img

তাসকিনকে নিয়ে ১৫ জনের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা

প্রকাশিত :  ০৮:৫৮, ১৪ মে ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১১:১২, ১৪ মে ২০২৪

তাসকিনকে নিয়ে ১৫ জনের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা

যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের যৌথ আয়োজনে আর মাত্র ১৮  দিন পর মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপের জন্যে স্কোয়াড ঘোষণা করে প্রায় সব দল গুলো। তবে বাংলাদেশ কবে দল ঘোষণা করবে সেই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছিল ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। অবশেষ সেই অপেক্ষার অবসান শেষ হয়েছে ২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। 

ইনজুরির কারণে তাসকিন আহমেদকে নিয়ে শঙ্কা থাকলেও শেষ পর্যন্ত স্কোয়াডে রাখা হয়েছে তাকে। এমনকি বিশ্বকাপে সহ-অধিনায়ক হিসেবে থাকছেন তাসকিন। চোট কাটিয়ে বিপিএল দিয়ে লাল সবুজ জার্সিতে প্রায় দেড় বছর পর জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়ে ফেরেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

তবে আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি এই অলরাউন্ডার। জিম্বাবুয়ে সিরিজে খরুচে বোলিংয়ের কারণেই মূলত বিশ্বকাপ দলে বিবেচনা করা হয়নি তাকে। বাড়তি পেসার হিসেবে দলের সঙ্গে যাচ্ছেন আরেক পেসার তানজিম হাসান সাকিব। এ ছাড়াও বিশেষজ্ঞ স্পিনার হিসেবে দলে আছেন তানভীর ইসলাম। 

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন শুরুর আগে বাংলাদেশ ক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। যার জন্য আগামী ১৫মে উড়াল দিবে টাইগাররা। সিরিজটি শুরু হবে আগামী ২১ মে। এরপর সিরিজের বাকি দুই ম্যাচ ২৩ ও ২৫ মে। সিরিজের সবগুলো ম্যাচই রাখা হয়েছে হিউস্টনের প্রেইরি ভিউতে। ম্যাচগুলো শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায়।

আর শান্তদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হবে ৮ জুন। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি হবে সকাল সাড়ে ৬টায়। ১০ জুন টাইগারদের প্রতিপক্ষ দক্ষীন আফ্রিকা। এই ম্যাচটি শুরু হবে রাত সাড়ে ৮টায়। দুটি ম্যাচ যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্রের ডালাস ও নিউইয়র্কে খেলবে বাংলাদেশ।

গ্রুপ পর্বের শেষ দুই ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজে খেলবে বাংলাদেশ। ১৩ জুন সেন্ট ভিনসেন্টে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। আর গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে একই ভেন্যুতে নেপালের বিপক্ষে খেলবে টাইগাররা। এই ম্যাচটি শুরুর সময় বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৫টায়।

বাংলাদেশর বিশ্বকাপ দল: নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), তাসকিন আহমেদ (সহ-অধিনায়ক), লিটন দাস, সৌম্য সরকার, তানজিদ হাসান তামিম, সাকিব আল হাসান, তাওহিদ হৃদয়, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, জাকের আলী, মোহাম্মদ তানভির ইসলাম, শেখ মাহাদি, রিশাদ হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম, তানজিম সাকিব।

রিজার্ভ ক্রিকেটার- আফিফ হোসেন, হাসান মাহমুদ।


 


img

হায়দরাবাদকে হারিয়ে আইপিএলের তৃতীয় শিরোপা কলকাতার

প্রকাশিত :  ১৮:৪০, ২৬ মে ২০২৪

পুরো আসরজুড়ে খরুচে বোলিং করে আসা কলকাতার পেসার মিচেল স্টার্ক কোয়ালিফায়ারের পর ফাইনালেও হয়ে উঠলেন দুর্বার। দাপট দেখালেন আন্দ্রে রাসেল, হার্শিত রানাসহ বাকিরাও। হায়দরাবাদকে অল্প রানে আটকে দাপুটে জয়ে আইপিএলের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট জিতে নিলো কলকাতা।

এর আগে ২০১২ ও ২০১৪ সালে গৌতম গম্ভীরের নেতৃত্বে দুইবার আইপিএলে চ্যাম্পিয়ন হয় বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খানের দল কেকেআর। এরপর ৮ বছর আইপিএলের শিরোপা জিততে পারেনি কেকেআর।

যে কারণে এবারের আসরে সাবেক অধিনায়ক গৌতম গম্ভীরকে কেকেআরের মেন্টরের দায়িত্ব দেন শাহরুখ খান। গৌতম গম্ভীরের পরামর্শে আইপিএলের ১৭তম আসরের শুরু থেকে অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্স করে সর্বোচ্চ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালে উঠে যায় কেকেআর। 

আজ রোববার চেন্নাইয়ের এমএ চিদাম্বরাম স্টেডিয়ামে হায়দরাবাদকে ১৮.৩ ওভারে মাত্র ১১৩ রানে অলআউট করে ৮ বছর পর আইপিএলের শিরোপা জিতে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

এদিন টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে আন্দ্রে রাসেল, মিচেল স্টার্ক ও হারসিত রানার গতির মুখে পড়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট পতনের কারণে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়তে পারেনি প্যাট কামিন্সের নেতৃত্বাধীন সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২৪ রান করেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক কামিন্স। ২৩ বলে ২০ রান করেন এইডেন মার্করাম।

কলকাতার হয়ে ২.৩ ওভারে ১৯ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন ক্যারিবীয় তারকা অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল। ৩ ওভারে মাত্র ১৪ রানে ২ উইকেট নেন অস্ট্রেলিয়ান তারকা পেসার মিচেল স্টার্ক। ৪ ওভারে ২৪ রানে ২ উইকেট নেন ভারতীয় পেসার হারসিত রানা।

১২০ বলে ১১৩ রানের মামুলি স্কোর তাড়া করতে নেমে ১.২ ওভারে দলীয় ১১ রানে উইকেট হারান ওপেনার সুনীল নারিন। এরপর ভেঙ্কটিশ আইয়ারকে সঙ্গে নিয়ে ৪৪ বলে ৯১ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের দুয়ারে নিয়ে যান ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ।

জয়ের জন্য ৬৭ বলে কলকাতার প্রয়োজন ছিল মাত্র ১২ রান। খেলার এমন অবস্থায় আউট হয়ে ফেরেন আফগান ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজ। তিনি ৩২ বলে ৫টি চার আর ২টি ছক্কার সাহায্যে ৩৯ রান করে ফেরেন। 

চার নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামা অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ারকে সঙ্গে নিয়ে ৫৮ বল আগেই ৮ উইকেটের জয় নিশ্চিত করেন ভেঙ্কটিশ আইয়ার। তিনি ২৫ বলে ৪টি চার আর ৩টি ছক্কার সাহায্যে ৫১ রান করে অপরাজিত থাকেন।