img

চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে কঙ্গনাকে থাপ্পড় মারলেন এক নারী

প্রকাশিত :  ১৪:৫৮, ০৬ জুন ২০২৪

চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে কঙ্গনাকে থাপ্পড় মারলেন এক নারী

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে হিমাচল প্রদেশের মান্ডি কেন্দ্র থেকে বিজেপির টিকিটে সদ্য জয়ী প্রার্থী বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউতকে দেশটির চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে থাপ্পড় মারা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্সের (সিআইএসএফ) একজন নারী সদস্য কঙ্গনাকে চড় মারেন। 

ইতোমধ্যে ওই নিরাপত্তা রক্ষীকে আটক করা হয়েছে বলে সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ঘটনার বিস্তারিত সম্পর্কে জানা যায়, আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে চণ্ডীগড় থেকে দিল্লির উদ্দেশে রওনা দেন কঙ্গনা। তিনি হিমাচল প্রদেশের মণ্ডী লোকসভা কেন্দ্রের সদ্য নির্বাচিত প্রার্থী। স্থানীয় সময় বিকাল ৩টা নাগাদ বিস্তারার বিমানে ওঠার কথা ছিল তার। সেখানেই নিরাপত্তাজনিত কারণে তল্লাশির সময়ে ওই নিরাপত্তারক্ষীর সঙ্গে অভিনেত্রীর বচসা হয় বলে অভিযোগ। 

হিন্দুস্তান টাইমস্ জানিয়েছে, বিমানবন্দরে তল্লাশির সময়ে নিজের মোবাইল ফোনটি নির্দিষ্ট ট্রে-তে রাখতে রাজি হননি কঙ্গনা। তাতে আপত্তি করেন নিরাপত্তারক্ষী। তিনি অভিনেত্রীকে জানান, বিমানবন্দরের নিরাপত্তার নিয়ম অনুযায়ী, মোবাইল ওই ট্রে-তে রাখতে হবে। তার জেরেই ঝামেলা শুরু হয়। বিমানবন্দরের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। 

অভিযোগ, কঙ্গনা ওই নারী নিরাপত্তারক্ষীকে ধাক্কা মারেন। এরপরেই ওই নিরাপত্তারক্ষী তাকে চড় মারেন বলে অভিযোগ। দেশটির বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকেন সিআইএসএফ জওয়ানেরা। 

সূত্রের খবর, দিল্লিতে নেমে সিআইএসএফের ডিরেক্টর জেনারেল নীনা সিংহ এবং অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করেছেন কঙ্গনা। চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে কী কী ঘটেছে, তা কর্মকর্তাদের কাছে ব্যাখ্যা করেন। নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগও করেছেন তিনি।

‘ইন্ডিয়া টুডে’ জানিয়েছে, সংশ্লিষ্ট নিরাপত্তারক্ষীকে আটক করে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। কঙ্গনা অবশ্য ধাক্কাধাক্কির কথা মানতে নারাজ। তার অভিযোগ, ওই নারী নিরাপত্তাকর্মী কৃষক আন্দোলনের সমর্থক। তাই তাকে আক্রমণ করেছেন। 

এ প্রসঙ্গে একটি ভিডিও বার্তায় কঙ্গনা বলেন, ‘আমার কাছে অনেক ফোন আসছে। প্রথমেই জানাই, আমি ভাল আছি। আজ চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে নিরাপত্তা তল্লাশির পর আমি যখন বেরোলাম, পাশের একটি কেবিন থেকে এক নারী নিরাপত্তারক্ষী বেরিয়ে এসে পাশ থেকে আমার গালে চড় মারেন। আমাকে গালিগালাজও করেন। আমি ওকে যখন জিজ্ঞেস করলাম, কেন উনি এমন করলেন, উনি বললেন, উনি কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন করেন। আমি নিরাপদে আছি। কিন্তু পাঞ্জাবে যেভাবে আতঙ্কবাদ এবং উগ্রবাদ বেড়ে চলেছে, তা নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন।’ 


