img

মোজাম্বিকে ফেরিডুবিতে নিহত ছাড়াল ১০০, নিখোঁজ এখনো ২০

প্রকাশিত :  ০৫:২৬, ০৯ এপ্রিল ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ০৫:৩৫, ০৯ এপ্রিল ২০২৪

মোজাম্বিকে ফেরিডুবিতে নিহত ছাড়াল ১০০, নিখোঁজ এখনো ২০

আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিকে ফেরি ডুবির ঘটনায় নিহতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গেছে। এ ঘটনায় এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ২০ জন। 

মঙ্গলবার (৯ এপ্রিল) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মোজাম্বিকের উত্তর উপকূলে ফেরি বোট ডুবে ১০০ জনেরও বেশি লোক মারা গেছেন বলে দেশটির প্রেসিডেন্ট ফিলিপ ন্যুসি সোমবার জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এই ঘটনায় প্রায় ২০ জন এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

আফ্রিকার এই দেশটির মেরিটাইম ট্রান্সপোর্ট ইনস্টিটিউটের (ইন্ট্রাসমার) একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ১৩০ জন যাত্রী বহনকারী এই নৌযানটি আসলে একটি ওভারলোডেড ফিশিং বোট ছিল এবং এতে যাত্রী পরিবহনের লাইসেন্স ছিল না।

আরও পড়ুন :মোজাম্বিকে নৌকা ডুবে প্রাণ গেল ৯০ জনের

ইন্ট্রাসমার-এর প্রশাসক লোরেঙ্কো মাচাদো রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বলেছেন, গত রোববার এই ফেরিটি নামপুলা প্রদেশের লুঙ্গা থেকে মোজাম্বিক দ্বীপে লোকেদের নিয়ে যাচ্ছিল। প্রাথমিক প্রতিবেদনে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে, জোয়ারের ঢেউয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে এটি ডুবে গেছে।

নামপুলা প্রদেশের সেক্রেটারি অব স্টেটের অফিস এক বিবৃতিতে বলেছে, যাত্রীরা কলেরা প্রাদুর্ভাবের কারণে পালিয়ে যাচ্ছিল বলে জানা গেছে। দুর্ঘটনার পর ১০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে এবং প্রায় ২০ জন এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

প্রেসিডেন্ট ফিলিপ ন্যুসি বলেছেন, তিনি এই ট্র্যাজেডিতে দুঃখ পেয়েছেন এবং তদন্তের জন্য আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলীয় এই দেশটির পরিবহন মন্ত্রীকে দ্বীপে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। তার অফিস বলেছে, ‘মোজাম্বিক সরকার পরিস্থিতি মূল্যায়ন করতে আগামীকাল বৈঠক করবে এবং এই ঘটনার প্রভাব কমানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।’

রয়টার্সের হাতে আসা বেশ কিছু ভিডিওতে দেখা গেছে, একটি সৈকতে অনেক লাশ পড়ে আছে এবং কিছু লোক শিশুদের লাশ বহন করছে।

উল্লেখ্য, মোজাম্বিক এবং আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের অন্যান্য দেশ গত বছর থেকে কলেরার প্রাদুর্ভাবের সম্মুখীন হয়েছে। মোজাম্বিকের সরকারি তথ্য অনুযায়ী, গত বছরের অক্টোবর থেকে দেশটিতে ১৫ হাজার ৫১ জন কলেরায় আক্রান্ত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৩২ জন মারা গেছেন।

আর গত রোববার পর্যন্ত, দেশটির নামপুলা প্রদেশে ৫ হাজার ৮৪ জন কলেরায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১২ জন মারা গেছেন।

img

ইসরাইল অভিমুখী জাহাজ ডুবে যাওয়ার ভিডিও প্রকাশ করল হুথি বাহিনী

প্রকাশিত :  ১০:১৪, ২০ জুন ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১০:৩৫, ২০ জুন ২০২৪

ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনী ইসরাইল অভিমুখী একটি জাহাজে তাদের ভয়াবহ হামলার ভিডিও প্রকাশ করেছে। জাহাজটি ইয়েমেনের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে লোহিত সাগর দিয়ে ইসরাইলের বন্দরে প্রবেশের চেষ্টা করছিল।  টিউটর নামে গ্রিসের ইভ্যালেন্ট শিপিং কোম্পানির একটি জাহাজ এক সপ্তাহ আগে ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর ভয়াবহ হামলার শিকার হয়। ওই হামলা এবং ডুবে যাওয়ার ভিডিও গতকাল (বুধবার) প্রকাশ করেছে হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলন সমর্থিত সামরিক বাহিনী।

লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী, গ্রিক মালিকানাধীন ও পরিচালিত বাল্ক ক্যারিয়ারটি এক সপ্তাহ আগে হুথি বাহিনীর ভয়াবহ হামলার শিকার হয়। ওই হামলা এবং ডুবে যাওয়ার ভিডিও বুধবার প্রকাশ করেছে হুথি বাহিনী।  

জাহাজটি ইয়েমেনের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে লোহিত সাগর দিয়ে ইসরাইলের বন্দরে প্রবেশের চেষ্টা করছিল বলে দাবি করেছে গোষ্ঠীটি। ফুটেজে দেখা যায়, লোহিত সাগর দিয়ে ইসরাইলের দিকে যাওয়ার সময় দুটি ড্রোন-বোট জাহাজটিতে আঘাত করে। এর ফলে জাহাজটি ডুবে যায়।  

দি টিউটর নামে ওই জাহাজটির ডুবে যাওয়া বিদ্যমান পরিস্থিতিতে উত্তেজনা আরও বাড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, হামলায় এক ক্রু নিহত হয়েছেন, তিনি ফিলিপাইনের নাগরিক।

গত নভেম্বর থেকে হুথিরা ওই এলাকা দিয়ে চলাচলকারী অর্ধশতাধিক হামলা চালিয়েছে। তারা একটি জাহাজ দখল করেছে, দুটি ডুবিয়ে দিয়েছে বলে মার্কিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। মার্কিন নেতৃত্বাধীন কোয়ালিশন হুথিদের বিরুদ্ধে ব্যাপক বোমা হামলা চালিয়ে যাচ্ছে।

কিন্তু তবুও তাদের হামলা বন্ধ করা যাচ্ছে না। হুথিরা দাবি করছে, ইসরাইল যতক্ষণ না গাজায় হামলা বন্ধ করবে, ততক্ষণ তারা এই হামলা বন্ধ করবে না।