img

ফেসবুক মেমোরিজ বন্ধ রাখবেন যেভাবে

প্রকাশিত :  ১২:১৪, ৩০ এপ্রিল ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৮, ৩০ এপ্রিল ২০২৪

ফেসবুক মেমোরিজ বন্ধ রাখবেন যেভাবে

বিশ্বের জনপ্রিয় যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। এর মেমোরিজ বিভাগে নির্দিষ্ট দিনে আগের প্রকাশ করা পোস্টসহ বন্ধুদের ট্যাগ করা বিভিন্ন পোস্ট দেখা যায়। এগুলো অনেক সময় পুরোনো দিনের স্মৃতি মনে করিয়ে দেয়। যা মাঝেমধ্যে বিব্রতকর পরিস্থিতিও তৈরি করে। তবে আপনি চাইলে ফেসবুকের মেমোরিজ সুবিধা বন্ধ রেখে এ সমস্যার সমাধান করতে পারেন।

চলুন দেখে নেওয়া যাক কীভাবে ফেসবুক মেমোরিজ বন্ধ রাখবেন: 

১. মেমোরিজ সুবিধা বন্ধের জন্য প্রথমে ফেসবুক অ্যাপে প্রবেশ করতে হবে।

২. এরপর ওপরের ডানদিকে থাকা প্রোফাইল ছবিতে ট্যাপ করুন।

৩. এবার মেমোরিজ ট্যাবে ক্লিক করে পরের পৃষ্ঠার ওপরে থাকা সেটিংস আইকনে ট্যাপ করতে হবে।

৪. তারপর নোটিফিকেশনস অপশন থেকে ‘অল মেমোরিস’ নির্বাচন করলে সব মেমোরিজ পোস্ট দেখা যাবে।

৫. এরপর ‘হাইলাইটস’ থেকে ‘নান’ অপশন নির্বাচন করলেই মেমোরিজে কোনো পোস্ট প্রদর্শন করবে না ফেসবুক। আপনি চাইলে নির্দিষ্ট ব্যক্তি, দিন ও কি–ওয়ার্ডসংবলিত ফেসবুক পোস্ট প্রদর্শনও বন্ধ করতে পারবেন।


img

পৃথিবীর দুই মেরুর অবস্থান কি বদলাচ্ছে

প্রকাশিত :  ১২:১৬, ১৩ জুন ২০২৪

পৃথিবীর উত্তর মেরু আর দক্ষিণ মেরু নিয়ে অনেকেই অনেক কিছু জানি। সেই মেরুর অবস্থান বদলে যাওয়ার কথা জানিয়েছে বিজ্ঞানীরা। সাধারণভাবে উত্তর মেরু প্রতিবছর প্রায় ১৫ কিলোমিটার গতিতে জায়গা বদল করে। ৯০ দশক থেকে এই গতি বেড়েছে। উত্তর মেরু এখন সাইবেরিয়ার দিকে প্রতিবছর প্রায় ৪৫ কিলোমিটার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। বিজ্ঞানীরা চৌম্বকক্ষেত্রের বিপরীত অবস্থান সম্পর্কে পূর্বাভাস দিয়েছে। এই অবস্থায় পৃথিবীর চৌম্বকীয় উত্তর ও দক্ষিণ মেরু অবস্থান পরিবর্তন করে।

আমরা জানি, পৃথিবীর একটি তরল গলিত কেন্দ্র আছে। সেই কেন্দ্রের বাইরে পুরোটাই লোহা ও নিকেল দ্বারা গঠিত। কেন্দ্র উত্তর ও দক্ষিণ মেরুর মাধ্যমে বিস্তৃত একটি বিদ্যুৎ-চৌম্বকীয় ক্ষেত্র তৈরি করে। এর মাধ্যমে পৃথিবী ক্ষতিকর সৌরকণার বিকিরণ থেকে  রক্ষা পায়। পৃথিবীর চৌম্বকক্ষেত্রের যে শক্তি তা নানা কারণে ওঠানামা করে। সৌরঝড়ের কারণে ভূ-চৌম্বকীয় ক্ষেত্র স্থির থাকে। এতে উপগ্রহ, বিমান, জাহাজ ও গাড়ির নেভিগেশন যন্ত্রে সমস্যা তৈরি হয়। সাম্প্রতিক বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে চৌম্বকক্ষেত্রের বাঁকবদলের কারণে মেরুর আচরণ বদলে যাচ্ছে। ‘জিওফিজিক্যাল রিসার্চ: স্পেস ফিজিকস’ জার্নালে মেরুর আচরণ নিয়ে একটি গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে।

নিম্ন থেকে মাঝারি মাত্রার ভূ-চৌম্বকীয় অবস্থার মধ্যে পার্থক্য বোঝার চেষ্টা করে গবেষকরা। প্রায় ৯৮ শতাংশ এলাকাজুড়ে এমন ধরনের ভূ-চৌম্বকীয় প্রভাব থাকে। পৃথিবীর ওপর থেকে উপগ্রহ পর্যবেক্ষণ বিশ্লেষণ করা হয়। পৃথিবীর চৌম্বক মেরুতে বিভিন্ন পরিবর্তন এসব উপগ্রহ পর্যবেক্ষণ করে। নতুন তথ্য বলছে, উত্তর মেরু প্রতিবছর প্রায় ৪৫ কিলোমিটার উত্তর-উত্তর পশ্চিমে স্থানান্তরিত হচ্ছে।

বিজ্ঞানীদের একজন বলেছে, ‘আমরা সব সময় উত্তর ও দক্ষিণ মেরু অঞ্চলকে স্থির মনে করি। প্রতিসাম্য চৌম্বকীয় ক্ষেত্র বলে অনুমান করি। আসলে দুই মেরু বেশ আলাদা। উত্তর মেরুর অবস্থান প্রায় ৮৪ ডিগ্রি চৌম্বক অক্ষাংশ থেকে ১৬৯ ডিগ্রি চৌম্বক দ্রাঘিমাংশ। দক্ষিণ মেরুর অবস্থান মাইনাস ৭৪ ডিগ্রি থেকে ১৯ ডিগ্রি চৌম্বক দ্রাঘিমাংশ। সোয়ার্ম স্যাটেলাইটের তথ্য বলছে, মেরু চৌম্বকক্ষেত্র গত এক দশক বা তারও বেশি সময় ধরে দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। চৌম্বকক্ষেত্রের নড়াচড়ার কারণে অনেক জটিলতা তৈরি হতে পারে। আমরা যে জিপিএস ব্যবহার করি তা সঠিকভাবে কাজ নাও করতে পারে।