img

হ্যাকারদের কবলে রুক্মিণী মৈত্র

প্রকাশিত :  ১২:৩২, ১৫ এপ্রিল ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১৫:১১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪

হ্যাকারদের কবলে রুক্মিণী মৈত্র

হ্যাকারদের কবলে রুক্মিণী মৈত্রের ফেসবুক প্রোফাইল। ইনস্টাগ্রামে এমন কথা নিজেই জানিয়েছেন অভিনেত্রী। এক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘আমার ফেসবুক প্রোফাইল সম্ভবত হ্যাক করা হয়েছে। সকাল থেকে এই বিষয়ে প্রচুর মেসেজ পেয়েছি। আমার টিম সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করছে।’

উল্লিখিত পোস্টের ঠিক দু’ঘণ্টা ব্যবধানে আরও একটি পোস্ট করেন অভিনেত্রী। সেখানে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা লিখেছেন তিনি। লিখেন, আপনাদের সকলকে জানানো হচ্ছে, আমার ফেসবুক পেজ থেকে অথবা আমার ছবি দেওয়া নিশা নামের কোনও আইডি থেকে যোগাযোগ করা হলে দয়া করে কেউ উত্তর দেবেন না। এখনও আমার প্রোফাইল উদ্ধারের কাজ চলছে।

দু’দিন আগে ‘বুমেরাং’ ছবি সংক্রান্ত শেষ পোস্ট ছিল অভিনেত্রীর প্রোফাইলে। তার পরে শনিবার অস্পষ্ট কিছু লেখা ও ছবি দিয়ে মোট পাঁচটি পোস্ট করা হয়েছে প্রোফাইলে। যা থেকে কার্যত স্পষ্ট , অভিনেত্রীর প্রোফাইল হ্যাক করা হয়েছে।

img

শুধু অপেক্ষায় আছি জুনের মাঝামাঝি পর্যন্ত : নিপুণ

প্রকাশিত :  ০৯:০৬, ২৪ মে ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রে বসে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নব নির্বাচিত কমিটির ঘুম হারাম করে দিয়েছেন নিপুণ। এবার সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানালেন দেশে ফিরে বের করে দেবেন থলের বিড়াল। 

নিপুণ বলেন, ‘নির্বাচনের আগে ঢাকার তাঁতিবাজারের মুকুট জুয়েলার্সে ১৩ লাখ টাকার গয়না বিক্রি করেছি। গয়নাগুলো ছিল আমার খুব শখের। এফডিসিকে কতটা ভালোবাসি এবার ভাবুন! একজন মেয়ে প্রয়োজনে তাঁর অন্যান্য প্রিয় জিনিস বিক্রি করে; কিন্তু সহজে গয়না হাত ছাড়া করে না। নির্বাচনে প্রতিদিন আমার কর্মীরা প্রচার-প্রচারণায় খেটেছেন, কাজ করেছেন, পোস্টার-ব্যানার করতে হয়েছে বলেই এ খরচটা করতে হয়েছে। আমি কাউকে একটা টাকাও দিইনি ভোট কেনার জন্য। পারলে উনারা তাঁতিবাজারে গিয়ে মুকুট জুয়েলার্সে খোঁজ নিয়ে দেখুক। দেশে ফেরার পর আরও অনেক প্রমাণ দেব। শুধু অপেক্ষায় আছি জুনের মাঝামাঝি পর্যন্ত। তখন দেশে ফিরে থলের বিড়াল বের করে দেব।’

২২ মে এফডিসিতে ব্যানার নিয়ে মিছিল করেছেন শিল্পী সমিতির কয়েকজন সদস্য। তারা প্রশ্ন তুলেছেন, নিপুণ এত টাকা কোথায় পান? সে প্রশ্নের জবাবের জো বাইডেনের দেশে বসে কথাগুলো বলেন নায়িকা। 

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২৪-২৬ মেয়াদের নির্বাচন হয়। উৎসবমুখর পরিবেশে ৫৭০ জনের মধ্যে ৪৭৫ জন শিল্পী ভোট দেন। মাহমুদ কলি-নিপুণকে পরাজিত করে নির্বাচনে জয়লাভ করেন মিশা সওদাগর-ডিপজল। এর মাস খানেক পর নির্বাচন বাতিল চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট করেছেন পরাজিত সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নাসরিন আক্তার নিপুণ।