানুষ নিয়ে স্ট্রিট ফেয়ার করে থাকেন গোলাম ফারুক শাহীন।

কমিউনিটি এর আরও খবর