img

মুক্তি পেলেন লামিচানে, বিশ্বকাপ খেলতে বাধা নেই আর

প্রকাশিত :  ১০:৪১, ১৬ মে ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১০:৫১, ১৬ মে ২০২৪

মুক্তি পেলেন লামিচানে, বিশ্বকাপ খেলতে বাধা নেই আর

আগামী ২ জুন যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। গুরুত্বপূর্ণ এই সময়ে এসে বড় সুখবর পেল নেপাল ক্রিকেট দল। ২০২২ সালে এক কিশোরীকে ধর্ষণের মামলায় শাস্তি পাওয়া সন্দ্বীপ লামিচানেকে নির্দোষ ঘোষণা করে মুক্তি দিয়েছে নেপালের উচ্চ আদালত। সকল অভিযোগ থেকে মুক্তি পাওয়ায় বিনা বাধায় তাকে বিশ্বকাপ দলে নিতে পারবে নেপাল।

এর আগে দীর্ঘ দেড় বছর ধরে বিচার-কার্যক্রম চলার পর গত জানুয়ারিতে তাকে ধর্ষণের দায়ে আট বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিলেন নেপালের আদালত। ধারণা করা হচ্ছে এই তারকা স্পিনার বিশ্বকাপে খেলাতেই চাঞ্চল্যকর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে নেপাল। বুধবার (১৫ মে) এক প্রতিবেদনে তার মুক্তির তথ্য নিশ্চিত করেছে দ্য কাঠমান্ডু পোস্ট।

হাইকোর্টের মুখপাত্র বিমল পারাজুলি জানিয়েছেন, হাইকোর্ট জেলা আদালতের রায় বাতিল করেছে। ফলে খালাস পেয়েছেন সন্দ্বীপ লামিচানে। পাতান হাইকোর্টের মুখপাত্র তীর্থরাজ ভাট্টারি বলেন, পর্যাপ্ত প্রমাণের অভাব রয়েছে উল্লেখ করে আগের রায় বাতিল করেছেন বিশেষ বেঞ্চ।

গত জানুয়ারির শুরুতে নেপালের সাবেক অধিনায়ক সন্দ্বীপ লামিচানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের প্রমাণ পাওয়ার কথা জানিয়েছিলেন কাঠমান্ডু জেলা আদালত। পরে ১০ জানুয়ারি তাকে ওই মামলায় আট বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। একইসঙ্গে লামিচানেকে তিন লাখ নেপালি রুপি জরিমানা এবং ভুক্তভোগী কিশোরীকে আরও দুই লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেওয়ারও নির্দেশ দেন আদালত। -চ্যানেল২৪

এদিকে নমব টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য গত ১ মে দল ঘোষণা করেছিল নেপাল ক্রিকেট বোর্ড। যদিও ওই দলে পরিবর্তন আনার জন্য ২৫ মে পর্যন্ত সময় আছে প্রতিযোগী দলগুলোর হাতে। ফলে বিশ্বকাপ দলে লামিচানেকে দেখা গেলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

২০১৮ সালে নেপাল জাতীয় দলে অভিষেকের পর ৫১টি ওয়ানডে ও ৫২টি-টোয়েন্টি খেলেছেন লামিচানে। সবমিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার উইকেট সংখ্যা ২১০টি। তাছাড়া অভিযুক্ত হওয়ার আগে বিশ্বের প্রায় সব বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে খেলেছেন তিনি।

খুলনাকে হারিয়ে প্রথম জয়ের স্বাদ নিল সিলেট

টি-20 বিশ্বকাপ

img

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দাপুটে জয় ইংল্যান্ডের

প্রকাশিত :  ০৯:০১, ২০ জুন ২০২৪

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার এইটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৪ উইকেটে ১৮০ রানের জবাবে ১৫ বল হাতে রেখে ২ উইকেটে ১৮১ তুলে জয় নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সেন্ট লুসিয়ার ড্যারেন স্যামি জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিতে ক্যারিবিয়ানদের ব্যাটিংয়ে পাঠান ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার ব্রান্ডন কিং ও জনসন চার্লস।

তবে দলীয় ৪০ রানে ১৩ বলে ২৩ রান করে রিটার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান কিং। এরপর নিকোলাস পুরানকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন জনসন। জনসন ৩৪ বলে ৩৮ ও পুরান ৩২ বলে ৩৬ রান করেন 

মাঝে অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল ১৭ বলে ৩৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। শেষ দিকে শেরফান রাদারফোর্ডের ২৫ বলে ২৮ রানে ভর করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

১৮১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ইংলিশ ওপেনার ফিল সল্ট ও জস বাটলার। উদ্বোধনী জুটিতে ৬৭ রান যোগ করেন এই দুই ব্যাটার। 

তবে এরপর দ্রুতই জোড়া উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। বাটলার ২২ বলে ২৫ ও মঈন আলি ১০ বলে ১৩ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। তাদের বিদায়ের পর জনি বেয়ারস্টোকে সঙ্গে নিয়ে ক্যারিবিয়ান বোলারদের ওপর চড়াও হন সল্ট।

আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নেন সল্ট। এই দুই ব্যাটারের ব্যাটে ১৫ বল হাতে রেখে ৮ উইকেটের জয় পায় ইংল্যান্ড। ক্যারিবিয়ানদের পক্ষে আন্দ্রে রাসেল ও রস্টন চেজ নেন ১টি করে উইকেট।