img

ফ্লোর প্রত্যাহারের পর ১ লাখ ৩৫ হাজার কোটি টাকা গায়েব

প্রকাশিত :  ১২:২৫, ২৬ মে ২০২৪

ফ্লোর প্রত্যাহারের পর ১ লাখ ৩৫ হাজার কোটি টাকা গায়েব

শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিএসইসি চলতি বছরের ১৮ জানুয়ারি তালিকাভুক্ত ৩৫টি কোম্পানির শেয়ার বাদে বাকি সব কোম্পানির শেয়ারের ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহার করে নেয়। সেদিন প্রধান শেয়ারবাজার  ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ছিল ৬ হাজার ৩৩৬ পয়েন্ট। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার ডিএসইর প্রধান সূচক নেমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৩১২ পয়েন্টে। এই সময়ে ডিএসইর সূচক কমেছে ১ হাজার ২৪ পয়েন্ট বা ১৬.১৬ শতাংশ।

ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহারের পর তালিকাভুক্ত ৩৯৫টি কোম্পানির মধ্যে ২০০টির বেশি কোম্পানির শেয়ার ফ্লোর প্রাইসের নিচে অবস্থান করছে। এতে ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে ১ লাখ ৩৫ হাজার কোটি টাকা।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহারের পর ১০টি কোম্পানির শেয়ার দাম কমেছে ৫৬ শতাংশ থেকে ৭০ শতাংশ। কোম্পানিগুলো হলো-জিএসপি ফিন্যান্স, আইপিডিসি ফিন্যান্স, রিং শাইন টেক্সটাইল, বে-লিজিং, এইচআর টেক্সটাইল, ফনিক্স ফিন্যান্স, ফরচুন সুজ, বিডি ফিন্যান্স, বিডি ল্যাম্পস ও ডরিন পাওয়ার।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে জিএসপি ফিন্যান্সের দাম কমেছে ৭০ শতাংশ, আইপিডিসি ফিন্যান্সের ৬৫ শতাংশ, রিং শাইন টেক্সটাইলের ৬৩ শতাংশ, বে-লিজিংয়ের ৬৩ শতাংশ, এইচআর টেক্সটাইলের ৬০ শতাংশ, ফনিক্স ফিন্যান্সের ৬০ শতাংশ, ফরচুন সুজের ৫৯ শতাংশ, বিডি ফিন্যান্সের ৫৮ শতাংশ, বিডি ল্যাম্পসের ৫৬ শতাংশ ও ডরিন পাওয়ারের ৫৬ শতাংশ।

তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহারের পর এক পর্যায়ে সূচক নেমেছিল ২৩৯ পয়েন্ট। তারপর বাজার ঘুরে দাঁড়ায়। ফ্লোর প্রত্যাহারের তিন সপ্তাহের মাথায় ১১ ফেব্রুয়ারি ডিএসই খোয়া যাওয়া সূচক ২৩৯ পয়েন্ট উদ্ধার করে আরও ১১১ পয়েন্ট বৃদ্ধি নিয়ে অবস্থান করে ৬ হাজার ৪৪৭ পয়েন্টে।

তারপর থেকেই ধারাবাহিক পতন। সেই পতনের আগুনে নতুন করে ঘি ঢেলেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের রেকর্ড পতন এবং আসন্ন বাজেটে গেইন ট্যাক্স আরোপ গুঞ্জন। এই দুই পতনের ধাক্কায় ডিএসই সূচক উধাও হয়ে গেছে ৩৮৪ পয়েন্ট।

img

বুধবার ব্লকে পাঁচ কোম্পানির বড় লেনদেন

প্রকাশিত :  ১৯:২৭, ১৯ জুন ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১৯:২৯, ১৯ জুন ২০২৪

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লক মার্কেটে  সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস বুধবার ২২টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। এসব কোম্পানির মোট ১৩ কোটি ৫২ লাখ ২০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হতে দেখা গেছে পাঁচ কোম্পানির শেয়ার। ডিএসই সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানিগুলো হলো- প্রগতি লাইফ ইন্সুরেন্স, দেশ জেনারেল ইন্সুরেন্স, শমরিতা হসপিটাল, স্কায়ার ফার্মা এবং রূপালী লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। আজ এই পাঁচ কোম্পানির মোট শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৯ কোটি ৫০ লাখ টাকারও বেশি।

জানা গেছে, কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে প্রগতি লাইফ ইন্সুরেন্স। এদিন কোম্পানিটির ২ কোটি ৭০ লাখ ২৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দেশ জেনারেল ইন্সুরেন্সের ১ কোটি ৯৫ লাখ ২৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

আর ১ কোটি ৭২ লাখ ২৭ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন করে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে শমরিতা হসপিটাল।

অন্য দুইটি কোম্পানির মধ্যে- স্কায়ার ফার্মার ১ কোটি ৫৯ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং রূপালী লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ১ কোটি ৫৩ লাখ ৯২ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।