img

ইসরাইলি সংগঠন সাভ-৯ এর ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত :  ১৯:১৩, ১৫ জুন ২০২৪

ইসরাইলি সংগঠন সাভ-৯ এর ওপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা

গাজার যুদ্ধবিদ্ধস্ত মানুষদের জন্য নিয়ে যাওয়া মানবিক ত্রাণের বহরে হামলার ঘটনায় ইসরায়েলের একটি সংগঠনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন কর্মকর্তারা একথা জানিয়েছেন। খবর রয়টার্সের।

শুক্রবার এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে বলে মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। আল জাজিরা এক প্রতিবেদনে জানায়, ইসরাইলি সংগঠন সাভ-৯ এর ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর রিজার্ভ সেনা এবং পশ্চিম তীরের ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের সঙ্গে সম্পৃক্ততা আছে। এরা মূলত গাজায় ত্রাণের চালানে বাধা দেওয়া, ক্ষতিগ্রস্ত করা এবং হয়রানি করার মতো কর্মকাণ্ডে জড়িত।

গাজায় গত আট মাসেরও বেশি সময় ধরে চলছে ইসরাইলির সামরিক আগ্রাসন। এ ব্যাপক যুদ্ধের মধ্যে উপত্যকাটিতে খাবার-পানি এবং চিকিৎসা সামগ্রীর ভয়াবহ সংকটে রয়েছে বহু মানুষ। তাদের জন্য মানবিক ত্রাণ সহায়তা নিয়ে যাচ্ছিল ত্রাণবহর। এর মধ্যেই ইসরাইলি সংগঠন সাভ-৯ গাজার ত্রাণবহরে হামলা চালিয়েছে। এর জন্য ইসরাইলি সংগঠনটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন কর্মকর্তারা এ কথা জানিয়েছেন। 

শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর এক বিবৃতিতে জানায়, ‘গাজার মানবিক সংকটকে আরও খারাপ হওয়া থেকে রোধ করতে এবং দুর্ভিক্ষের ঝুঁকি কমাতে ভূখণ্ডটিতে মানবিক সহায়তা অতি জরুরি।’ 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘ইসরাইল এবং পশ্চিম তীরের সীমান্ত দিয়ে গাজায় সরবরাহকৃত মানবিক ত্রাণবাহী গাড়িগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব সম্পূর্ণ ইসরাইল সরকারের। এই অত্যাবশ্যক মানবিক সহায়তাকে লক্ষ্য করে নাশকতা ও সহিংসতা সহ্য করবে না যুক্তরাষ্ট্র।’ এরপর মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেন, ‘দুর্ভিক্ষের ঝুঁকি এবং গাজার মানবিক সংকট এড়াতে মানবিক সহযোগিতা পাঠানো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’ 

মিলার এক বিবৃতিতে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ওইসব গোষ্ঠীকে জবাবদিহিতার আওতায় আনবে যারা গাজায় মানবিক সাহায্য সরবরাহে বাধা দেবে এবং ইসরাইলি সরকারকেও একই পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। গাজায় গত আট মাসেরও বেশি সময় ধরে চলছে ইসরাইলির সামরিক আগ্রাসন। এ ব্যাপক যুদ্ধের মধ্যে উপত্যকাটিতে খাবার-পানি এবং চিকিৎসা সামগ্রীর ভয়াবহ সংকটে রয়েছে বহু মানুষ। এর মধ্যেই ইসরাইলের এই সংগঠন গত ১৩ মে পশ্চিম তীরের হেবরনের কাছে ত্রাণ লুট করার পর দুটি ত্রাণবাহী গাড়ি জ্বালিয়ে দেয়। তবে ইসরাইল এমন অভিযোগ তারা অস্বীকার করে আসছে। 

img

হামাসের সক্ষমতা নিয়ে এবার যে স্বীকারোক্তি দিল ইসরাইল

প্রকাশিত :  ১১:৫১, ১৮ জুলাই ২০২৪
সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫৩, ১৮ জুলাই ২০২৪

অবরুদ্ধ গাজায় গত ৯ মাসে উল্লেখযোগ্য ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়ার পরেও ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের যোদ্ধারা এখনো তেল আবিব এবং জেরুজালেম শহরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাতে সক্ষম বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে দখলদার ইসরাইলি বাহিনী।

বুধবার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে দখলদার ইসরাইলের বর্বর সামরিক বাহিনী এ স্বীকারোক্তি দেয়।

তাদের দাবি, গাজা উপত্যকায় চলমান আগ্রাসনের সময় ৬ জন ব্রিগেড কমান্ডার, ২০ জন ব্যাটালিয়ন কমান্ডার এবং ১৫০ জন কোম্পানি কমান্ডারসহ হামাসের প্রায় ১৪ হাজার যোদ্ধা হতাহত ও আটক হয়েছেন। তা সত্ত্বেও হামাস এখনো তেল আবিব ও জেরুজালেম শহরে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে হামলা চালাতে সক্ষম।

গত ৯ মাসে তারা হামাসের ৩৭ হাজার অবস্থান লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়েছে উল্লেখ করে ইসরাইলি বাহিনী আরও জানিয়েছে, তবে হামাসের অর্ধেকেরও বেশি যোদ্ধা এখনো বেঁচে আছেন। 

এছাড়া হামাসের অপর তিনটি ব্রিগেডের বিরুদ্ধে এখনও ইসরাইল যুদ্ধই শুরু করেনি বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

অন্যদিকে ইসরাইলি বাহিনীর বক্তব্য অনুযায়ী, হামাসের সঙ্গে যুদ্ধে তাদের ৬৮২ জন সেনা নিহত এবং ৯ হাজারের বেশি আহত হয়েছে। আহতদের প্রায় ৩৬ ভাগই মানসিক সমস্যায় ভুগছেন। সূত্র: ইরনা