img

হলো না হোয়াইটওয়াশ, ৮ উইকেটের হার বাংলাদেশের

প্রকাশিত :  ০৮:৫১, ১২ মে ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ০৮:৫২, ১২ মে ২০২৪

হলো না হোয়াইটওয়াশ, ৮ উইকেটের হার বাংলাদেশের

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ ম্যাচটা তাই কেবল ‘হোয়াইট ওয়াশ' উপলক্ষ। হলো না হোয়াইটওয়াশ, ৮ উইকেকেটে হারলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

আজ সিকান্দার রাজাদের হারাতে পারলেই টি-টোয়েন্টিতে আরো একবার ধবলধোলাইয়ের কীর্তি গড়বে টাইগাররা। তবে এমন ম্যাচে টপ অর্ডারদের ব্যর্থতার দিনে মিডেল অর্ডারের ব্যাটে চড়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৭ রান সংগ্রহ পায় টাইগাররা। সেই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে সিকান্দার রাজা ও ব্রায়ান বেনেটের ব্যাটিং তান্ডবে ৯ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটের জয় পায় জিম্বাবুয়ে।   

বাংলাদেশের দেওয়া ১৫৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলকে দারুণ সূচনা এনে দেন ব্রায়ান বেনেট ও তাদিওয়ানশে মারুমানি। এই দুই জনের ব্যাটে ৩৮ রান যোগ করে সফরকারীরা। এরপর মারুমানি সাজঘরে ফিরলে ভাঙে এই জুটি। প্যাভিলিয়নের পথ ধরার আগে ১ রান করেন তিনি। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে সিকান্দার রাজাকে সঙ্গে নিয়ে দলকে এগিয়ে নেন বেনেট।

এই জুটিতে সফরকারীরা জয়ের ভিত পেয়ে যায়। যেখানে ৩৬ বলে ক্যারিয়ারের প্রথম অর্ধশতক পূরণ করেন বেনেট। দলীয় ১১৩ রানে আউট হাবার আগে ৭০ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। বেনেট আউট হলেও জিম্বাবুয়েকে বাকি পথ এগিয়ে নেন রাজা ও জনাথন ক্যাম্পবেল। 

শেষ পর্যন্ত ৯ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন রাজা ও ক্যাম্পবেল। রাজা ৭২ ও ক্যাম্পবেল ৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে সাকিব ও সাইফুদ্দিন নেন ১টি করে উইকেট। 

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে ধস নামে বাংলাদেশের। দ্বিতীয় ওভারে প্রথম উইকেট পড়ে টাইগারদের। পুল করতে গিয়ে আউট হন তানজিদ। তানজিদের পর সৌম্য, ৩ ওভার শেষ না হতেই দুই ওপেনার হারায় টাইগাররা। ব্রায়ান বেনেটের শর্ট লেংথের বল কাট করতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ক্যাচ তুলেছেন সৌম্য সরকার। তানজিদ, সৌম্যর পর হৃদয়ও কাট করতে গিয়ে হয়েছেন কট বিহাইন্ড।

এরপর মাহমুদউল্লাহর পাল্টা আক্রমণ। নাজমুল ও সাকিবের সঙ্গে জুটি। শেষে জাকের আলীর ঝড়। শেষ টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের গতিপথটা এমন। ১৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর নাজমুলকে নিয়ে মাহমুদউল্লাহ গড়েন ৬৯ রানের জুটি। মাহমুদউল্লাহ অবশ্য শেষ করে আসতে পারেননি। 

ক্যারিয়ারের অষ্টম ফিফটির পরপরই থামেন। তার আগে সাকিবকে নিয়ে যোগ করেন আরও ৩৯ রান। সাকিবের পর মাহমুদউল্লাহ দ্রুত ফেরায় শেষ দিকেও ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। জাকের আলীর ১১ বলে ২৪ রানের ক্যামিওতে শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের হয়ে বল হাতে সর্বোচ্চ ২টি করে উইকেট নেন মুজারাবানি ও বেনেট।


খুলনাকে হারিয়ে প্রথম জয়ের স্বাদ নিল সিলেট

টি-20 বিশ্বকাপ

img

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দাপুটে জয় ইংল্যান্ডের

প্রকাশিত :  ০৯:০১, ২০ জুন ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার এইটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৪ উইকেটে ১৮০ রানের জবাবে ১৫ বল হাতে রেখে ২ উইকেটে ১৮১ তুলে জয় নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন স্যামি জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিতে ক্যারিবিয়ানদের ব্যাটিংয়ে পাঠান ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার ব্রান্ডন কিং ও জনসন চার্লস।

তবে দলীয় ৪০ রানে ১৩ বলে ২৩ রান করে রিটার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান কিং। এরপর নিকোলাস পুরানকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন জনসন। জনসন ৩৪ বলে ৩৮ ও পুরান ৩২ বলে ৩৬ রান করেন 

মাঝে অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল ১৭ বলে ৩৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। শেষ দিকে শেরফান রাদারফোর্ডের ২৫ বলে ২৮ রানে ভর করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

১৮১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ইংলিশ ওপেনার ফিল সল্ট ও জস বাটলার। উদ্বোধনী জুটিতে ৬৭ রান যোগ করেন এই দুই ব্যাটার। 

তবে এরপর দ্রুতই জোড়া উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। বাটলার ২২ বলে ২৫ ও মঈন আলি ১০ বলে ১৩ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। তাদের বিদায়ের পর জনি বেয়ারস্টোকে সঙ্গে নিয়ে ক্যারিবিয়ান বোলারদের ওপর চড়াও হন সল্ট।

আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নেন সল্ট। এই দুই ব্যাটারের ব্যাটে ১৫ বল হাতে রেখে ৮ উইকেটের জয় পায় ইংল্যান্ড। ক্যারিবিয়ানদের পক্ষে আন্দ্রে রাসেল ও রস্টন চেজ নেন ১টি করে উইকেট।