img

বিরল রোগে আক্রান্ত কিংবদন্তি গায়িকা অলকা

প্রকাশিত :  ০৮:৩০, ১৮ জুন ২০২৪

কিংবদন্তি গায়িকা অলকা ইয়াগনিককে অনেকদিন ধরেই পাওয়া যাচ্ছে না বলিউডে। যার ঝুলিতে রয়েছে প্রায় কয়েকশ সুপার হিট গানের লম্বা লিস্ট। যিনি বলিউডে রাজত্ব করছেন প্রায় নব্বইয়ের দশক থেকে। তার কণ্ঠের জনপ্রিয় গানগুলি গুণগুণ করে তরুণ থেকে প্রবীণ প্রজন্ম সবাই। গত বছরেই তার গান শোনার শ্রোতা সংখ্যা রেকর্ড গড়েছিল। পিছিয়ে দিয়েছিল বিশ্বের অন্যতম খ্যাতনামা ব্যান্ড ‘BTS’ আর্মি কেও। কিন্তু বহুদিন ধরেই, গায়িকা লাইমলাইটে নেই। যদি ও বর্তমানে তরুণ প্রজন্মের সঙ্গীত শিল্পীদের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে পুরোনো প্রজন্মের সংগীত শিল্পীরা । তাতে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু অলকা ইয়াগনিকের কণ্ঠ যেন আইকনিক। সম্প্রতি গায়িকা তার হারিয়ে যাওয়ার কারণ নিজেই ইনস্টাগ্রামের মাধ্যমে ভক্তদের জানিয়েছেন। নিজের জীবনের একটি দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা শেয়ার করলেন। বিরল ভাইরাস আক্রমণ করেছে গায়িকাকে। যার কারণে তার বিরল সংবেদনশীল স্নায়ু শ্রবণশক্তি হ্রাস পেয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করে অলকা লিখেছেন, ‘আমার সমস্ত ভক্ত, বন্ধু, অনুরাগী এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্য। কয়েক সপ্তাহ আগে, আমি যখন একটি ফ্লাইট থেকে নামছিলাম, তখন হঠাৎ অনুভব করলাম- আমি কিছুই শুনতে পাচ্ছি না। এই পর্বের কয়েক সপ্তাহ পর, আমি এখন আমার সমস্ত বন্ধু এবং শুভাকাঙ্ক্ষীদের জন্য এই পোস্ট। যারা জানতে চায় কেন আমি অ্য়াকশনে অনুপস্থিত।’

নিজের শরীরের আরও আপডেট দিয়ে অলকা লেখেন, ‘ভাইরাল আক্রমণের কারণে এটি একটি বিরল সংবেদনশীল স্নায়ুর সমস্যা। যার কারণে শ্রবণশক্তি হ্রাস পেয়েছে। এই আকস্মিক, বড় ধাক্কা আমার অজান্তেই শরীরে গ্রাস করেছে। আমি এটির সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছি। দয়া করে আপনারা অমার জন্য প্রার্থনা করবেন।’

অলকা তার এই পোস্টে জোরে মিউজিক শোনা ও হেডফোনে খুব উচ্চ আওয়াজ রাখা থেকেও বিরত করেন নিজের অনুরাগীদের। লেখেন, ‘আমার অনুরাগী এবং তরুণ সহকর্মীদের জন্য, আমি খুব জোরে মিউজিক এবং হেডফোনের সংস্পর্শে আসার বিষয়ে সতর্কতামূলক শব্দ যোগ করব। আমি আমার পেশাগত জীবনের স্বাস্থ্যগত বিপদগুলি শেয়ার করতে চাই। আপনাদের সবার ভালোবাসা এবং সমর্থন দিয়ে আমি পুনরুদ্ধার করার আশা করছি। আমার বিশ্বাস, শিগগিরই আপনাদের কাছে ফিরে আসব।’

অলকা ইয়াগনিকের এই পোস্ট হতবাক করেছে তার অনুগামীদের। ইলা অরুণ লিখলেন, ‘এটা শুনে খুব কষ্ট পেলাম। প্রিয়তম অলকা আমি তোমার ছবি দেখেছি এবং সঙ্গে সঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছি। তারপর আমি যা পড়লাম, এটি হৃদয়বিদারক। তবে সেরা ডাক্তারদের ওপর ভরসা রাখ। তুমি ভালো থাকবে এবং শিগগিরই আমরা তোমার মিষ্টি কণ্ঠ শুনতে পাব। ভালোবাসা। সবসময় নিজের যত্ন নিও।’

সোনু নিগম লিখলেন, ‘আমার মনেই হয়েছিল সব ঠিক নেই। ফিরেই তোমার সঙ্গে দেখা করব। দ্রুত সেরে ওঠো।’ ৫৪ বছর বয়সী অলকার শেষ গান গেয়েছেন ‘ক্রু’ এবং ‘অমর সিং চামকিলা’ ছবিতে।