প্রকাশিত :  ১০:০৪, ২৯ জুন ২০১৯
সর্বশেষ আপডেট: ১০:৪৭, ২৯ জুন ২০১৯

প্রবাসীদের সেবায় চালু হচ্ছে ‘দূতাবাস’ অ্যাপস: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

 প্রবাসীদের সেবায় চালু হচ্ছে ‘দূতাবাস’ অ্যাপস: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জনমত ডেস্ক: বিদেশে কর্মরত বাংলাদেশিদের সার্বক্ষণিক সহায়তা ও পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য চালু হচ্ছে ‘দূতাবাস’ নামে একটি মোবাইল অ্যাপস। এটি দ্রুতই চালু করবে সরকার বলে জানিয়েছেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। 

শনিবার (২৯ জুন) জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনা অংশ নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একথা জানান। 

সেবা দেওয়ার প্রক্রিয়া সহজ, নিখুঁত এবং শতভাগ নিশ্চিত করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘দূতাবাস’ নামের ডিজিটাল অ্যাপও বানিয়েছে। এর মাধ্যমে আগ্রহীরা ওই অ্যাপের মাধ্যমেই যোগাযোগ করলেই পাবেন কাঙ্ক্ষিত সেবা। জুন মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ডিজিটাল অ্যাপটির উদ্বোধন করবেন।

অ্যাপটি চালু হলে নাগরিক সেবার ক্ষেত্রে বিশ্বে বাংলাদেশ নতুন উদাহরণ সৃষ্টি করবে। এরই মধ্যে এই অ্যাপ বানানোর কাজ প্রায় শেষ হয়েছে।

নাগরিকদের সেবা দেওয়ার প্রক্রিয়া সহজ ও নিশ্চিত করতে গত বছর ডিজিটাল পদ্ধতিতে সেবা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। যার মাধ্যমে অনলাইনে বিশ্বের যেকোনো জায়গা থেকে যেকোনো বাংলাদেশি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে নাগরিক সেবা নিতে পারবেন।

জানা গেছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কনস্যুলার ও কল্যাণ অনুবিভাগ এবং বিদেশে বাংলাদেশের মিশনগুলো প্রবাসীদের শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, জন্ম বা মৃত্যু সনদ, পুলিশি ছাড়পত্র, আমমোক্তারনামাসহ মোট ৩৪ ধরনের সেবা দিয়ে থাকে। এই সেবা নিতে এখন বাংলাদেশিদের সংশ্লিষ্ট অফিসে যেতে হয়। তবে অ্যাপটি চালু হলে বাংলাদেশিরা যেকোনো স্থান থেকে সেবা পেতে আবেদন করতে পারবেন।

ড. এ কে আব্দুল মোমেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেবার পর পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয়কে প্রবাসীবান্ধব করার জন্য নানা উদ্যোগ গ্রহন করেন। গত ফেব্রুয়ারি মাসে বিদেশের বাংলাদেশ কূটনৈতিক মিশনগুলোতে প্রতিদিন ২৪ ঘণ্টা কনস্যুলার সেবা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অভ্যর্থনা কক্ষ তথা কনস্যুলার সেবা কক্ষের আমূল পরিবর্তনের মাধ্যমে একে আগের থেকে সেবাবান্ধব করার পদক্ষেপ গ্রহণ করা অতি জরুরি। কেননা দেশের সার্বিক উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় প্রবাসীদের সম্পৃক্ত করতে পারলে রেমিটেন্স যেমন বাড়বে, তেমনি বিনিয়োগও বাড়তে পারে।’ এসব ক্ষেত্রে সাফল্য অনেকাংশে নির্ভর করে পারস্পরিক সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কও যথার্থ সেবা প্রদানের ওপর।


 



Leave Your Comments


বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এর আরও খবর